Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৪ ১৪২৮ ||  ০৯ সফর ১৪৪৩

পদ্মায় বাড়ছে পানি, আতঙ্কে ৬ এলাকার মানুষ 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সংবাদদাতা  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৫২, ২৬ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১২:৫৮, ২৬ জুলাই ২০২১
পদ্মায় বাড়ছে পানি, আতঙ্কে ৬ এলাকার মানুষ 

পদ্মায় বাড়ছে পানি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে পদ্মা নদীতে পানি বাড়ছে। পানি বাড়ায় শিবগঞ্জের ৬  এলাকার লোকজন ভাঙন আতঙ্কে রয়েছেন। সবচেয়ে বেশি হুমকিতে আছে বাদশাপাড়া নামের গ্রামটি। পদ্মা পাড়ের ১০ থেকে ১৪ পরিবার ওই স্থান থেকে সরে গিয়ে নিরাপদ দূরত্বে ঘর বেঁধেছে। 

সোমবার (২৬ জুলাই) দুপুরে পানি উন্নয়ন বোর্ড সত্রে জানা গেছে,  গত ২৪ ঘণ্টায় পদ্মা নদীতে দশমিক ৩ সেন্টিমিটার পানি বেড়েছে।

শিবগঞ্জের দুর্লভপুর ইউনিয়নের নামো জগন্নাথপুর এলাকার বাসিন্দা আব্দুল আওয়াল বলেন, এখন পদ্মা নদীতে পানি বাড়ছে। নদীতে পানি বাড়ার চেয়ে কমার সময় ভাঙন বেশি হয়। 

রামনাথপুর এলাকার বজলুর রশিদ জানান, প্রতিবছর নদী ভাঙন দেখতে সরকারি লোকজন আসে। কিন্তু গত ৪ বছরে পদ্মা নদীতে হাজার হাজার বিঘা জমি মিলিয়ে গেছে। কেউ তো ক্ষতিপূরণ দেয়নি। এই মুহূর্তে বাদশাহ পাড়া, পন্ডিত পাড়া, দোভাগী, মনোহরপুর, ঠুঠা পাড়া, রামনাথপুর সবচেয়ে বেশি হুমকিতে আছে।

সাইফুল নামে এক কৃষক বলেন, ‘আমার বাড়ি আগে ছিলো পণ্ডিত পাড়াতে, পদ্মা নদীতে ভাঙনের কারণে আমি দোগাভিতে পরের জমিতে ঘর করেছি। এখানেও ভাঙন ধরেছে। এতো বড় দুর্যোগেও কোনো সাহায্য সহযোগিতা পাইনি।’

বাদশাহ পাড়ার সাইদুল নামে একজন বলেন, ‘আমার যেটুক ভিটামাটি ছিলো, প্রায় সবটুক পদ্মায় নেমে গেছে। আমরা ৩ ভাই একসঙ্গে ছিলাম। পদ্মায় ভাঙনের কারণে সবাই নিজ তাগিদে সরে গেছে। জানি না আমরা আর একসঙ্গে বসবাস করতে পারবো কি না। কারণ প্রায় সব জমি নদীতে মিশে গেছে।’

তিনি জানান, ভাঙনের কারণে এখন পদ্মা পাড়ের ১০ থেকে ১৪ টি পরিবার নিরাপদ দুরত্বে চলে গেছে। পরের জায়গাতে গিয়ে বসবাস করছে।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপসহকারী প্রকৌশলৗ আবদুল্লাহ আল শরীফ জানান, পদ্মা নদীতে বিপৎসীমা ধরা হয়েছে ২২ দশমিক ৫০ সেন্টিমিটার। এখন পানি আছে ১৯ দশমিক ৫০ সেন্টিমিটার। একদিন আগে ওই নদীতে পানি ছিলো ১৯ দশমিক ৪৭ সেন্টিমিটার। গত ২৪ ঘণ্টায় পানি বেড়েছে দশমিক ৩ সেন্টিমিটার। 

তিনি আরও বলেন, ‘ঈদুল আজহার দুদিন আগে আমি ওই সব এলাকায় পরিদর্শন করেছি। ভাঙন কবলিত এলাকার কিছু কিছু পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ওই এলাকাটিতে ১২ কিলোমিটার জুড়ে স্পেশাল বাঁধ নির্মাণ করার প্রকল্প প্রক্রিয়াধীন আছে। আশা করছি, দ্রুত টেন্ডার পাস হবে।’

মেহেদী হাসান/ইভা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়