Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ০৫ মার্চ ২০২১ ||  ফাল্গুন ২০ ১৪২৭ ||  ১৯ রজব ১৪৪২

বান্দরবানে পর্যটকদের ভিড় 

এস বাসু দাশ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৩২, ২১ জানুয়ারি ২০২১   আপডেট: ০৮:৩৫, ২১ জানুয়ারি ২০২১
বান্দরবানে পর্যটকদের ভিড় 

সবুজের চাদরে ঢাকা প্রকৃতি। সারি সারি সবুজ পাহাড়ের ওপর দিয়ে মেঘেদের ভেসে চলা। এমন অপরূপ দৃশ‌্য দেখার সুযোগ মিলবে বান্দরবানে।

প্রকৃতি তার অপার রূপ দিয়ে সাজিয়েছে বান্দরবানকে। আর এই অপরূপ প্রকৃতির সান্নিধ্য পেতে শীত মৌসুমে হাজারও পর্যটকের আনাগোনায় মুখরিত হয়ে উঠেছে এ শহর। শহরের বেশিরভাগ হোটেল-মোটেলেই এখন আর কোনো সিট খালি নেই। করোনা পরিস্থিতিতে পর্যটকের আগমনে মন্দা কাটিয়ে পর্যটন ব্যবসা আবারও চাঙা হয়ে উঠেছে।

প্রতি বছর শীত মৌসুমে হাজারও পর্যটকের ভিড় লেগে থাকে বান্দরবানে। এর ব্যতিক্রম হয়নি এবারও। 

বান্দরবানের নীলোচলে বসবাসরত চন্দন দাশ বলেন, ‘গত কয়েকদিনে নীলাচল পর্যটনে অনেক বেশি পর্যটক আসছেন।’

নীলগিরি, প্রান্তিক লেক, শৈলপ্রপাত, মেঘলা, নীলাচল, নীল দীগন্ত, স্বর্ণমন্দির, রুমা উপজেলার বগালেক, কেউক্রাডং, থানচির রেমাক্রি, নাফাখুম, বড়পাথর দেখার জন্য দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে পর্যটক আসছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

বান্দরবান হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় শতাধিক হোটেল-মোটেল আগে ফাঁকা থাকলেও এখন পর্যটন ব্যবসা জমে উঠেছে। আগামী ১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অবস্থা এমন থাকবে বলে প্রত‌্যাশা সংশ্লিষ্টদের।

বান্দরবান হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও পর্যটকদের উপস্থিতি দিন দিন বাড়ছে।’

বান্দরবান সদর এবং রুমা উপজেলায় পর্যটকদের ভ্রমণের জন্য ২৫০টি চাঁদের গাড়ি ও জিপ গাড়ি এবং থানচির রেমাক্রি, ছোট মদক ও নাফাখুম বেড়ানোর জন্য অর্ধ শতাধিক বোট ব্যবহার করেন পর্যটকরা। এখন পর্যটক আসার কারণে ব্যস্ত সময় পার করছেন পর্যটকবাহী গাড়ি ও বোট চালকরা। পর্যটক আসার কারণে শুধু শহরের হোটেল-মোটেল নয়, পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ব্যবসায় এখন চাঙা।

বান্দরবান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘পর্যটকদের আগমনের কথা মাথায় রেখে নিরাপত্তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

বান্দরবান/ইভা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়