ঢাকা     রোববার   ১৬ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ২ ১৪২৮ ||  ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিলে নৌকাডুবি, ২১ জনের লাশ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:৫১, ২৭ আগস্ট ২০২১   আপডেট: ০৩:২১, ২৮ আগস্ট ২০২১
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিলে নৌকাডুবি, ২১ জনের লাশ উদ্ধার

ফাইল ফটো

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিজয়নগর উপজেলায় বালু বোঝাই ট্রলারের ধাক্কায় শতাধিক যাত্রী নিয়ে নৌকা ডুবে গেছে। এতে নারী ও শিশুসহ ২১ জন মারা গেছেন। নিখোঁজ রয়েছেন অর্ধশতাধিক যাত্রী।

শুক্রবার (২৭ আগস্ট) সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে উপজেলার পত্তন ইউনিয়নের লইস্কা বিলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজ শুরু করে। আহতদের মধ্যে আটজনকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে আনা হয়েছে।

আহতরা হলেন, আইয়ূব মিয়া (৪০), ইব্রাহিম (১২), আহমদউল্লাহ (১৩), মুরাদ মিয়া (৩৫), তানজির (১০) ও ফারুক মিয়া (৪৫)।

খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক হায়াত-উদ-দৌলা খাঁন ও পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতালে তাদের দেখতে যান। রাত ১২টা পর্যন্ত ২১ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক।

নৌকার যাত্রী সদর উপজেলার সাদেকপুর ইউনিয়নের আঁখি আক্তার বলেন, ‘আমি, আমার স্বামী মুরাদ মিয়া, দুই ছেলে, শাশুড়ি, ভাসুরের তিন ছেলে বিজয়নগরের চম্পকনগর ঘাট থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আনন্দ বাজার ঘাটে যেতে নৌকায় উঠি। নৌকায় শতাধিক যাত্রী ছিলো। নৌকা পথিমধ্যে লইস্কা বিলে এসে বালু বোঝাই ট্রলারের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে পানিতে তলিয়ে যায়। আমি ও স্বামী একটি ছেলেকে নিয়ে সাঁতরে বিলের কিনারে আসতে পারলেও তার আরেক ছেলে, শাশুড়ি ও ভাসুরের তিন ছেলে নিখোঁজ রয়েছেন।’

হাসপাতালে আহত মুরাদ মিয়া বলেন, ‘হঠাৎ ট্রলারের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে নৌকা ডুবে যায়। তারপর অনেক কষ্টে এক ছেলে ও স্ত্রীকে নিয়ে সাঁতরে উপরে উঠতে পারি। আমার ছেলে, মা ও তিন ভাতিজা এখনও নিখোঁজ রয়েছে।’ 

নৌকায় থাকা যাত্রী মোহাম্মদ রাফি বলেন, ‘আমি নৌকার ছাদে বসেছিলাম। বিজয়নগরের চম্পকনগর নৌকাঘাট থেকে বিকেল সাড়ে ৪টায় নৌকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার আনন্দ বাজার ঘাটের উদ্দেশে ছেড়ে আসে। নৌকা লইস্কার বিলে আসলে বালু বোঝাই ট্রলারের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে ডুবে যায়। আমি ঝাঁপ দিয়ে পানিতে পড়ে সাঁতরে উপরে উঠি।’ রাফি আরও বলেন, নৌকার নিচে ও উপরের শতাধিক যাত্রী ছিলো।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনিসুর রহমান বলেন, পুলিশ উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছে। এখনও নৌকাটি উদ্ধার করা যায়নি। হতাহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানান পুলিশ সুপার। 

রুবেল/বকুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়