RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৩ জানুয়ারি ২০২১ ||  মাঘ ৯ ১৪২৭ ||  ০৭ জমাদিউস সানি ১৪৪২

১২ দিনের সন্তান রেখে গৃহবধূর আত্মহত্যা

পাবনা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২২:৪১, ১ ডিসেম্বর ২০২০  
১২ দিনের সন্তান রেখে গৃহবধূর আত্মহত্যা

সাত মাস আগে গর্ভাবস্তায় বাবার বাড়িতে রেখে যান স্বামী। ১২ দিন আগে একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তান প্রসব করেন খাদিজা খাতুন (২৩)। তবে স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন খবর না নেওয়ায় অভিমানে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) পাবনার চাটমোহর উপজেলার পার্শ্বডাঙ্গা গ্রামে এ দুপুরে ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের আবু বক্করের মেয়ে।

চাটমোহর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সজীব শাহনীর এ তথ‌্য নিশ্চিত করেছেন।

খাদিজা খাতুনের স্বজনরা জানান, প্রায় আড়াই বছর আগে পার্শ্ববতী আটঘরিয়ার উপজেলার সুজাপুর গ্রামের সুলতান মাহমুদের সঙ্গে বিয়ে হয় খাদিজার। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে পারিবারিক বিষয় নিয়ে ঝামেলা শুরু হয় তাদের। এর মধ্যে খাদিজা গর্ভবতী হলে তাকে পার্শ্বডাঙ্গা গ্রামে বাবার বাড়িতে রেখে যান স্বামী সুলতান মাহমুদ। এরপর থেকে স্ত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় স্বামীসহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

১২ দিন আগে খাদিজা খাতুন একটি কন্যা সন্তান জন্ম দেন। সন্তান জন্মদানের খবর স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনকে জানানোর জন্য যোগাযোগ করেও ব্যর্থ হন খাদিজা। এ নিয়ে মনোকষ্টে ভুগছিলেন তিনি।

মঙ্গলবার সবার অগোচরে সদ্যজাত সন্তানকে বিছানায় শুইয়ে রেখে ঘরের ডাবের সঙ্গে শাড়ি পেঁচিয়ে ফাঁস নেন তিনি। পরে স্বজনরা টের পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে খাদিজার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে।

চাটমোহর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সজীব শাহনীর বলেন, ‘স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজনের ওপর অভিমান করে ১২ দিনের বাচ্চা রেখে আত্মহত্যা করেছেন খাদিজা খাতুন। বিষয়টি খুবই মর্মান্তিক। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা দায়ের হয়েছে।’

এদিকে এ ব‌্যাপারে কথা বলার চেষ্টা করা হয়। তবে খাদিজার স্বামী বা শ্বশুর বাড়ির কাউকে ফোনে পাওয়া যায়নি।

শাহীন রহমান/সনি

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়