Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বুধবার   ২৭ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ১১ ১৪২৮ ||  ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

Risingbd Online Bangla News Portal

স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

নীলফামারী প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২১:২০, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১  
স্ত্রী হত্যা মামলায় স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

নীলফামারীতে যৌতুকের জন্য স্ত্রী সুমী আক্তারকে মারধর ও আগুনের ছ্যাকা দিয়ে হত্যার দায়ে স্বামী আলমগীর হোসেনকে (২৮) মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। এ ছাড়া আসামিকে ২০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে।

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার অপর ৬ আসামিকে খালাস দিয়েছেন আদালত।  রায় ঘোষণার সময় আসামিদের প্রত্যেকেই আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে নীলফামারীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল-২-এর বিচারক মো. মাহবুবুর রহমান এই রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতের সরকারি কৌশলী অ্যাডভোকেট রমেন্দ্র বর্ধন বাপী।

মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্ত আলমগীর হোসেন ডিমলা উপজেলার ঝুনাগাছ চাঁপানী ইউনিয়নের দক্ষিন সোনাখুলী গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৪ ডিসেম্বর প্রেম করে বিয়ে করেন ইজিবাইক চালক আলমগীর হোসেন এবং একই ইউনিয়নের উত্তর সোনাখুলী গ্রামের খতিবর রহমানের মেয়ে সুমী আক্তার। এর পরদিন উভয় পরিবার ঘটনাটি মিমাংসা করে পারিবারিক সিদ্ধান্তে আনুষ্ঠানিকভাবে পুনরায় তাদের বিয়ের আয়োজন করেন। ওই সময় সুমীর বাবা আলমগীরকে এক লাখ টাকা দেন।

বিয়ের দুই বছর পর আলমগীর ইজিবাইকের ব্যাটারি কেনার জন্য সুমির কাছে যৌতুক হিসেবে আরো ৫০ হাজার টাকা দাবি করেন। কিন্তু সুমী ও সুমীর বাবা টাকা দিতে অস্বীকার করেন। ক্ষিপ্ত হয়ে ২০১৬ সালের ৬ নবেম্বর রাতে ঘরের ভেতর সুমীকে দঁড়ি দিয়ে বেঁধে মারধর করেন আলমগীর। এতে ঘটনাস্থলেই সুমীর মৃত্যু হয়।

প্রথমে ঘটনাটি আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে আলমগীর ও তার পরিবার।  লাশের সুরতহালে সুমীর শরীরে আঘাতের চিহৃ পাওয়া যায়। ঘটনার পরদিন সুমীর বাবা বাদী হয়ে ডিমলা থানায় জামাই আলমগীর, আলমগীরের বাবা সিরাজুল ইসলাম, মা আনোয়ারা বেগম, ননদ শিল্পী বেগম, চাচা ওবায়দুর রহমান, বড় ভাই জিয়াউর রহমান ও চাচী রোকসানার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন।

অ্যাডভোকেট রমেন্দ্র বর্ধন বাপী বলেন, ঘটনার প্রায় পাঁচ বছরের মাথায় এই রায় ঘোষণা হলো।

আসামি পক্ষের আইনজীবী আল-বরকত হোসেন বলেন, ‘আমরা এই রায়ের বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল করবো।’

সিথুন/মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়