Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ||  ফাল্গুন ১৫ ১৪২৭ ||  ১৫ রজব ১৪৪২

টানা বর্ষণে পাহাড় ধসের শঙ্কা, প্রস্তুত ১৫ আশ্রয়কেন্দ্র

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:৩৭, ২৩ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৪:১৩, ২৩ অক্টোবর ২০২০
টানা বর্ষণে পাহাড় ধসের শঙ্কা, প্রস্তুত ১৫ আশ্রয়কেন্দ্র

চট্টগ্রাম মহানগরী ও জেলার বিভিন্ন উপজেলায় টানা বৃষ্টিপাত অব্যাহত রয়েছে।

শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) দুপুর ১২টা পর্যন্ত অব্যাহত বর্ষণে চট্টগ্রাম মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টিতে নগরীতে পাহাড় ধসের শঙ্কা তৈরি হওয়ায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পাহাড়ের ঢালুতে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারীদের অবিলম্বে সরে যেতে মাইকিং করা হচ্ছে। এই জন্য চট্টগ্রাম নগরীতে খোলা হয়েছে ১৫টি আশ্রয়কেন্দ্র।

চট্টগ্রামের আবহাওয়াবিদ ফরিদ আহাম্মদ রাইজিংবিডিকে এসব তথ‌্য নিশ্চিত করেছেন।

আবহাওয়াবিদ ফরিদ আহাম্মদ জানান, শুক্রবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত চট্টগ্রামে প্রায় ১২০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। আজ সারাদিনই মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। অব্যাহত বৃষ্টিতে পাহাড় ধসের আশঙ্কা রয়েছে। এদিকে, বৈরি আবহাওয়া সমুদ্র উত্তাল থাকায় চট্টগ্রাম বন্দরসহ নদী ও সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৪ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া দপ্তর।

অব্যাহত বর্ষণে চট্টগ্রাম মহানগরী ও জেলার বিভিন্ন উপজেলায় দুর্ভোগের মধ্যে পড়েছে সাধারণ মানুষ। চট্টগ্রাম মহানগরীর নিম্মাঞ্চলের কোথাও কোথাও জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। ভূমি ধসের আশঙ্কায় চট্টগ্রাম মহানগরীর ১৭টি পাহাড়ের পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসকারী সাধারণ মানুষকে নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে নির্দেশনা দিয়েছে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পাহাড়ের ঢাল থেকে লোকজনকে নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যেতে শুক্রবার সকাল থেকেই মাইকিং করা হচ্ছে।

চট্টগ্রামের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) এস এম জাকারিয়া রাইজিংবিডিকে জানান, বৃষ্টিতে পাহাড় ধসের আশঙ্কা থাকায় পাহাড়ের ঢাল থেকে লোকজনকে সতর্ক থাকার জন‌্য মাইকিং করে নিরাপদ আশ্রয়ে সরে যাওয়ার জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া, লোকজনের নিরাপদ আশ্রয়ের জন্য চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন এলাকায় ১৫টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা হয়েছে।

এস এম জাকারিয়া জানান, পাহাড় ধসের শঙ্কায় পাহাড়ে ঝুঁকিপূর্ণ বসবাসকারীকে সরে যেতে মাইকিং করে সতর্ক করা হচ্ছে। জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ সরেজমিনে গিয়ে এ ব্যাপারে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন।

চট্টগ্রাম/রেজাউল/বুলাকী

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়