Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৮ ||  ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

চাঁদপুরে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ১

চাঁদপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৩:০৬, ২ মে ২০২১   আপডেট: ১৩:২১, ২ মে ২০২১
চাঁদপুরে গৃহকর্মীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার ১

চাঁদপুর পৌর ১৩নং ওয়ার্ডে বাসার কাজের মেয়েকে ধর্ষণ ও নির্যাতনের মামলায় ১ আসামিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত ওই আসামির নাম শাহনাজ বেগম (৪৫)। এছাড়াও মামলার পলাতক আসামিরা হচ্ছেন গ্রেফতারকৃত আসামী শাহনাজ বেগম এর স্বামী আব্দুল মাজেদ (৫৪) এবং ছেলে আমজাদ মাহমুদ নিলয় (২১)।

ঘটনা প্রসঙ্গে পুলিশ জানায়, আব্দুল মাজেদ ও শাহানাজ বেগম দম্পতি চাঁদপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এ কর্মরত। তাদের উভয়ের বাড়ি ভোলা জেলার দৌলতখান উপজেলার চরশফী গ্রামে। তারা চাঁদপুর সদর থানাধীন ওয়ারলেস সিরাজ বরকান্দাজ এর বাসায় ভাড়াটিয়া হিসাবে বসবাস করে আসছে।

পুলিশ আরও জানায়, এই দম্পতি তাদের বাসায় তাদের ভোলা চরশফী এলাকার মোসা. তানিয়া আক্তার হাসনাকে (২৪) দীর্ঘ ৪ বছর যাবৎ কাজের মেয়ে হিসেবে কাজ করিয়ে আসছিল। হাসনা চরশফী গ্রামের মানসিক রোগী মাহবুব আলমের কন্যা (যার মা অন্যত্র বিবাহ করে চলে যায়)। ৪ বছর যাবৎ তানিয়া আক্তার হাসনাকে দিয়ে বাসার কাজ করিয়ে আসলেও ওই দম্পতি তাকে কোন টাকা পয়সা পরিশোধ করেনি।

বরং ওই দম্পতি অফিসে চলে গেলে তাদের বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া ছেলে আমজাদ মাহমুদ নিলয় তানিয়া আক্তার হাসনাকে ১ বছর যাবৎ বাসার মধ্যে একা পেয়ে ধর্ষণ করে আসছিল। তানিয়া আক্তার বিষয়টি আব্দুল মাজেদ দম্পতিকে বারবার অবহিত করলেও তারা বিষয়টি কর্ণপাত না করে উল্টো তানিয়া আক্তার হাসনাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনসহ বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে চুপ থাকতে বাধ্য করতো। 

পুলিশ সূত্র আরও জানায়, সর্বশেষ গত ১৪ এপ্রিল দুপুর আনুমানিক ১২টার সময় আব্দুল মাজেদ দম্পতি অফিসে চলে গেলে এই সুযোগে তাদের পুত্র আমজাদ মাহমুদ নিলয় তানিয়া আক্তার হাসনাকে ধর্ষণ করে। যদিও তানিয়া আক্তার হাসনা সর্বশেষ ঘটনার বিষয়টি আব্দুল মাজেদ দম্পতিকে জানিয়ে প্রতিকার চেয়েছিল। কিন্তু শাহনাজ বেগম ও তার ছেলে আমজাদ মাহমুদ নিলয় উল্টো তানিয়াকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেছে।

পরে তানিয়া আক্তার হাসনা তাদের দীর্ঘ দিনের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গত ৩০ এপ্রিল আত্মহত্যার উদ্দেশ্যে আব্দুল মাজেদ দম্পতির বাসা থেকে রাস্তায় বের হয়। পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা সম্পর্কে অবগত হয় এবং তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে।

১ মে শনিবার রাতে রাইজিংবিডিকে এসব বিষয় নিশ্চিত করেন চাঁদপুর জেলা পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ। তিনি জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে ভিকটিমকে উদ্ধার করে তার কাছ থেকে ঘটনার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে পারি। পরে ঐ দিনই শাহনাজ বেগমকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়। এই সংক্রান্ত বিষয়ে ভিকটিমের আবেদনের প্রেক্ষিতে তাদের বিরুদ্ধে মামলা নেওয়া হয়েছে। মামলার অন্য আসামি আব্দুল মাজেদ এবং আমজাদ মাহমুদ নিলয়কে গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

জয়/আমিনুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়