ঢাকা     সোমবার   ০৪ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২০ ১৪২৯ ||  ০৪ জিলহজ ১৪৪৩

ঈদে পর্যটকদের জন্য প্রস্তুত মৌলভীবাজারের দর্শনীয় স্থান

মৌলভীবাজার সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:০৮, ১ মে ২০২২   আপডেট: ১৭:১০, ১ মে ২০২২
ঈদে পর্যটকদের জন্য প্রস্তুত মৌলভীবাজারের দর্শনীয় স্থান

মহামারি করোনার রেশ কাটিয়ে এবার ঈদে পর্যটকদের জন্য প্রস্তুত চা ও পর্যটন নগরী মৌলভীবাজার জেলার প্রতিটি পর্যটন কেন্দ্র। দুই বছর মহামারি কোভিডের বিধিনিষেধ শেষে দীর্ঘ সময় পর ভিন্ন আমেজে চলছে এবার ঈদের প্রস্তুতি। মৌলভীবাজারে রয়েছে ঝর্ণা, চা বাগান, লেক, হাকালুকি ও হাইল হাওর, বাইক্কাবিল, জাতীয় উদ্যান, মণিপুরি পল্লী, খাসিয়া পল্লীসহ অনেক দর্শনীয় স্থান। 

পাহাড়ি টিলা আর নদী হাওরের সমারোহে চায়ের দেশ আর সবুজের স্বর্গ রাজ্য খ্যাত মৌলভীবাজার। চোখের প্রতিটি পলকেই প্রশান্তির পরশ এখানে। এখানের পাহাড়ি টিলার পরতে পরতে যেন সবুজের ঢেউ খেলা। আঁকাবাঁকা মেঠো পথে সকাল থেকেই চা কন্যারা কাজে ব্যস্ত। তাদের মনোমুগ্ধকর চা নৃত্য বা কাঠি নৃত্য সমৃদ্ধ করেছে সংস্কৃতিকে। দেশে ১৬৭টি চা বাগানের মধ্যে মৌলভীবাজার জেলার ৭টি উপজেলায় রয়েছে ৯২টি চা বাগান। এদিকে মাধবকুন্ড আর হামহাম জলপ্রপাত আকৃষ্ট করে প্রকৃতি প্রেমীদের। মাধবকুন্ড জলপ্রপাত জেলার বড়লেখা উপজেলায় অবস্থিত। পাশেই রয়েছে খাসিয়া পান পুঞ্জি।

পর্যটকদের কাছে হামহাম জলপ্রপাতের গুরুত্ব অন্যরকম। গহীন অরণ্যের ১৫০ ফুট উচ্চতার এই অনিন্দ্য সুন্দর এই জলপ্রপাতটি কমলগঞ্জ উপজেলার রাজকান্দি কুরমা বনবিটে অনেকটা গোপনীয়তায় তার রূপ মাধুর্য জানান দিচ্ছে।

মৌলভীবাজার ও সিলেট জেলার ৫টি উপজেলার ১৮ হাজার ১১৫ হেক্টর আয়তনের ৪০টি বিল নিয়ে গঠিত হাকালুকি হাওর। এই বিশাল হাওরে বিপন্ন ও বিলুপ্ত প্রজাতির জলজ জীববৈচিত্র্যের বাস। মিঠাপানির মাছের অন্যতম আধার হাওরটি বর্ষা ও শুষ্ক মৌসুমে মনকাড়া সৌন্দর্যে আপন করে কাছে টানে প্রকৃতি প্রেমীদের।

কমলগঞ্জ উপজেলায় রয়েছে বৃষ্টি বন বা রেইন ফরেস্ট খ্যাত ‘লাউয়াছড়া’ জাতীয় উদ্যান। দেশের অন্যতম ও জেলার একমাত্র এই জাতীয় উদ্যানটি দেশি-বিদেশি প্রকৃতি প্রেমীদের হৃদয়ে ঠাঁই পেয়েছে। বাংলাদেশের ৭টি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য ও ১০টি জাতীয় উদ্যানের মধ্যে লাউয়াছড়া অন্যতম।

কমলগঞ্জ উপজেলার ভানুগাছ রিজার্ভড ফরেস্টে এই ন্যাশনাল পার্কের অবস্থান। রাজধানী ঢাকা থেকে প্রায় ১শ ৭১ কিলোমিটার দূরের এই বনে ফেব্রুয়ারি মাসে সর্বোচ্চ ২৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং জুনে ৩৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা থাকে। লাউয়াছড়ায় ৪’শ ৬০ প্রজাতির জীববৈচিত্র্য রয়েছে। ২’শ ৪৬ প্রজাতির পাখি, ৬ প্রজাতির সরীসৃপ ও ৪ প্রজাতির উভচর প্রাণীর বিচরণ এই বনে। এছাড়া বন বিভাগ গত কয়েক বছরে ১’শ ৬৭ প্রজাতির বন্যপ্রাণী এই বনে অবমুক্ত করেছে ।

কুলাউড়া উপজেলার কর্মধা ইউনিয়নের ‘কালা পাহাড়’ আর ইস্পাহানী টি কোম্পানির চা বাগানে অবস্থিত গগণ টিলা স্পট। সেখানে চারদিকে শুধু সবুজের সমারোহ।

মাধবপুর লেকের অবস্থান কমলগঞ্জ উপজেলার মাধবপুর ইউনিয়নে। এই জায়গাটা জেলার অন্যতম সুন্দর একটি জায়গা। এখানের বিশাল লেক আর নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য সহজেই পর্যটকদের মন কেড়ে নেয়।

শমসেরনগর বিমান ঘাঁটি। কমলগঞ্জ উপজেলার শমসেরনগর বাজারের পাশে এই বিমান ঘাঁটির রানওয়ে এক সময় দেশের সবচেয়ে বড় ছিল। এছাড়া আছে বিমান বাহিনীর সার্ভাভাইভাল স্কুল এবং রিকরুট ট্রেনিং সেন্টার। রয়েছে আম, কাঁঠাল, লিচু, পেয়ারা, আনারস ও লেবুর বিশাল বাগান। অসংখ্য নার্সারি। এখানের ফুল, ফল ও ঔষধি গাছের চারা নিতে দেশের বিভিন্ন এলাকার লোকজন প্রতিদিন ভিড় জমায়। 

শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জের বধ্যভূমি, বীরশ্রেষ্ট হামিদুর রহমানের স্মৃতিসৌধ, সাতগাঁও পাহাড়, লাঠিটিলা কমলা লেবুর বাগান, চাতলাপুর স্থল বন্দরসহ অর্ধশতাধিক আকর্ষণীয় পিকনিক স্পট রয়েছে মৌলভীবাজারে। 

কোভিট-১৯ এর পর এবার ঈদে পর্যটকদের ব্যাপক সমাগমের প্রত্যাশা করছেন পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টরা। পর্যটক সেবা সংস্থা শ্রীমঙ্গলের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ঈদকে সামনে রেখে সকল পর্যটন সংশ্লিষ্ট হোটেল রিসোর্টের বুকিং হয়ে গেছে। কোথাও কোনো রুম খালি নেই।

মৌলভীবাজার টুরিস্ট পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: আতিকুর রহমান বলেন, ঈদে দুই স্তরের নিরাপত্তায় থাকবে পর্যটন পুলিশ।  সিভিল ও পোশাকধারী পুলিশও থাকবে।

তিনি আরও বলেন, পর্যটকদের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিতে আমরা প্রস্তুত। থাকবে মোবাইল টিমও।

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ জাকারিয়া বলেন, পর্যটন পুলিশের পাশাপাশি পুরো জেলায় পুলিশ বাহিনীর সদস্যরা পর্যটকদের সেবা দিতে প্রস্তুত রয়েছে। 

জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান বলেন, পর্যটকদের স্বাগত জানাতে সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। জেলা প্রশাসনের দুটি বাসসহ টুরিস্ট গাইড ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ সংশ্লিষ্টরা এ জেলায় আগত পর্যটকদের সেবা দিতে প্রস্তুত।

এম এ হামিদ/সুমি

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়