Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ০৪ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২০ ১৪২৮ ||  ২৭ রবিউস সানি ১৪৪৩

ইলিশ শিকারে সমুদ্রে যেতে প্রাণচঞ্চল চট্টগ্রাম ফিশারি ঘাট

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:০৯, ২৫ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৫:১৩, ২৫ অক্টোবর ২০২১
ইলিশ শিকারে সমুদ্রে যেতে প্রাণচঞ্চল চট্টগ্রাম ফিশারি ঘাট

ইলিশ শিকারের ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে আজ সোমবার মধ্যরাত থেকে। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ইলিশ মাছ শিকার করতে সমুদ্রে যেতে প্রস্তুতি নিচ্ছে চট্টগ্রামের প্রায় ৪ হাজারেরও বেশি জেলে।

জেলেরা তাদের জাল, মাছ ধরার বিভিন্ন উপকরণ এবং কয়েকদিন সমুদ্রে থাকতে পারার মতো খাবার-দাবার ও পানি ইত্যাদি ফিশিং ট্রলারে ভর্তি করে নিচ্ছে। মধ্যরাতের পর শতাধিক ট্রলার ইলিশ শিকারে সমুদ্রে গমন করবে বলে জেলেদের সূত্রে জানা গেছে।

সোমবার (২৫ অক্টোবর) সকালে সরেজমিন চট্টগ্রামের ফিশারি ঘাটে গিয়ে দেখা যায়, ইলিশ শিকারে ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষ হওয়ায় জেলেদের মধ্যে নতুন করে প্রাণ চাঞ্চল্য ফিরেছে। তবে ইলিশ ছাড়া এতোদিন অন্যান্য মাছ শিকার অব্যাহত থাকায় সব সময়ই ব্যস্ত থাকে চট্টগ্রাম ফিশারি ঘাট। তবে চাহিদা ও দামের কারণে জেলেদের সবচেয়ে বেশি আগ্রহ ইলিশ মাছে, এর ফলে জেলেরা রূপালী ইলিশ শিকারে তৎপর বেশি।

চট্টগ্রামের ফিশারি ঘাটে একটি ফিশিং বোটের জেলে খলিলুর রহমান রাইজিংবিডিকে জানান, ইলিশের প্রজনন মৌসুম হওয়ায় গত ২২ দিন সমুদ্রে ইলিশ শিকার নিষিদ্ধ ছিলো। আজ মধ্যরাত থেকে সেই নিষেধাজ্ঞা শেষ হচ্ছে। ফলে আমরা সমুদ্রে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছি। আজ সারাদিন ট্রলারে জালসহ অন্যান্য সামগ্রী লোড করে মধ্যরাতের পর সমুদ্রে রওনা দিবো।

অপর একটি ট্রলারের জেলে আবুল কালাম রাইজিংবিডিকে জানান, সমুদ্রে ৫ থেকে ৭ দিন অবস্থান করে ইলিশ শিকার করার প্রস্তুতি নিয়ে আমরা রাতে রওনা দিবো। আগামীকাল থেকে আবার পুরোদমে ইলিশ মাছ ধরতে কোনো বাধা থাকছে না। সমুদ্রে অনেক বেশি ইলিশ মাছ পাওয়া যাবে সেই আশা নিয়েই সমুদ্রে গমন করবেন বলে জানান এই জেলে।

এদিকে, ফিশারি ঘাটে মাছের আড়তদার ফজলুর রহমান জানান, গত ২২ দিন ইলিশ শিকার বন্ধ থাকলেও অন্যান্য মাছের শিকার স্বাভাবিক ছিলো ফলে। সব সময়ই ফিশারিঘাটে প্রাণ চাঞ্চল্য ছিলো। তবে মধ্যরাত থেকে ইলিশ শিকারের উপর নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় জেলে ও ফিশিং ট্রলার মালিকদের মধ্যে নতুন করে প্রাণচাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

কিন্তু ২২ দিন বন্ধ থাকলেও অবৈধ পন্থায় ইলিশ শিকার চলছিলো চট্টগ্রাম অঞ্চলে।গত শনিবার চট্টগ্রামের হালিশহর এলাকার একটি বাড়ি থেকে প্রায় ১১ হাজার কেজি ইলিশ মাছ জব্দ করে র‌্যাব-৭ এর একটি আভিযানিক দল। র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) নুরুল আবছার জানিয়েছেন সরকার ঘোষিত নিষিদ্ধ সময়ে এসব ইলিশ মাছ শিকার করে সংরক্ষন করা হয় বেশি দামে বিক্রির জন্য। উদ্ধারকৃত ইলিশ মাছের মুল্য প্রায় কোটি টাকা। এই ঘটনায় সাইফুল ইসলাম নামের এক ব্যাক্তিকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

উল্লেখ্য, ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে গত ৪ অক্টোবর থেকে ২৫ অক্টোবর মধ্যরাত পর্যন্ত সারা দেশে ইলিশ মাছ আহরণ, পরিবহণ, মজুত, বাজারজাতকরণ, ক্রয়-বিক্রয় ও বিনিময় নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।

চট্টগ্রাম/রেজাউল/বুলাকী

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়