RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২৭ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ১৩ ১৪২৭ ||  ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

পাওনা টাকা চাওয়ায় হত‌্যা: গ্রেপ্তার ২

নিজস্ব প্রতিবেদক, গাজীপুর || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:১৩, ২৪ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ১৯:৪৮, ২৪ নভেম্বর ২০২০
পাওনা টাকা চাওয়ায় হত‌্যা: গ্রেপ্তার ২

শিখা আক্তার হত‌্যায় জড়িত মোকসেদ আলী ও জাহাঙ্গীর হোসেন (বাঁ থেকে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয়)

গাজীপুরে পাওনা টাকা চাওয়ায় এক নারীকে হত‌্যার প্রায় দুই বছর পর দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে গাজীপুর পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। একইসঙ্গে হত‌্যা রহস‌্যও উদঘাটন করেছে পিবিআই।

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে গাজীপুর পুলিশ ব্যুরো ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)’র এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ‌্যমে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ইন্সপেক্টর এসএম শাকিল হাসান এসব তথ্য জানান।

গ্রেপ্তার দুজন হলো- গাজীপুর মেট্রোপলিটন সদর থানার পোড়াবাড়ী পূর্বপাড়া (কোনাপাড়া) এলাকার মৃত জহির উদ্দিনের ছেলে মোকসেদ আলী (৪২) ও একই এলাকার আলমাছ উদ্দিনের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (৩৮)।

খুন হওয়া ওই নারীর নাম শিখা আক্তার। তিনি গাজীপুরের কাপাসিয়া উপজেলার আড়াল গ্রামের তাইজদ্দিনের মেয়ে। শিখা গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ইপসা গেট এলাকায় ভাড়ায় বসবাস করতেন। তার স্বামী প্রবাসী।

হত‌্যার শিকার শিখা আক্তার

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ২০১৮ সালের ১৩ ডিসেম্বর পুলিশ পোড়াবাড়ী পূর্বপাড়া (কোনাপাড়া) এলাকার একটি পুকুর পাড়ের কাদার মধ্যে মাটিচাপা অবস্থায় অজ্ঞাত এক নারীর (৩২) বিবস্ত্র মৃতদেহ উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে জিএমপি সদর থানার এসআই মো. মাহবুব বাদী হয়ে অজ্ঞাতানামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। পরবর্তীতে মামলার তদন্তভার পিবিআই গাজীপুরে ওপর পড়ে।

পিবিআইয়ের ইন্সপেক্টর ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসএম শাকিল হাসান জানান, তদন্তকালে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল সোমবার (২৩ নভেম্বর) ভোরে ঘটনার সঙ্গে সরাসরি জড়িত মোকসেদ আলীকে সিটি করপোরেশনের টেকনগপাড়া এলাকা হতে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে জাহাঙ্গীর হোসেনকে গ্রেপ্তার করা হয় কোনাপাড়া এলাকা থেকে। 

তাদেরকে আদালতে হাজির করলে মোকসেদ আলী ঘটনার সঙ্গে নিজের সম্পৃক্তা এবং অপর সহযোগী আসামিদের নাম প্রকাশ করে স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন।

শাকিল হাসান আরও জানান, মোকসেদ তার জবাবন্দিতে প্রকাশ করে- শিখা আক্তারের সঙ্গে তার ব্যক্তিগত সম্পর্ক ছিল। গরু কেনার জন্য শিখা আক্তারের কাছ থেকে সে দেড় লাখ টাকা ধার নেয়। শিখা আক্তার মোকসেদের কাছে টাকা ফেরত চাইলে তাদের মধ্যে মনমালিন্য সৃষ্টি হয়। মোকসেদ টাকা ফেরত না দিয়ে শিখা আক্তারকে ঘটনাস্থলের পার্শ্ববর্তী গজারী বনের ভিতরে নিয়ে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে সহযোগী আসামিদের সহায়তায় লাশ বিবস্ত্র করে ওই পুকুর পাড়ে গর্ত করে মাটিচাপা দিয়ে রাখে।

হাসমত আলী/সনি

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়