ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

৫০০ মি. দূরে কনের বাড়ি, তবুও হেলিকপ্টারে বিয়ে

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:৩০, ১৮ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ১৭:৩৬, ১৮ জানুয়ারি ২০২২
৫০০ মি. দূরে কনের বাড়ি, তবুও হেলিকপ্টারে বিয়ে

বরের বাড়ি গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার দক্ষিণ গঙ্গারামপুর গ্রামে, আর কনের বাড়ি উত্তর গঙ্গারামপুর গ্রামে। এই দুই গ্রামের মধ্য দিয়ে বয়ে গেছে মধুমতি নদীর এমবিআর চ্যানেল। দুই বাড়ির দূরত্ব মাত্র ৫০০ মিটার। এরপরও বাবার শখ পূরণে হেলিকপ্টারে চড়ে বিয়ে করতে যান মিরাজ শেখ। 

রোববার (১৮ জানুয়ারি) দক্ষিণ গঙ্গারামপুর গ্রামের তোয়াজ শেখের ছেলে মিরাজ শেখের সঙ্গে উত্তর গঙ্গারামপুর গ্রামের আজাদ খোন্দকারের মেয়ে আফরিন আক্তারের বিয়ে হয়। 

বাবার ইচ্ছা পূরণ করতে ঢাকা থেকে প্রায় সোয়া লাখ টাকায় ভাড়া করে আনা হয় হেলিকপ্টার। কনের বাড়ি ৫০০ মিটার দূরত্বে হলেও ওড়ার সুবিধা ও অন্যান্য কারণে প্রায় ১০ কিলোমিটার ঘুরে হেলিকপ্টার অবতরণ করে কনের বাড়ির পাশে। ভাই-বোনদের নিয়ে হেলিকপ্টারে থেকে নামে বর মিরাজ। আর বাসে করে ২ হাজার বরযাত্রী যান কনের বাড়িতে। পরে বিয়ে করে বউকে নিয়ে হেলিকপ্টারে বাড়ি ফেরেন মিরাজ শেখ। 

হেলিকপ্টার ওই গ্রামে অবতরণ করার পর তা দেখত শত শত উৎসুক মানুষ ভিড় করে। এ বিয়েতে গোহালা ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মাতুব্বর, সাবেক চেয়ারম্যান শফিকুল আলম মোল্লা, ব্যবসায়ী রিয়াজ মিনা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি এম এম মোশারফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শেখ ইকবালসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

বর যাত্রীদের একজন সিরাজুল ইসলাম মিনা বলেন, দুপুরের আগে ঢাকা থেকে ভাড়া করা হেলিকপ্টার বরের গ্রামের জুটমিল সংলগ্ন মাঠে অবতরণ করে। দুপুরে মিরাজ তার ভাই-বোন নিয়ে হেলিকপ্টারে চড়ে কনের বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন। সড়কপথে বরযাত্রীর বাকি সদস্যরা কনের বাড়ি পৌঁছায়।

উত্তর গঙ্গারামপুর গ্রামের শাহজাহান মিয়া বলেন, এটি এলাকার ব্যতিক্রমী বিয়ে হিসেবে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। বর ও কনেপক্ষের আতিথেয়তায় মুগ্ধ তারা। 

বর মো. মিরাজ শেখ বলেন, ‘জীবনে বিয়ে একবারই হয়। এছাড়াও বাবার ইচ্ছা পূরণ বলে কথা। তাই ঢাকা থেকে ১ লাখ ২০ হাজার টাকা দিয়ে হেলিকপ্টার ভাড়া করে বিয়ে করতে যাই।’
 

বাদল/বকুল 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়