ঢাকা     মঙ্গলবার   ০৫ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২১ ১৪২৯ ||  ০৫ জিলহজ ১৪৪৩

এমপি আবু জাহিরের স্ত্রীর ছাদ বাগানে ৫ শতাধিক গাছ

মো. মামুন চৌধুরী, হবিগঞ্জ || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:১১, ২২ মে ২০২২   আপডেট: ১৭:০২, ২২ মে ২০২২
এমপি আবু জাহিরের স্ত্রীর ছাদ বাগানে ৫ শতাধিক গাছ

হবিগঞ্জ জেলা শহরের টাউন হল রোড এলাকা। চারপাশে দালান আর দালান। একটি বহুতল ভবনের ছাদে ফল, ফুল, ঔষধি ও সবজির শখের বাগান গড়ে তুলেছেন হবিগঞ্জ-৩ আসনের এমপি অ্যাডভোকেট মো. আবু জাহিরের সহধর্মিনী আলেয়া আক্তার। 

প্রকৃতি প্রেমিক আলেয়া আক্তার জেলা মহিলা আওয়ামী লীগেরও সাধারণ সম্পাদক।  

বাসার ৬ষ্ঠ তলার ছাদে গড়ে তোলা এই বাগানে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়- এখানে রয়েছে দেশীয় বেগুন, বরবটি, শিম, লেবু, মাল্টা, ডালিম, আম, জাম, টমেটো, বরই, পেয়ারা, সফেদা, কাঁচামরিচ, কামরাঙা, আমরা, পেঁপে, ঝিঙা, শশা, বরবটি, ড্রাগন, আখ, জলপাই, অড়বড়ই, বরই, আপেল, আঙ্গুর, বেল, খেজুর, শিম, বিলেম্বু, কাঁঠাল, কদবেল, তেঁতুল, মিষ্টি লাউ ও ভেষজের নানা রকম গাছ। রয়েছে বেশ কিছু বিদেশি ফল ও ফুলগাছও। গাছগুলো মাটি ও টিনের ড্রাম কেটে বানানো পাত্রে রোপণ করা হয়েছে। 

শুধু ছাদে নয়, বাড়ির আঙিনা এবং জানালার পাশে ফুল, ফল আর ঔষধি গাছ লাগিয়ে পুরো বাড়িটিতেই তার সবুজের সমারোহ। এছাড়াও ছাদে রয়েছে দেশি মুরগী পালনের জন্য একটি ছোট্ট ঘর। এখানে রয়েছে ২০ থেকে ২৫টি মুরগী।  

আলাপকালে জানা যায়, প্রতিদিন বিকেলে রোদ কমার পর গাছগুলোতে পানি দেওয়া হয়। কয়েকদিন পরপরই পরিস্কার করা হয় মাটিতে জন্ম নেওয়া আগাছা। বাগানটিতে কোন রাসায়নিক সার ব্যবহার করা হয় না। জৈব সার তৈরি করে এগুলোতে প্রয়োগ করা হয়। এতে বেশিরভাগ উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করা হয় গোবর। গাছে কোন সমস্যা দিলে অভিজ্ঞদের পরামর্শ নেওয়া হয়। 

ছাদ বাগানে আলেয়া আক্তারের সঙ্গে প্রতিবেদক

আলেয়া আক্তারের ছোটবেলা থেকেই শখ ছিল বাগান করার। এখন রাজনীতি ও সাংসারিক কাজে পুরোপুরিভাবে ব্যস্ত। তবে রাজনীতি আর পরিবারের শত ব্যস্ততাও ভোলাতে পারেনি ছোট বেলার সেই শখের কথা। তাইতো ব্যস্ততার মধ্যেও বাড়ির ছাদ ও আঙিনা ৫ শতাধিক ফল, ফুল, সবজি ও  ঔষধি গাছে ভরপুর।

আলেয়া আক্তার জানান, শখ থাকলেও শিক্ষা জীবনে লেখাপড়া, পরবর্তীতে নানা ব্যস্ততার কারণে বাগান করতে পারেননি। ২০১০ সালে ছাদে বাগান করা শুরু করেছিলেন। এখন বাগানটিতে ৫ শতাধিক গাছ রয়েছে। গাছগুলো থেকে এখন প্রতিদিনই ফল ও শাক-সবজি এনে পরিবারের সবাই খেতে পারেন। বাসায় অতিথি আসলে অনেকেই নিজের হাতে বিষমুক্ত ফল ও সবজি নিয়ে যান।

তিনি বলেন, বাগানটি পরিচর্যায় পরিবারের অন্য সদস্যরাও কাজে লাগেন। যেহেতু বাগানে রাসায়নিক সার ব্যবহার করা হয় না, তাই জৈব সার তৈরিতে বিভিন্ন উপকরণ বাইরে থেকে আনতে পরিবারের সদস্যরা তাকে সহযোগিতা করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সকলকে বনায়নে উদ্বুদ্ধ করে যাচ্ছেন। ভবিষ্যতে ছাদ ছাড়াও আমার আরেকটি বাগান করার ইচ্ছে রয়েছে। নিজের বাড়িতে জায়গা থাকলেই সবাই যেন বেশি বেশি গাছ লাগান সেজন্য আমার আশপাশের সকলকে অনুরোধ জানাই। 

/টিপু/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়