RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৭ ||  ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

চট্টগ্রামে আলুর কেজি ৫০, মরিচ ২০০ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:১০, ৩০ অক্টোবর ২০২০   আপডেট: ১৬:১১, ৩০ অক্টোবর ২০২০
চট্টগ্রামে আলুর কেজি ৫০, মরিচ ২০০ টাকা

চট্টগ্রামের পাইকারিতে ৩০ থেকে ৩২ টাকায় প্রতিকেজি আলু কিনে খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে ১৮ থেকে ২০ টাকা লাভে ৫০ টাকা কেজিদরে। খুচরা বিক্রেতাদের লাগামহীন মুনাফায় অসহায় হয়ে পড়েছে সাধারণ ক্রেতারা। 

চট্টগ্রামের বাজারে আলু থেকে শুরু করে প্রতিটি সবজির মূল্য রীতিমতো আকাশচুম্বি। দুইদিন আগেও কাঁচামরিচ ১২০ টাকা কেজি বিক্রি হলেও শুক্রবার এর মূল্য প্রতিকেজি ২০০ টাকা। টমেটোর কেজি ১০০ টাকা থেকে ৫০ টাকা বেড়ে ১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। 

আজ শুক্রবার (৩০ অক্টোবর) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চট্টগ্রাম নগরীর কয়েকটি বাজারে খবর নিয়ে সবজির মূল্য বৃদ্ধির এই চিত্র পাওয়া গেছে।

চট্টগ্রাম নগরীর বড় কাঁচাবাজার বহদ্দার হাট বাজারের ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে সাধারণ মানুষ সবজি কিনতে গিয়ে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে। এই বাজারে প্রতিকেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৪৮ থেকে ৫০ টাকায়। ছোট সাইজের দেশি আলু বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকা কেজি। গত সপ্তাহে কাঁচা মরিচ ১২০ থেকে ১৫০ টাকায় বিক্রি হলেও শুক্রবার এর দাম কেজি ২০০ টাকা। টমেটোর দাম ১৩০ থেকে ১৫০ টাকা। বেগুন ৮০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, বরবটি ৮০ টাকা, পেঁপে ৩৫ টাকা, তিতা করলা ৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে।

শীতকালীন সবজির মধ্যে ফুলকপি ১০০ টাকায়, বাঁধাকপি ৮০ টাকায়, চিচিঙ্গা ৭০ টাকায়, ঝিঙ্গা ৯০ টাকায়, ঢেঁড়স ৮০ টাকায় ও শসা ৫০ টাকা কেজিদরে বিক্রি হতে দেখা গেছে। 

বহদ্দার হাট বাজারে সকালে সবজি কিনতে আসা হুমায়ুন কবীর রাইজিংবিডিকে জানান, এখন এমন পরিস্থিতি দাঁড়িয়েছে ১০০ টাকা দিয়ে এক পদের সবজিও কেনা যাচ্ছে না। এক আঁটি শাক কিনতেও ৩০ থেকে ৪০ টাকা লাগছে। এই অবস্থায় নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষকে রীতিমতো না খেয়ে থাকতে হবে।

এদিকে, চট্টগ্রামের রিয়াজউদ্দিন বাজারের আলুর আড়তদারা জানিয়েছেন, পাইকারিতে প্রতিকেজি আলু বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৩৭ টাকার মধ্যে। খুচরা বাজারে গিয়ে আলুর কেজি ৫০ টাকা। খুচরা দোকানিরা প্রতিকেজি আলুতে মুনাফা করছেন ১৫ থেকে ২০ টাকা পর্যন্ত। রিয়াজউদ্দিন বাজারে আলুর আড়তে জেলা প্রশাসনের অভিযানের কারণে আলুর পাইকারি বিক্রির মূল্য নিয়ে কোনো আড়তদারই সরাসরি মন্তব্য করতে রাজি হননি। তবে নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক আড়তদাররা বলেছেন, পাইকারিতে আলুর দাম ৩৫ টাকার মধ্যে সীমাবদ্ধ আছে। খুচরা বিক্রেতারা অস্বাভাবিক দাম বাড়িয়ে বিক্রি করছেন। 

এদিকে, চট্টগ্রাম বন্দরে একের পর এক পিঁয়াজভর্তি জাহাজ আসলেও বাজারে এখনো পেঁয়াজের দাম কমছেই না। বাজারে পেঁয়াজ প্রতিকেজি বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৯০ টাকায়। মিশরের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৬০ টাকায়, ভারতীয় পেঁয়াজ ৮০ ও দেশি পেঁয়াজ ৯০ টাকায়। রসুন ৮০ থেকে ৯০ টাকা ও আদা ১৫০ থেকে ১৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

অপরিবর্তিত রয়েছে ব্রয়লার মুরগির দাম। প্রতিকেজি ব্রয়লার মুরগি ১২০ থেকে ১২৫ টাকা। লেয়ার মুরগি ২২০ টাকা ও সোনালি মুরগি ১৯০ থেকে ২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। হাড় ছাড়া গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৬৫০ টাকায়, হাড়সহ ৫৫০ টাকায় ও খাসির মাংস ৮০০ টাকায় বিক্রি হয়।
 

রেজাউল/বকুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়