ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৮ জানুয়ারি ২০২২ ||  মাঘ ৫ ১৪২৮ ||  ১৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

পরকীয়ার অভিযোগে প্রবাসীর স্ত্রীর গলায় জুতার মালা পরিয়ে নির্যাতন

বাগেরহাট প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০০:৫৪, ৯ ডিসেম্বর ২০২১   আপডেট: ০৯:৩৪, ৯ ডিসেম্বর ২০২১
পরকীয়ার অভিযোগে প্রবাসীর স্ত্রীর গলায় জুতার মালা পরিয়ে নির্যাতন

বাগেরহাটের মোল্লাহাটে অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে এক প্রবাসীর স্ত্রীর গলায় জুতার মালা পরিয়ে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে। মোল্লাহাট উপজেলার চুনখোলা ইউনিয়নের সিংগাতী গ্রামে  মঙ্গলবার (৭ ডিসেম্বর) সকালে এই ঘটনা ঘটে।

তবে বুধবার (০৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা নাগাত নির্যাতনের ভিডিওটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বিষয়টি সবার নজরে আসে। ঘটনার পর থেকে লোক লজ্জায় গা ঢাকা দিয়েছেন ওই নারী ও তার পরিবারের সদস্যরা।

এঘটনা শোনার পরে বুধবার দুপুরে মোল্লাহাট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আনিন্দ্য মণ্ডল ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুনিয়া আক্তার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তখন ওই নারীর সাক্ষাৎ পাননি এই কর্মকর্তাগণ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই নারীর এক প্রতিবেশী বলেন, ‘সকাল বেলা চুনখোলা ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য কাউছার চৌধুরীসহ বেশকিছু লোক এসে প্রবাসীর স্ত্রীর গলায় জুতার মালা পরিয়ে দেয়। তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। এক পর্যায়ে তারা মারধরও করে প্রবাসীর স্ত্রীকে। এসময় স্থানীয় কয়েকজন মুঠোফোনে এই নির্যাতনের ভিডিও ধারণ করে।’

এই বিষয়ে ওই নারীর সাথে কথা বলার চেষ্টা করা হলেও তার সন্ধান পাওয়া যায়নি।

ভিডিওতে তো আপনাকেই ওই নারীকে পেটাতে দেখা যায়, এমন প্রশ্নে ইউপি সদস্য কাউছার চৌধুরী বলেন, ‘ওই নারীর দীর্ঘদিন ধরে একাধিক মানুষের সাথে অবৈধ সম্পর্ক করে আসছিল। সোমবার রাতে তার প্রতিবেশী ও স্থানীয়রা এক লোকের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় হাতে-নাতে ধরে ফেলে ওই নারীকে। স্থানীয়দের খবরের ভিত্তিতে মঙ্গলবার সকালে আমি ওই এলাকায় যাই। এলাকাবাসীই ওই নারীকে পিটিয়েছে। আমি পিটাইনি। মোল্লাহাট উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আনিন্দ্য মন্ডল ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুনিয়া আক্তার এসেছিলেন। আমাকে এ ধরণের কাজ করতে নিষেধ করে গেছেন।’

মোল্লাহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোমেন দাশ বলেন, ‘বিষয়টি শোনার পর থেকেই ঘটনাস্লেল পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

এ বিষয়ে মোল্লাহাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ওয়াহিদ হোসেন বলেন, ‘বিষয়টি শোনার পরই পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে। সহকারী কমিশনার (ভূমি) আনিন্দ্য মন্ডল ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুনিয়া আক্তার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। তবে ওই নারীকে তারা খুঁজে পায়নি। ওই নারীর পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে আমরা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

টুটুল/আমিনুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়