ঢাকা     সোমবার   ০৪ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২০ ১৪২৯ ||  ০৪ জিলহজ ১৪৪৩

২৬ বছরেও তারা বুঝে পাননি বরাদ্দকৃত জমি

মেহেরপুর প্রতিনিধি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:১৩, ১৬ এপ্রিল ২০২২  
২৬ বছরেও তারা বুঝে পাননি বরাদ্দকৃত জমি

বাঁ থেকে আজিমুদ্দিন শেখ, সিরাজ উদ্দিন শেখ ও হামিদুল হক

১৯৭১ সালের ১৭ এপ্রিল মেহেরপুরের বৈদ্যনাথতলার আম বাগানে আনুষ্ঠানিকভাবে শপথ নেয় স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার। পরে বৈদ্যনাথতলার নাম পরিবর্তন করে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামানুসারে ‘মুজিবনগর’ রাখা হয়। তৎকালীন এসপি মাহবুব উদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে মুজিবনগর সরকারকে গার্ড অব অনার প্রদান করে পুলিশ ও আনসার সমন্বয়ে গঠিত একটি দল। জানা যায় আনসারদের ১২ জন ও পুলিশের ৫ জনসহ মোট ১৭ জন এ কার্যক্রমে অংশ নেয়। তাদের মধ্যে ১২ জন আনসার সদস্য ছিলেন মুজিবনগর উপজেলার বাসিন্দা।

১৯৯৬ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে গার্ড অব অনারে অংশ নেওয়া প্রত্যেক আনসার সদস্যকে মেহেরপুরের বিভিন্ন স্থানে সরকারি খাস জমি বরাদ্দ দেওয়া হয়। দীর্ঘ ২৬ বছর অতিবাহিত হলেও ৯ জন আনসার সদস্য বিভিন্ন জটিলতার কারণে আজ পর্যন্ত সরকারের বরাদ্দ দেওয়া জমি বুঝে পাননি। এদের অনেকে জমি পেতে মামলা চালাতে গিয়ে খুইয়েছেন জমানো অর্থ।  

জমি না পাওয়া ৯ আনসার সদস্যের মধ্যে আজিমুদ্দিন শেখ, সিরাজ উদ্দিন শেখ ও হামিদুল হক জীবিত আছেন। ১৭ এপ্রিল মুজিবনগর দিবস উপলক্ষে ওই তিনজনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তারা এই হতাশার কথা শোনান। 

সিরাজ উদ্দিন শেখ বলেন, পুলিশ লাইন পাড়ায় আমার বরাদ্দের ৫০ শতাংশ জমিতে প্রভাবশালী একজন বাস করছেন। অনেক জায়গায় ধর্না দিয়েও এর কোনো প্রতিকার পাইনি। 

তবে নিজের জন্য বরাদ্দকৃত জমি ফিরে পেতে এখনও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। আজিমুদ্দিন শেখ বিষয়টি উল্লেখ করে বলেন, ‘তখন করেছি স্বাধীনতাযুদ্ধ আর এখন করছি জীবনযুদ্ধ। শরীরে তেমন শক্তি নাই। তবুও জীবন প্রদীপ নিভে যাওয়ার আগ পর্যন্ত এই যুদ্ধ চালাতেই হবে। সরকার আমাদের ভাতা দিচ্ছে। কিন্তু ৯৬ সালে সদর উপজেলার বুড়িপোতা ইউনিয়নের গুচ্ছগ্রামে ৫৩ শতাংশ খাস জমি দিয়েছিল, সেই জমির দখল এখনো পাইনি। দখলদার প্রভাবশালী। তার বিরুদ্ধে মামলা-পাল্টা মামলা চালাতে গিয়ে এখন আমি নিঃস্ব। কারো কাছে অভিযোগ করার আর ইচ্ছা হয় না।’

একই সংকটে পড়েছেন মুক্তিযোদ্ধা হামিদুল হকও। তিনি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়ে বলেন, ‘সরকার আমাকে খাস জমি দিলেও জমির বন্দোবস্ত পাইনি। অন্যের দখলি জমি আমাকে দেওয়ার কি দরকার ছিল?’

এ প্রসঙ্গে মুজিবনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুজন সরকারের কাছে জানতে চাইলে তিনি আনসার সদস্যদের সঙ্গে  কথা বলে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন। 
 

মহাসিন/তারা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়