ঢাকা     শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ১৭ ১৪২৯ ||  ০১ জিলহজ ১৪৪৩

হিলি বন্দরবাজারে ট্রাক লোড-আনলোডে যানজট চরমে

দিনাজপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:১৭, ২০ মে ২০২২   আপডেট: ০৯:২৫, ২০ মে ২০২২
হিলি বন্দরবাজারে ট্রাক লোড-আনলোডে যানজট চরমে

দিনাজপুরের হিলি বন্দর খাসমহল বাজারে পণ্যবাহী ট্রাক ঘণ্টার পর ঘণ্টা লোড-আনলোড নিত্যদিনের বিড়ম্বনার কারণ হয়ে উঠেছে। এ কারণে প্রতিদিনই সৃষ্টি হচ্ছে যানজটের। ফলে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বাজারের ক্রেতা-বিক্রেতা, ছোট যান ও পথচারীদের।

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) বিকেলে হিলি বাজার ঘুরে দেখা যায়, উত্তরের চাল ও সবজি বাজার সড়কের পাশ দিয়ে আছে বিভিন্ন পণ্যের দোকানপাট সহ ফজলুর রহমানের বড় মুদির কয়েকটি দোকান। প্রতিদিন সকাল থেকে শুরু হয় তার দোকানে বেচা-বিক্রি। পাশাপাশি সকাল হলেই তার দোকানে আসতে শুরু করে তেলের লড়িসহ বিভিন্ন পণ্যবাহী ট্রাক। বাজারের ছোট রাস্তা, তার উপর বড় ট্রাক, পুরো রাস্তায় থাকে এই ট্রাকের দখলে। এই রাস্তাটি হিলি বাজারের প্রধান রাস্তা এবং ক্রেতা-বিক্রেতাদের যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম। 

ট্রাকগুলো দাঁড়িয়ে থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়তে হয় বাজারে আসা ভ্যান-রিকশা, অটোবাইক, মোটরসাইকেল, বাইসাইকেল যাত্রীসহ পথচারীদের। হাটের দিনসহ বাজারের দিনেও এই সড়কের দুইপাশে বসে ছোট সবজির দোকান। পণ্যবাহী ট্রাকগুলো দাঁড়িয়ে থাকায় সড়কটিতে জমে থাকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজট। এতে তাদের বেচাকেনায় অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়। যানজটে ক্ষুব্ধ বাজার ব্যবসায়ীসহ সকলেই।

একজন ভ্যানরিকশা চালক বলেন, আমরা গরীব মানুষ পেটের দায়ে রিকশাভ্যান চালাই। বাজারে আসলে এই রাস্তায় সব সময় যানজট লেগেই থাকে। দোকানের মালামাল নামানোর জন্য সারাদিন ট্রাক এসে রাস্তা দখল করে রাখে। আমরা ছোটগাড়ি তো দুরের কথা অনেক সময় মানুষও হেঁটে যেতে পারে না। সামান্য রাস্তা পার হতে অনেক সময় লাগে। এই রাস্তা ছাড়া বাজারের বাইরে যাওয়ার অন্য কোন রাস্তাও নাই, আমরা বড় বিপদে আছি।

রাস্তার পাশে সবজি ব্যবসায়ী সোহেল রানা বলেন, আমরা ছোট দোকান ব্যবসায়ী, ব্যবসা করে খাই। কিন্তু বাজার রাস্তার উপর রাত-দিন বড় বড় ট্রাক রাস্তা দখল করে বসে থাকে, আমাদের অনেক অসুবিধা হয়। অনেক বার বিভিন্ন স্থানে অভিযোগ দিয়েও কোন লাভ হয়নি। 

হিলি খাসমহল হাট ও বাজার সমিতির সাধারণ সম্পাদক আরমান আলী বলেন, বাজারে ট্রাক লোড-আনলোডের কারণে যানজটের সৃষ্টি হয়। বাজারে ক্রেতা-বিক্রেতাদের চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়। এর আগে মিটিং করে যানজটের নিরসনের জন্য সময় নির্ধারণ করে দেওয়া হয়েছিলো। সকাল ৯ থেকে রাত ৮ পর্যন্ত বাজারে কোন ট্রাক প্রবেশ করবে না এবং লোড-আনলোডও করতে পারবে না। কিন্তু কে শোনে কার কথা। বাজারের সভাপতি তিনি নিজ ইচ্ছে মতো কাজ করে যাচ্ছেন।

হাকিমপুর পৌর মেয়র জামিল হোসেন চলন্ত বলেন, দেখেছি হিলি বাজারে পণ্যবাহী গাড়িগুলো লোড-আনলোড হয়। তাতে যানজটের সৃষ্টি হয় এবং এতে পৌরবাসীর চরম দুর্ভোগ। মাসিক সভায় বাজার মনিটরিং কমিটিকে বিষয়টি অবগত করবো এবং বাজারের যানজট নিরসনের ব্যবস্থা নিবো।

এবিষয়ে হাকিমপুর (হিলি) উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নুর-এ-আলম বলেন, বাজারের যানজট নিরসনের জন্য এর আগেও ফজলুর রহমানের দোকানে জরিমানা করা হয়েছিলো এবং সতর্ক করে দেওয়া হয়েছিলো। মানুষের সুবিধার্থে আবারও এসব পণ্যবাহী ট্রাক লোড-আনলোডের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনা করা হবে।

মোসলেম/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়