Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শুক্রবার   ৩০ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ১৫ ১৪২৮ ||  ১৮ জিলহজ ১৪৪২

করোনা: সাতক্ষীরায় চিকিৎসক সংকট, প্রস্তুত হচ্ছে আরও ১০০ বেড 

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৩১, ১৪ জুন ২০২১   আপডেট: ১৭:৩৪, ১৪ জুন ২০২১
করোনা: সাতক্ষীরায় চিকিৎসক সংকট, প্রস্তুত হচ্ছে আরও ১০০ বেড 

সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে নতুন করে আর করোনায় আক্রান্ত রোগী ভর্তি করা হবে না। এর পরিবর্তে সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসার্থে নতুন করে ১০০ বেড স্থাপন করা হবে। জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটির ভার্চুয়াল সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

জেলায় সোমবার (১৪ জুন) তৃতীয় দিনের মতো লকডাউন চলছে। তবে কিছুতেই কমছে না করোনা সংক্রমণ। হাসপাতালে নার্স সংকট কিছুটা কমলেও চিকিৎসক সংকট প্রকট হয়ে উঠেছে। দিন দিন করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ভর্তি রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।   

সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ডা. মানষ কুমার মন্ডল বলেন, সর্বশেষ ২৪ ঘন্টায় সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের দুইজনের করোনা পজিটিভ এবং দুইজনের করোনা উপসর্গ ছিলো। এরা হলেন, সদর উপজেলার ফিংড়ি ইউনিয়নের মৃত নারালীর ছেলে নজরুল ইসলাম (৭০), ধুলিহর ইউনিয়নের ভালুকা চাঁদপুর গ্রামের আব্দুর রহিম (৮৫), আশাশুনি উপজেলার শোভনালী ইউনিয়নের মৃত গফ্ফার গাজীর ছেলে মুক্তার আলী (৬৫) ও যশোর সাগরদাড়ি গ্রামের জনাব আলির ছেলে ইসমাইল হোসেন (৪৫)।

সদর হাসপতালের আরএমও ডা. ফয়সাল আহমেদ বলেন, আব্দুর রহিম ও ইসমাইল হোসেন নামের দু'জন করোনা পজেটিভ অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের মরদেহ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে।

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন ডা. হুসাইন শাফায়েত বলেন, সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যে ধারণ ক্ষমতা আছে তার সাথে আরও ১০০ বেড প্রস্তুত করা হবে। এরপরও যদি প্রয়োজন হয় সেক্ষেত্রে আলোচনা সাপেক্ষে পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলে মিটিংএ সিদ্ধান্ত হয়েছে। বর্তমানে সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় ১৫০টি বেড রয়েছে।

সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডা. কুদরত-ই-খুদা জানান, অতিরিক্ত রোগির চাপে এবং মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে করোনার রোগি ভর্তি না নেওয়ায় তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্তে গত সপ্তাহ থেকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে করোনার রোগি ভর্তি করা হয়। ফলে পুরোপুরি প্রস্তুতি না থাকায় চিকিৎসাধীন রোগী ও রোগীর স্বজনরা বাইরে চলাফেরা করাসহ হাসপাতালের অন্যান্য ওয়ার্ডে ঘুরে বেড়ানোর কারণে অতিরিক্ত করোনা সংক্রমণের আশংকা দেখা দিয়েছে।

হাসপাতালের তত্বাবধায়ক বলেন, গত এক সপ্তাহ যাবত সাতক্ষীরায় করোনা সংক্রমনের হার ৫০ থেকে সর্বোচ্চ ৫৯ শতাংশ উঠানামা করছে। গত চব্বিশ ঘন্টায় সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পিসিআরল্যাবে ৯৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৪৪ জনের করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৪৭ দশমিক ৪১ শতাংশ।

তিনি আরও বলেন, জেলায় এই পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ২ হাজার ২৯৬ জন। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় দুই জন আক্রান্ত ও ৫ জন উপসর্গে মারা গেছেন। করোনায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন মোট ৫২ জন। আর উপসর্গ নিয়ে মারা গেছেন আরো অন্তত ২৪৮ জন।
 
এদিকে সাতক্ষীরা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের নার্সিং সুপারভাইজার অপর্ণা রাণী পাল জানান, জেলায় অস্বাভাবিক হারে করোনা রোগী বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে সীমিত জনবলে তাদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। এরই মধ্যে নার্স সংকট কিছুটা কমলেও চিকিৎসক সংকট আরো প্রকট হয়ে উঠেছে বলেও জানান তিনি। 

বিজিবি সাতক্ষীরা ৩৩ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মোহাম্মদ আল-মাহমুদ বলেন, সীমান্তবর্তী এলাকায় কঠোর নজরদারি করা হচ্ছে। যাতে ভারতে অবৈধভাবে কেউ যাতায়াত করতে না পারেন। করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট এর সংক্রমন প্রতিরোধে সীমান্তে বিজিবির অভিযান অব্যাহত রয়েছে। অবৈধভাবে চলাচলের কারণে গত চব্বিশ ঘন্টায় ৬ জনকে আটক করা হয়েছে।  

সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মাদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, দ্বিতীয় সপ্তাহের লকডাউনে গুরুত্বপূর্ণ মোড়গুলোতে নিরাপত্তা চৌকি বসিয়েছে প্রশাসন। জরুরি সেবা ব্যতিত সব দোকানপাট, মার্কেট ও শপিংমল বন্ধ রয়েছে। অযথা ঘোরাঘুরি করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও

জনসচেতনতামূলক প্রচার প্রচারণা ও মটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে পুলিশের পক্ষ থেকে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল জানান, গত চব্বিশ ঘন্টায় ভ্রাম্যমান আদালত ১১ টি অভিযান পরিচালনা করে ৫১ টি মামলায়  ১লাখ ৩৯ হাজার ৯শত টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। এছাড়াও লকডাউনের মধ্যে দোকানপাট খোলা রাখা, স্বাস্থ্যবিধি না মানাসহ বিভিন্ন অপরাধে জেলার বিভিন্ন স্থানে চলছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান।

শাহীন/মেয়া

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়