ঢাকা     শনিবার   ২১ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৯ ||  ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩

কক্সবাজারে ১৪৪ ধারা: বিএনপির সমাবেশের চেষ্টা

কক্সবাজার প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:০০, ৩ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৩:১৪, ৩ জানুয়ারি ২০২২
কক্সবাজারে ১৪৪ ধারা: বিএনপির সমাবেশের চেষ্টা

কক্সবাজারে একই স্থানে বিএনপি ও যুবলীগের সমাবেশকে ঘিরে ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। সোমবার (৩ জানুয়ারি) ভোর থেকে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কড়াকড়ি জারি করা হলেও সকাল ৮টার দিকে শহরের ঈদগাহ ময়দানে জড়ো হন বিএনপির স্থানীয় নেতা কর্মীরা। সেখানে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে সমাবেশ করার চেষ্টা করেন তারা। পরে খবর পেয়ে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিএনপি নেতাকর্মীদের সেখান থেকে সরিয়ে দেন। 

প্রসঙ্গত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবিতে কক্সবাজার শহীদ মিনার সড়কে সোমবার সমাবেশের ডাক দেয় জেলা বিএনপি। কিন্তু একই দিন একই সড়কের অল্প দূরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ‘গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ পালনের সিদ্ধান্ত নেয় কক্সবাজার জেলা যুবলীগ। এতে আইনশৃঙ্খলা অবনতির আশঙ্কা দেখা দিলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে শহীদ মিনার সড়কের ২০০ গজের মধ্যে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। 

ঈদগাহ ময়দানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, 'রাতের আঁধারে ভোট কারচুপি করে ক্ষমতায় আসা দলের ওপর জনগণের আর আস্থা নেই। তাই বিএনপির সাংবিধানিক অধিকারও হরণ করছে তারা।'

জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান বলেন, 'সরকার মানুষের সব গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। আমাদের পূর্ব নির্ধারিত স্থানে যুবলীগের কর্মসূচি দেওয়া তাদের সেই হীনমানসিকতার বহিঃপ্রকাশ।’

এদিকে সমাবেশ করতে না দেওয়ায় বিচ্ছিন্নভাবে শহরের কয়েকটি স্থানে বিক্ষোভ মিছিল করেছে বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা।

অন্যদিকে জেলা যুবলীগ তাদের পূর্ব নির্ধারিত সমাবেশ শহীদ দৌলত ময়দানে করবে বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির জেলা সভাপতি সোহেল আহমদ বাহাদুর। তিনি বলেন, '১৪৪ ধারাকে মেনে নিয়ে আমরা পূর্বনির্ধারিত শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে সমাবেশ সরিয়ে নিয়েছি। আমরা অন্য স্থানে সমাবেশ করবো।'

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রফিকুল ইসলাম বলেন, 'বিএনপি নেতাকর্মীরা ঈদগাহ ময়দানে জড়ো হয়েছিল। কিন্তু তাদের শান্তিপূর্ণভাবে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে।'

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আবু সুফিয়ান বলেন, 'বিএনপির সমাবেশের জন্য কোনো স্থানের অনুমতি নেই। কিন্তু দলটির নেতা কর্মীরা সমাবেশ করার চেষ্টা করছে। তাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।'

তারেকুর/ মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়