Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ ||  আশ্বিন ৪ ১৪২৮ ||  ০৯ সফর ১৪৪৩

মাটি ও মানুষের নেতা ছিলেন অধ্যাপক আলী আশরাফ 

আবদুর রহমান, কুমিল্লা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:০৮, ৩০ জুলাই ২০২১   আপডেট: ২০:১৭, ৩০ জুলাই ২০২১
মাটি ও মানুষের নেতা ছিলেন অধ্যাপক আলী আশরাফ 

বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী ছিলেন সাবেক ডেপুটি স্পিকার অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ এমপি। আলী আশরাফ ছিলেন স্বাধীনতাযুদ্ধের সংগঠক, তিনি ছিলেন বঙ্গবন্ধুর আদর্শের নিবেদিত কর্মী। জীবনের ৭৪ বছরের মধ্যে ৬০ বছরই তিনি সক্রিয় ছিলেন রাজনীতিতে। তার জীবনের সোনালি সময়গুলো ব্যয় করেছেন রাজনীতি ও দলের পেছনে। সারা জীবন কাজ করেছেন দল ও মানুষের কল্যাণে। এমনটাই বলেছেন কুমিল্লার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকেল পৌনে ৪টায় রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ। 

মো. আলী আশরাফ সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত কমিটির সভাপতির পদে ছিলেন। কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি বর্ষীয়ান এই নেতার মৃত্যুতে তার নির্বাচনী এলাকা চান্দিনাসহ কুমিল্লায় শোক নেমে আসে। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, চার মেয়ে, এক ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। 

দলীয় ও পরিবার সূত্র জানায়, ১৯৪৭ সালের ১৭ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করা মো. আলী আশরাফ চান্দিনার গল্লাই ইউনিয়নের গল্লাই মুন্সি বাড়ির মাওলানা মো. ইসমাইল হোসেন মুন্সি ও মোসা. শামছুন্নাহার বেগমের একমাত্র ছেলে। আলী আশরাফ ১৯৬২ সালে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজে অধ্যয়নরত অবস্থায় ছাত্রলীগে যোগ দিয়ে রাজনীতিতে পা রাখেন। পরে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিএ (অনার্স) এবং অর্থনীতিতে এমএ পাস করেন।

১৯৭০ এর পাকিস্তান সংসদ নির্বাচনে আলী আশরাফ স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে অংশ নেন। ওই নির্বাচনে বিজয়ী না হলেও ১৯৭৩ সালের সাধারণ নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে জাতীয় সংসদের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য নির্বাচিত হন। পরে আওয়ামী লীগ যতগুলো নির্বাচনে অংশ নিয়েছে, সব নির্বাচনে তিনি দলের প্রার্থী হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন। 

আরও পড়ুন: সংসদ সদস্য অধ্যাপক আলী আশরাফ আর নেই 

১৯৯৬, ২০০৮, ২০১৪ এবং সর্বশেষ ২০১৮ সালের একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয় আলী আশরাফ। ২০০০ সালে সপ্তম জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকারের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক ছিলেন। ১৯৯২ সালে কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ প্রতিষ্ঠা হলে সেই সময় সভাপতি নির্বাচিত হন আলী আশরাফ। মৃত্যুর মধ্য দিয়ে প্রায় ৬০ বছরের বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের ইতি টানলেন বর্ষীয়ান এই আওয়ামী লীগ নেতা। 

চান্দিনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা তপন বকশি বলেন, অধ্যাপক মো. আলী আশরাফ ছিলেন মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে ভালোবেসে ১৯৬২ সালে তিনি ছাত্রলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। বঙ্গবন্ধুর খুব কাছের কর্মী ছিলেন তিনি। স্বাধীনতা যুদ্ধের পর ১৯৭৩ সালে জাতীয় সংসদের সর্বকনিষ্ঠ সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় তিনি বঙ্গবন্ধুর আরও কাছে যাওয়ার সুযোগ পান। 

তপন বকশি আরও বলেন, আলী আশরাফ ছিলেন মাটি ও মানুষের নেতা। তিনি দলকে সংগঠিত করার জন্য জীবনের সোনালি সময়টা ব্যয় করেছেন। এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি তিনি শিক্ষার প্রসারে ভূমিকা রেখেছেন। তিনি ছিলেন একজন আদর্শবান নেতা ও প্রকৃত শিক্ষানুরাগী।

কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহাম্মদ রুহুল আমীন বলেন, আলী আশরাফ মাটি ও মানুষের জন্য রাজনীতি করেছেন। দলকে সুসংগঠিত করার জন্য কাজ করে গেছেন। উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতির দায়িত্ব পালন করে দলকে শক্তিশালী করেছেন। 

/বকুল/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়