ঢাকা     বুধবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ৫ ১৪২৮ ||  ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি: বিএনপি নেতা জামাল কারাগারে

ঝালকাঠি প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:০৭, ৩০ নভেম্বর ২০২১  
প্রধানমন্ত্রীকে কটূক্তি: বিএনপি নেতা জামাল কারাগারে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে নিয়ে কটূক্তি করে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ায় ছাত্রলীগ নেতার দায়ের করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম জামালকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। 

ঝালকাঠি জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম জামাল উচ্চ আদালতের নির্দেশে মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজিরা দিলে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়।  

আসামিপক্ষের আইনজীবী ও জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ফয়সাল খান ও জেলা বিএনপির সদস্য অ্যাডভোকেট মিজানুর রহমান মুবিন জানান, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় গত ২১ আগস্ট রাতে বিদেশ থেকে দেশে ফেরার সময় হয়রত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রফিকুল ইসলাম জামালকে গ্রেপ্তার করে ২২ আগস্ট আদালতে সোপর্দ করে রাজাপুর থানা পুলিশ। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে ঝালকাঠি কারাগার থেকে মুক্তি পান জামাল। উচ্চ আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল জামিনের বিরুদ্ধে আপিল বিভাগে আবেদন করেন। উচ্চ আদালত আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে নিন্ম আদালতে হাজির হওয়ার নির্দেশনা জারি করে। আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে মঙ্গলবার দুপুরে জামাল আদালতে হাজির হন। 

ঝালকাঠি কোর্ট পরিদর্শক আবদুস সত্তার বলেন, জামাল দুপুরে আদালতে হাজির হলে বিএনপিপন্থি আইনজীবীরা তার জামিনের আবেদন করে শুনানিতে অংশ নেন। বিচারক শেখ আনিসুজ্জামান তার জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

রফিকুল ইসলাম জামাল জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ঝালকাঠি-১ (রাজাপুর-কাঠালিয়া) আসনের বিএনপির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন।

রফিকুল ইসলাম জামাল গত ৪ জুলাই রাত ১০টা ৩১ মিনিটে ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ বাংলাদেশের বিশিষ্ট রাজনীতিকদের জড়িয়ে পোস্ট দেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ৮ জুলাই রাজাপুর থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করেন রাজাপুর শহর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাব্বির খান। এ পোস্টটি বিভ্রান্তি ছড়ানোর জন্য মিথ্যা ও মানহানিকর তথ্য প্রচার করার শামিল বলে মামলায় উল্লেখ করেন বাদী সাব্বির খান।
 

অলোক/বকুল

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়