ঢাকা     সোমবার   ২৩ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ৯ ১৪২৯ ||  ২১ শাওয়াল ১৪৪৩

শাবিপ্রবিতে ষষ্ঠ দিনেও বিক্ষোভ, ভিসির পদত্যাগের দাবিতে অটল শিক্ষার্থীরা

সিলেট সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:৩৫, ১৮ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১২:৩৯, ১৮ জানুয়ারি ২০২২
শাবিপ্রবিতে ষষ্ঠ দিনেও বিক্ষোভ, ভিসির পদত্যাগের দাবিতে অটল শিক্ষার্থীরা

আহত শিক্ষার্থী সজল কুন্ডের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলেন জাহাঙ্গীর কবির নানক

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) সকাল ১০টা থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের গোলচত্বরে আবারো জড়ো হয়েছেন শিক্ষার্থীরা। আগামী ৪৮ ঘন্টার মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমদের পদত্যাগ না করলে কঠোর আন্দোলন কমসূচী শুরু করারও ঘোষণা দিয়েছেন তারা। 

গত বৃহস্পতিবার থেকে বিভিন্ন দাবিতে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীরা। বেগম সিরাজুন নেসা ছাত্রী হলের প্রভোস্টের পদত্যাগ পরবর্তীতে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশি হামলার পর এই আন্দোলন এক দফা দাবিতে পরিণত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসের গোলচত্বরে অবস্থান নিয়ে কর্মসূচী চালিয়ে যাচ্ছেন। অবশ্য পুলিশ উপাচার্যের ভবন ঘিরে রেখেছে। প্রধান ফটকে তালাসহ ইট বালি কাঠের আসবাবপত্র দিয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে রেখেছে শিক্ষার্থীরা। কর্মসূচী অংশ হিসেবে আজ (মঙ্গলবার) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর (রাষ্ট্রপতি) বরাবরে ভিসির পদত্যাগের দাবি জানিয়ে চিঠি পোস্ট করার কথা রয়েছে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের।

এদিকে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের খোঁজ নিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। সোমবার (১৭ জানুয়ারি) রাতে তারা প্রতিনিধি পাঠিয়ে শিক্ষার্থীদের খোঁজ নেন। 

জানা গেছে, সোমবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর লোগো সম্বলিত গাড়ি নিয়ে তিনজন বিশ্ববিদ্যালয়ে আসেন। তাদের মধ্যে একজন নিজেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর পিএ (ব্যক্তিগত সহকারী) শফিউল আলম জুয়েল বলে পরিচয় দেন। তিনি বলেন, শাবিপ্রবির ঘটনায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন দুঃখ প্রকাশ করেছেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রী শাবিপ্রবি শিক্ষার্থীদের সহিংসতার পথে না যাওয়া আহ্বান জানিয়েছেন বলেও উল্লেখ করেন শফিউল আলম জুয়েল। । 

অন্যদিকে একই দিন রাত পৌনে ১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আশেপাশে নিয়োজিত পুলিশ সদস্য ও জলকামান সরিয়ে নেওয়ার খবর পাওয়া যায়। তবে শিক্ষার্থীরা তখনও ভিসির বাসভবনের সামনে অবস্থান করছিলেন।

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘটিত সহিংসতার ঘটনায় আহত শিক্ষার্থী সজল কুন্ডের সঙ্গে মোবাইল ফোনে কথা বলে তার চিকিৎসার খোঁজখবর নেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক। শাবিপ্রবির ঘটনা দুঃখজনক উল্লেখ করে তিনি শিক্ষার্থীদের পাশে থাকার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। 

এর আগে রাতে সজল কুন্ডুকে দেখতে সিলেট ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যান সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন। তার মোবাইলে আহত শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলেন নানক।

নূর আহমদ/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়