Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৩ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ৭ ১৪২৮ ||  ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

খুলনায় স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কার

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৪০, ১৪ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ০৮:৪১, ১৪ অক্টোবর ২০২১
খুলনায় স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কার

স্বেচ্ছাশ্রমে সড়ক সংস্কার করছেন এলাকাবাসী

দীর্ঘদিন সেবাদাতা সংস্থাগুলোর কাছে ধর্ণা দিয়েও খুলনা মহানগরীর সোনাডাঙ্গা বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন জনগুরুত্বপূর্ণ এম এ বারী লিঙ্ক রোড সংস্কার না হওয়ায় এবার নিজেরাই সংস্কারকাজ শুরু করেছেন স্থানীয় বাসিন্দা ও ভূক্তভোগী ব্যবসায়ীরা।

বুধবার (১৩ অক্টেবর) থেকে এ সড়কটির সংস্কারকাজ শুরু হয়। বৃহস্পতিবার (১৪ অক্টেবর) সকালেও এই সংস্কারকাজ চলমান রয়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দা ও ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী সূত্রে জানা গেছে, এম এ বারী লিঙ্ক রোড মহানগরীর একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক। এ পথ দিয়ে প্রতিনিয়ত বাস, ট্রাকসহ অসংখ্য যানবাহন প্রবেশ করে। এছাড়া সড়কের দু’ পাশে অন্তত তিনশ’ ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান রয়েছে। কিন্তু রোডটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হয়েছে। বাসস্ট্যান্ড থেকে জয়বাংলা মোড় পর্যন্ত প্রায় তিন কিলোমিটার সড়কটি খানাখন্দে ভরপুর। ছোট-বড় গর্ত, বালি, খানাখন্দে যেন নাভিশ্বাস পথচারি, এলাকাবাসী ও ব্যবসায়ীদের। এমনকি সড়কটিতে ভাঙ্গা ও খানাখন্দ থাকায় ক্রেতারাও সড়কটিতে প্রবেশ করতে চান না। এতে চরম ক্ষতির মুখে পড়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। অনেকে বিনিয়োগ করে সর্বশান্ত হয়ে ব্যবসা গুটিয়ে নিয়েছেন। একই সঙ্গে দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি মরণফাঁদে পরিণত হয়। বর্ষার কাদাপানি জমে গর্ত ও খানাখন্দ দিন দিন বড় হচ্ছিল। সামান্য বৃষ্টি হলেই রাস্তায় হাঁটু পর্যন্ত কাদা জমে। তখন যানবাহন তো দূরের কথা, হেঁটে চলাচলও বিপজ্জনক হয়ে পড়ে, যা প্রতিনিয়ত জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করছে।

এদিকে, বুধবার সকালে বাসস্ট্যান্ড থেকে ময়ুর ব্রিজ পর্যন্ত ৭৮০ মিটার সড়ক সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে। যা চলবে বৃহস্পতিবারও। এ দু’দিনে সড়কটিতে ইট-বালু, সরকি দিয়ে খানা-খন্দ ভরাট করে জনগণ ও যানবাহনের চলাচলের উপযোগী করা হবে। যাতে স্থানীয় বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীরা অন্তত কিছুদিন চলাচলের সুবিধা পান। পরবর্তীতে অবস্থায় অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন সংস্কার কার্যক্রমের প্রধান সমন্বয়ক নগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শেখ শাহাজালাল হোসেন সুজন।

ওই রোডের ব্যবসায়ী তাকবীর মটরস্ এর পরিচালক সুমন আহমেদ বলেন, বারবার ধর্ণা দিয়েও কর্তৃপক্ষ সড়কটি সংস্কারের কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করেননি। এতে আমাদের ব্যাপক আর্থিক ক্ষতি হয়েছে। ক্রেতা সাধারণ এই রোডে আসতে চান না। এবার নিজেদের সমস্যা দূরীকরণে ব্যবসায়ী ও স্থানীয় বাসিন্দারা এগিয়ে এসেছেন।

কামরুল এন্টারপ্রাইজের মালিক মো. কামরুজ্জামান বলেন, ‘এই রোড সংস্কারের অভাবে দীর্ঘদিন ধরে দুর্ভোগের শিকার হচ্ছি। ক্রেতারা এই রোডে না আসায় ক্ষতির সম্মুখীন হয়ে এরই মধ্যে একটি দোকান ছেড়ে দিছি। কেসিসি-কেডিএকে জানিয়েও কোনো কাজ না হওয়ায় ব্যবসায়ীরা সড়কটি সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছেন।’

প্রসঙ্গত, সোনাডাঙ্গা বাস টার্মিনাল সংলগ্ন বাইপাস সংযোগ সড়ক নির্মাণ কাজ শেষ হয় ২০১৩ সালের ৩০ জুন। কাজ শেষ হওয়ার কিছু দিন পর খুলনা সিটি করপোরেশন ও এলজিইডিকে সড়কটি হস্তান্তর করে কেডিএ (খুলনা উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ)। সড়কটির মহানগর অংশ রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব খুলনা সিটি করপোরেশনের (কেসিসি) এবং বাকি অংশ এলজিইডির। কিন্তু কাজটি নিম্নমানের হয়েছে দাবি করে প্রথম থেকেই রক্ষণাবেক্ষণে আপত্তি জানায় কেসিসি। সেই থেকে কেসিসি-কেডিএ সমন্বয়হীনতার কারণে সড়কটি সংস্কারের অভাবে পড়ে আছে।

খুলনা/নূরুজ্জামান/বুলাকী

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়