Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ৩০ নভেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ১৬ ১৪২৮ ||  ২৩ রবিউস সানি ১৪৪৩

বহদ্দার হাট ফ্লাইওভারের ফাটল নিয়ে যা বললেন বিশেষজ্ঞরা

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:২০, ২৭ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৫:২১, ২৭ অক্টোবর ২০২১
বহদ্দার হাট ফ্লাইওভারের ফাটল নিয়ে যা বললেন বিশেষজ্ঞরা

চট্টগ্রামের বহুল আলোচিত বহদ্দারহাট ফ্লাইওভারের দুর্ভাগ্য যেনো পিছু ছাড়ছেই না। এই ফ্লাইওভারটি নির্মাণকালে উপর থেকে গার্ডার ধসে প্রাণ হারিয়েছিলেন নিরীহ ১৩ জন। একই দুর্ঘটনায় পঙ্গুত্ব বরণ করেছেন আহত আরও কয়েকজন। 
এরপরও নানা আলোচনা সমালোচনায় ফ্লাইওভারটি নির্মিত হলেও নতুন করে এই ফ্লাইওভারের একটি র‌্যাম্পের পিলারে ফাটল দেখা দিয়েছে। এতে দুই দিন ধরে ওই র‌্যাম্পের মাধ্যমে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে। তবে ফ্লাইওভারের প্রকল্প বাস্তবায়নকারী চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ বলছে, এই ফাটল বড় কিছু নয়।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী প্রকৌশলী ও ফ্লাইওভার প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান জানান, এটি বড় কোনো ফাটল নয়। এর পরও ফ্লাইওভারটি নির্মাণের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞদের চিঠি দেওয়া হয়েছে। তারা পরীক্ষা নিরিক্ষা করে দেখবেন সব কিছু। তারপর তাদের রিপোর্টের ভিত্তিতে র‌্যাম্পটি যানবাহন চলাচলের জন্য খূলে দেওয়া হবে। প্রকল্প পরিচালক জানান, যে পিলারে ফাটল দেখা দিয়েছে এটি মুল ফ্লাইওভারের সঙ্গে সংযুক্ত নয়। এই ফাটলে বড় কোনো সমস্যা হবে না।

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী জানান, ফ্লাইওভারটি বর্তমানে সিটি করপোরেশনের নিয়ন্ত্রণাধীন হলেও এই প্রকল্প বাস্তবায়নকারী সংস্থা চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ। পিলারে ফাটল দেখা দেওয়ার পর এ ব্যাপারে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে দাপ্তরিকভাবেই চিঠি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি র‌্যাম্পে যানবাহন চলাচল বন্ধ করার উদ্যোগ নিয়েছে চসিক। মেয়র জানান, জনস্বার্থে ফ্লাইওভারটির ত্রুটি সংশোধন করে পুনরায় যানবাহন চলাচলের উপযোগী করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সিডিএকেত অনুরোধ জানানো হয়েছে।

উল্লেখ‌্য, ২০১০ সালের ডিসেম্বর মাসে চট্টগ্রামের ব্যস্ততম মোড় বহদ্দার হাটের যানজট নিরসনে ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এর নামকরণ করা হয় এম এ মান্নান ফ্লাইওভার। ২০১৩ সালের ১২ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রী আনুষ্ঠানিকভাবে এটির উদ্বোধন করেন। ফ্লাইওভারটি নির্মাণে ব্যয় হয় ১০৬ কোটি টাকা। ফ্লাইওভারটি চালুর পর কাঙ্ক্ষিত যানজট নিরসন না হওয়ায় ২০১৬ সালে বহদ্দারহাট বাস টার্মিনাল অভিমুখী ওয়াই শেফ করে একটি অতিরিক্ত র‌্যাম্প যুক্ত করার কাজ শুরু হয়। ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে চালু হয় র‌্যাম্পটি। এর দৈর্ঘ্য ৩২৬ মিটার এবং ৭ দশমিক ৬ মিটার প্রশস্ত। র‌্যাম্পটি চালু হওয়ার পর বহদ্দারহাট মোড়ের যানজট নিরসন হলেও মাত্র ৪ বছরের মধ্যেই এই র‌্যাম্পটির একটি বড় পিলানে ফাটল দেখা দেয় গত সোমবার। এর পর পরই র‌্যাম্পটিতে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয় কর্তৃপক্ষ।

চট্টগ্রাম/রেজাউল/বুলাকী

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়