ঢাকা     সোমবার   ২৪ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ১০ ১৪২৮ ||  ২০ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

যুবলীগ নেতার হাতে আ.লীগ নেতা লাঞ্ছিত

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৮:৫৮, ৪ ডিসেম্বর ২০২১   আপডেট: ১৯:৩২, ৪ ডিসেম্বর ২০২১
যুবলীগ নেতার হাতে আ.লীগ নেতা লাঞ্ছিত

স্বতন্ত্র প্রার্থীদের প্রতিবাদ

লক্ষ্মীপুরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন কেন্দ্র করে যুবলীগ নেতার হাতে লাঞ্ছিত হয়েছেন প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা ও স্বতন্ত্র ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী। এ সময় তাকে মেরে ফেলারও হুমকি দিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে ওই যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে। 

শুক্রবার (৩ নভেম্বর) রাতে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নের ওয়াপদা অফিস নামক স্থানে ওই ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক রাসেলের হাতে লাঞ্ছিত হন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল হালিম মাস্টার। 

এ ঘটনায় রাতেই সদর থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন তিনি। এছাড়াও ঘটনার প্রতিবাদে রাতে আওয়ামী লীগের সাবেক নেতারা এবং ওই ইউনিয়ন পরিষদের ৫ জন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী এক হয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। 

ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন থেকে নৌকা প্রতীকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল খালেক বাদলকে। যুবলীগ নেতা রাসেল তার সমর্থক। 

স্থানীয় লোকজন ও অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন থেকে স্বতন্ত্র হিসেবে প্রার্থী হন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল হালিম মাস্টার। দল থেকে নৌকা প্রতীক না পেয়ে তিনি বিদ্রোহী হিসেবে প্রার্থী হয়েছেন।  

শুক্রবার (৩ নভেম্বর) রাতে তিনি ইউনিয়নের ওয়াপদা অফিস সংলগ্ন এলাকায় লোকজনের সঙ্গে কুশল বিনিময় করছিলেন। এ সময় যুবলীগ নেতা রাসেল দলবল নিয়ে সেখানে গিয়ে হালিম মাস্টারকে নির্বাচন থেকে সরে যেতে হুমকি দেন। এক পর্যায়ে জনসম্মুখে তাকে লাঞ্ছিত করেন এবং মেরে ফেলারও হুমকি দেন। এ ঘটনার প্রতিবাদে রাতেই স্থানীয় পিয়ারাপুর বিদ্যালয় মাঠে প্রতিবাদ সমাবেশ করেন ইউনিয়নের সকল স্বতন্ত্র প্রার্থী।  

তারা হলেন, হুমকির শিকার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি আবদুল হালিম মাস্টার, ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান ডালি, মামুনুর রশিদ ভূঁইয়া, সাবেক সহ-সভাপতি মোক্তার হোসেন, ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান সাইফুল হাসান রনি। 

এ সময় তারা প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যার হুমকির ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান। 

তারা বলেন, ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নে যোগ্য ব্যক্তিকে নৌকার মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। এলাকায় যার জনসমর্থন নেই, তাকে নৌকা প্রতীক দেওয়া হয়েছে। ফলে ত্যাগী নেতারা স্বতন্ত্র হিসেবে প্রার্থী হয়েছেন। এখন নির্বাচনি মাঠ থেকে সরিয়ে দিতে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। 

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি রাসেল বলেন, ‘হালিম মাস্টার নৌকার বিরুদ্ধে বক্তব্য দিচ্ছেন। টাকার বিনিময়ে নাকি নৌকা প্রতীক দেওয়া হয়েছে। তাই তাকে এসব কথা না বলতে নিষেধ করি। লাঞ্ছিত বা মেরে ফেলার হুমকি সঠিক নয়।’  

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসীম উদ্দীন বলেন, ‘হুমকির বিষয়ে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ 
 

লিটন/বকুল 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়