ঢাকা     বুধবার   ২৫ মে ২০২২ ||  জ্যৈষ্ঠ ১১ ১৪২৯ ||  ২৩ শাওয়াল ১৪৪৩

বৈদ্যের বাজারে গ্রেনেড হামলার ১৭ বছর

মো. মামুন চৌধুরী || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৮:৪৭, ২৭ জানুয়ারি ২০২২   আপডেট: ০৮:৫৬, ২৭ জানুয়ারি ২০২২
বৈদ্যের বাজারে গ্রেনেড হামলার ১৭ বছর

অসংখ্য স্প্লিন্টার দেহে নিয়ে বেঁচে আছেন আব্দুল্লাহ সরদার

হবিগঞ্জে গ্রেনেড হামলার ১৭তম বার্ষিকী আজ। ২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারি হবিগঞ্জ সদর উপজেলার বৈদ্যের বাজারে গ্রেনেড হামলা হয়েছিলো। এ হামলায় সাবেক অর্থমন্ত্রী শাহ এএমএস কিবরিয়া নিহত হন। আহত হন অন্তত ৭০ জন নেতাকর্মী।

ঘটনার ১৭ বছর পার হলেও অনেকেই দেহে এখনো গ্রেনেডের অসংখ্য স্প্লিন্টার বয়ে চলেছেন। তাদের একজন আব্দুল্লাহ সরদার। সেই সময়ে গুরুতর আহত হয়েছিলেন তিনি। দেহে তার অসংখ্য স্প্লিন্টার। তা নিয়েই কষ্টের জীবন কাটাচ্ছেন। এখনো তিনি পুরোপুরি সুস্থ নন। 

আব্দুল্লাহ সরদার সে সময় ছিলেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। এ ঘটনায় অকালে তার বাবাও প্রাণ হারান। তার বাম হাত ও বাম পা এখনো পুরোপুরি স্বাভাবিক অবস্থায় ফেরেনি। 

২০০৫ সালের ২৭ জানুয়ারির ভয়াবহ স্মৃতি নিয়ে কথা বললে এখনো আঁতকে ওঠেন আব্দুল্লাহ সরদার। সেই সময় গ্রেনেড হামলায় গুরুতর আহত হলে তাকে বারডেম হাসপাতালে দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা করানো হয়েছিল। এরপরেও শেখ হাসিনা তাকে আর্থিকভাবে সহায়তা করেছেন। এজন্য তিনি নেত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ।

অশ্রুসজল চোখে তিনি বলেন, আমি বাবার লাশ কাঁধে বহন করে কবরস্থানে নিতে পারিনি। একজন মানুষের জীবনে এর চেয়ে বড় দুঃখের বিষয় আর কী হতে পারে।

গ্রেনেড হামলার সময় তিনি শাহ এএমএস কিবরিয়ার পাশে দাঁড়ানো ছিলেন। হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয় গ্রেনেড। গ্রেনেডের আঘাতে আরো অনেকের মতো তিনিও মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। সেই থেকে এখন পর্যন্ত দেহে অসংখ্য স্প্লিন্টার নিয়ে বেঁচে আছেন। তিনি ২৭ জানুয়ারির ঘটনায় দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।

হবিগঞ্জ/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়