RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     সোমবার   ২৫ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ১১ ১৪২৭ ||  ০৯ জমাদিউস সানি ১৪৪২

চাটমোহরে গণসংযোগে ব্যস্ত ১১ মেয়র পদপ্রার্থী

শাহীন রহমান, পাবনা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:৩৯, ২৭ নভেম্বর ২০২০   আপডেট: ০৯:৪৭, ২৭ নভেম্বর ২০২০
চাটমোহরে গণসংযোগে ব্যস্ত ১১ মেয়র পদপ্রার্থী

আগামী ২৮ ডিসেম্বর ২৫টি পৌরসভায় নির্বাচন হবে। এর মধ্যে আছে পাবনার চাটমোহর পৌরসভা। নির্বাচনকে সামনে রেখে পৌর এলাকায় পোস্টারিং করেছেন সম্ভাব্য ১১ জন মেয়র পদপ্রার্থী। তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগের ৭ জন ও বিএনপির ৪ জন।

মেয়র এবং কাউন্সিলর পদে প্রার্থী হতে অনেকেই পৌর এলাকায় গণসংযোগ শুরু করেছেন। স্থানীয় নেতাকর্মীদের সমর্থন পেতে ঘরোয়া বৈঠকসহ সাংগঠনিক তৎপরতা বাড়িয়েছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মনোনয়নপ্রত্যাশী নেতারা। তবে এ পৌরসভায় জাতীয় পার্টির কোনো প্রার্থীর তৎপরতা নেই। 

চাটমোহর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের মধ্যে যারা আলোচনায় আছেন তারা হলেন—উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন, বর্তমান মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মির্জা রেজাউল করিম দুলাল, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও স্বাধীনতা চিকিৎসা পরিষদের পাবনা জেলা কমিটির সভাপতি ডা. গোলজার হোসেন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজিম উদ্দিন মিয়া, পাবনা জেলা পরিষদ সদস্য ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হেলাল উদ্দিন, অ্যাডভোকেট সাইদুল ইসলাম চৌধুরী ও পাবনা জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইতি হোসেন স্বপ্না।

দলীয় সমর্থক ও কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, এই পৌরসভায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন ও বর্তমান মেয়র মির্জা রেজাউল করিম দুলাল।

অন্যদিকে, বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থীরা হচ্ছেন—উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র অধ‌্যাপক আব্দুল মান্নান, পৌর বিএনপির আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান আরশেদ, পৌর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাইদুর রহমান ও পৌর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেন মাসুম।

তাদের মধ্যে উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র অধ‌্যাপক আব্দুল মান্নান এবং পৌর বিএনপির আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান আরশেদ দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার দৌড়ে এগিয়ে আছেন।

এদিকে, কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করতে সম্ভাব্য প্রার্থীরা গণসংযোগ শুরু করেছেন। প্রার্থীদের তালিকায় বর্তমান ও সাবেক কাউন্সিলরদের পাশাপাশি অনেক নতুন মুখও আছে। তারা দলীয় সমর্থন পেতে জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন আছেন। তিনি বলেছেন, ‘দলের সিদ্ধান্তের বাইরে যাওয়ার স্পর্ধা আমার নেই। দল চাইলে অবশ্যই আমাকে নির্বাচন করতে হবে। সেজন্য মানসিক প্রস্তুতি আমার রয়েছে।’

পৌরসভার বর্তমান মেয়র মির্জা রেজাউল করিম দুলাল বলেছেন, ‘দলের মনোনয়ন পেতে চেষ্টা করছি। এলাকাবাসী আমার সাথে আছেন। তাদের প্রতি আমার দায়বদ্ধতা আছে। পৌর এলাকার অনেক কাজ বাকি আছে। সেগুলো শেষ করতে আমাকে নির্বাচন করতে হবে।’ 

সাবেক পৌর মেয়র আব্দুল মান্নান বলেন, ‘মেয়র থাকাকালে এলাকাবাসীর সমস্যা সমাধানে সব সময় নিয়োজিত ছিলাম। ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। এবার এলাকাবাসী আমাকেই বেছে নেবেন বলে বিশ্বাস রাখি।’

পৌরসভার ৪ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা আবুল কালাম আজাদ, ১ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা শামীম হাসানসহ বেশ কয়েকজন ভোটারের সঙ্গে কথা হয় এ প্রতিবেদকের। তারা জানান, এলাকার উন্নয়নে যিনি কাজ করবেন, বিপদ-আপদে মানুষের পাশে থাকবেন, তাকে ভোট দেবেন চাটমোহরবাসী। কথা নয়, কাজে বিশ্বাসী, এমন প্রার্থীকে নির্বাচিত করবেন তারা।

উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও সাবেক সংসদ সদস‌্য কে এম আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, ‘দল যাকে মনোনয়ন দেবে, আমরা তার পক্ষে কাজ করব। কে মনোনয়ন পাবেন, তা দল নির্ধারণ করবে। যদি সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনী পরিবেশ থাকে, তাহলে বিএনপির প্রার্থী বিপুল ভোটে জয়লাভ করবে বলে বিশ্বাস করি।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মাহবুব এলাহী বিশু বলেন, ‘আমাদের এখান থেকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা জেলা হয়ে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের দপ্তরে পাঠানো হবে। সেখান থেকে যাকে মনোনয়ন দেওয়া হবে, তাকে জয়ী করতে আমরা কাজ করব। বর্তমান সরকার যেভাবে বিভিন্ন উন্নয়নকাজ করছে, তার ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সাধারণ মানুষ নৌকাতেই ভরসা রাখবে বলে মনে করি।’ 

শাহীন/রফিক

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়