ঢাকা     বুধবার   ০৬ জুলাই ২০২২ ||  আষাঢ় ২২ ১৪২৯ ||  ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

জমি লিখে নিয়ে মাকে ‘ঘর থেকে বের করে দেন’ বড় ছেলে

নিজস্ব প্রতিবেদক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৭:০০, ২২ জুন ২০২২   আপডেট: ১০:৪৪, ২২ জুন ২০২২
জমি লিখে নিয়ে মাকে ‘ঘর থেকে বের করে দেন’ বড় ছেলে

মায়ের জমি নিজের নামে লিখে নিয়ে ঘর থেকে মাকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে বড় ছেলে মাহাবুব আলম মৃধার (৫০) বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের নলচিড়া গ্রামে।

বর্তমানে নলচিড়া বাজারের একটি দোকানে আশ্রয় নিয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন মা হালিমা বেগম (৮২)।

স্থানীয়রা জানান, গৌরনদী উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের শাহজাহান মৃধা ২০ বছর আগে মারা যান। মারা যাওয়ার আগে তিনি স্ত্রী হালিমা বেগমকে ৬৪ শতাংশ জমি লিখে দেন। স্বামীর মৃত্যুর পর বড় ছেলে মাহাবুব মৃধার কাছে থাকতেন হালিমা বেগম। এ সময় মাহাবুব মৃধা মায়ের নামের ৬৪ শতাংশ জমি নিজের নামে লিখে দেওয়ার জন্য মায়ের ওপর চাপ সৃষ্টি করেন। এক পর্যায়ে জমি লিখেও নেন। এর কিছুদিন পর তিনি মাকে ঘর থেকে বেরিয়ে যাওয়ার জন্য চাপ দিতে শুরু করেন। এ নিয়ে নলচিড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম হাফিজ মৃধার সভাপতিত্বে সালিস বৈঠক হয়।

মৃধার বড় বোন আকলিমা বেগম অভিযোগ করে বলেন, ‘মায়ের কাছ থেকে আরো কিছু জমি লিখিয়ে নিতে চেয়েছিলেন মাহাবুব মৃধা। মা দিতে অস্বীকৃতি জানালে মায়ের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করেন তিনি। মায়ের ওষুধ ও চিকিৎসা বন্ধ করে দেন। বিষয়গুলো মা আমাদের জানান। পরে নলচিড়া ইউনিয়ন পরিষদের গ্রাম আদালতে, নলচিড়া বাজার পরিচালনা কমিটি, গৌরনদী মডেল থানা, বাটাজোর ইউনিয়ন পরিষদ গ্রাম আদালতে বিভিন্ন সময় আমরা ভাই-বোনেরা বড় ভাইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করি। এ নিয়ে কয়েকবার সালিশ বৈঠকও হয়। কিন্তু বড় ভাই এর কোনো কিছুই মানছেন না।।’

ছোট ভাই মমিন মৃধা অভিযোগ করে বলেন, ‘বড় ভাইয়ের এসব কর্মকাণ্ডে প্রতিবাদ করলে ভাই আমি, তিন বোন, ভাগ্নেসহ ১০ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ১২ জনকে আসামি করে বরিশালের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনাটি শোনার পর মা অসুস্থ হয়ে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছিলেন। 

নলচিড়া বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি আওয়ামী লীগ নেতা মো. বাদশা ফকির ও সাধারণ সম্পাদক মো. রতন মিয়া জানান, শাহজাহান মৃধার স্ত্রী হালিমা বেগমকে বড় ছেলে মাহাবুব মৃধা বাড়ি থেকে বের করে দেন। এ নিয়ে বাজার কমিটি একাধিকবার বৈঠক হয়। কিন্তু বড় ছেলে মাহাবুব মৃধা মাকে ঘরে উঠতে দেননি। এমন কি মাহাবুব মৃধা ভাই বোনদের বিরুদ্ধে বাজারের দোকানে হামলা ও লুটপাটের মতো মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করেছেন। 

নলচিড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক গোলাম হাফিজ মৃধা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘একাধিকবার সালিস বৈঠক হলেও বৈঠকের সিদ্ধান্ত অমান্য করছেন মাহাবুব মৃধা।’

/স্বপন/আমিনুল/সাইফ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়