Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ মে ২০২১ ||  চৈত্র ৩১ ১৪২৮ ||  ০১ শাওয়াল ১৪৪২

বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে নিয়মনীতির বালাই নেই

মাদারীপুর প্রনিতিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৩৬, ৪ মে ২০২১   আপডেট: ১২:৩৮, ৪ মে ২০২১
বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে নিয়মনীতির বালাই নেই

কোনো নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই দীর্ঘদিন থেকে মাদারীপুরের বাংলাবাজার ও মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌরুটে স্পিডবোট চলাচল করছে। এতে করে নানাভাবে জানমালের ক্ষয়ক্ষতির অভিযোগ অনেক আগে থেকেই। কিন্তু পথের অভিযোগ পথেই আছড়ে পড়েছে। কানেও তোলেননি দায়িত্বশীল কেউ।

সোমবার (৩ মে) ভোর ৬টায় স্পিডবোট ডুবি সে অনিয়ম চলে আসারই করুণ পরিনতি। এইদিন মাদারীপুরের শিবচরে বাল্কহেডকে ধাক্কা দিয়ে স্পিডবোট ডুবে ২৬ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। এই ঘটনায় বোটের মালিক-চালকসহ চারজনের নামে মামলা হয়েছে।

স্থানীয়দের অনেকেই বলছেন, এ রুটে প্রতিদিনই অবৈধভাবে প্রচুর স্পিডবোট চলাচল করছে। যা প্রশাসনের জ্ঞাতসারেই চলছে। হয়তো এ মুহূর্তে পরিস্খিতির কারণে কয়েকদিন চলাচল বন্ধ থাকবে। পরিস্খিতি স্বাভাবিক হয়ে এলেই আবার সরব হয়ে উঠবে এসব বোট।

জানা গেছে, এই রুটে স্পিডবোট চলাচলের কোন বৈধ অনুমোদন না থাকলেও দীর্ঘদিন থেকে অবৈধভাবে দুর্ঘটনাকবলিত স্পিডবোটটি চলছিলো। ফলে আজ এতোগুলো জীবনের বলি হলো।

সরেজমিন জানা গেছে, এ রুটে চলাচলরত ছোট একটি স্পিডবোটে ধারণ ক্ষমতা ১০ জনের এবং বড় বোটে ধারণ ক্ষমতা ১৫ জনের। অথচ ছোট বোট প্রতিনিয়ত ১৫-১৮জন এবং বড় বোট ২৫-৩০জন করে যাত্রীবহন করছে।

শিমুলিয়ার নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী পরিচালক শাহাদাত হোসেন সোমবার বিকেলে জানান, এই রুটে স্পিডবোট চলাচলের কোন বৈধ অনুমতি নেই। তবুও চলাচল করছে। এখানকার ৭৫ ভাগ স্পিডবোটের নিবন্ধন নেই। যেই স্পিডবোট দুর্ঘটনা ঘটিয়েছে সেই স্পিডবোটটিরও কোনো নিবন্ধন ছিল না। এর চালকের ছিল না দক্ষতার সার্টিফিকেট।

তিনি বলেন, অনেক বিষয়ই আছে যা প্রকাশ্যে বলা যায় না।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল,পিপিএম (বার) বলেন, মূলত এখানে স্পিডবোটে চলাচলের বৈধতা নেই। স্থানীয়ভাবে চলাচলের মৌখিক অনুমতি নিয়ে এই রুটে চলছিলো। তবে আগামীতে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নিবো।

মাওয়া নৌ পুলিশের ওসি আব্দুর রাজ্জাক বলেন, এই ধরনের নৌযান চলাচল করবে কিনা সেই সিদ্ধান্ত নেয় বিআইডব্লিউটিএ। আমরা শুধু আইনশৃঙ্খলার বিষয় দেখা শোনা করি।

বিআইডব্লিউটিএর ট্রাফিক ইনস্পেক্টর আকতার হোসেন বলেন, করোনাকারীন সময় স্পিডবোট বন্ধ থাকার কথা। কেনো এগুলো চলছে সেটা দেখাশোনা করবে নৌপুলিশ।

বেলাল রিজভী/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়