ঢাকা     সোমবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ১০ ১৪২৮ ||  ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নকলায় ৯ ইউপির মধ্যে আ.লীগ জিতেছে ৪টিতে 

শেরপুর সংবাদদাতা  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:০১, ২৯ নভেম্বর ২০২১  
নকলায় ৯ ইউপির মধ্যে আ.লীগ জিতেছে ৪টিতে 

শেরপুরের নকলা উপজেলায় ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বেশিরভাগ স্বতন্ত্র প্রার্থী চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন।

রিটানিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার ৯টি ইউনিয়নে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনিত চেয়ারম্যান প্রার্থীদের মধ্যে বেসরকারিভাবে বিজয়ী হয়েছে ৪টিতে, আর স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন ৫টি ইউনিয়নে।

বিজয়ীরা হলেন- গনপদ্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শামছুর রহমান নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬ হাজার ৮১১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আমীর হামজা মোটরসাইকেল প্রতীকে পেয়েছেন ৫ হাজার ৫৬৯ ভোট।

নকলা সদর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. আবু বকর ছিদ্দিক ফারুক মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে ৪ হাজার ৩২৩ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান চেয়ারম্যান নৌকা প্রতীকে মো. আনিসুর রহমান সোজা পেয়েছেন ৪ হাজার ৫৬ ভোট।

উরফা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মুহাম্মদ নুরে আলম (ভূট্টো) চশমা প্রতীকে ৬ হাজার ২১২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তার নিকটতম ও একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান চেয়ারম্যান মুহাম্মদ রেজাউল হক হীরা নৌকা প্রতীকে পেয়েছেন ৬ হাজার ৮২ ভোট।

গৌড়দ্বার ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান মো. শওকত হোসেন খান (মুকুল) নৌকা প্রতীক নিয়ে ২ হাজার ৫২৫ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন: তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মোবারক হোসেন চশমা প্রতীকে পেয়েছেন ১ হাজার ৯৯৫ ভোট।

বানেশ্বর্দী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. মাজহারুল আনোয়ার আনারস প্রতীক নিয়ে ৪ হাজার ৮১৪ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী খন্দকার জাকির হোসেন চশমা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ২ হাজার ৬১০ ভোট। আর নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আঞ্জুমান আরা বেগম  ২ হাজার ১৩০ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন। এ ইউনিয়নে কোনো কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সর্বোচ্চ ভোট পায়নি।

পাঠাকাটা ইউনিয়নে মো. আব্দুস ছালাম নৌকা প্রতীক নিয়ে ৬ হাজার ১৯১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. মোবারক হোসেন আনারস প্রতীকে পেয়েছেন ২ হাজার ৭৯৯ ভোট।

টালকী ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোজাফফর মহিউদ্দিন ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ৫ হাজার ৪৮৭ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আনারস প্রতীক নিয়ে মো. ছায়েদুল হক পেয়েছেন ১ হাজার ৭৩৪ ভোট। আর নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান বদরুজ্জামান ১ হাজার ২৭৬ ভোট পেয়ে তৃতীয় হয়েছেন। এ ইউনিয়নেও কোনো কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সর্বোচ্চ ভোট পায়নি। 

চর অষ্টধর ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা গোলাম রব্বানি নৌকা প্রতীক নিয়ে ৭ হাজার ৮৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তার নিকটতম ও একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহজাহান আনারস প্রতীকে ৪ হাজার ৮২৪ ভোট পেয়েছেন।

চন্দ্রকোনা ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. কামরুজ্জামান (গেন্দু) আনারস প্রতীক নিয়ে ৭ হাজার ৮৫১ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন; তার নিকটতম ও একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বর্তমান চেয়ারম্যান মো. সাজু সাইদ ছিদ্দিকী নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৬ হাজার ৪২৭ ভোট।

তারিকুল/বকুল 

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়