ঢাকা     বুধবার   ১৭ আগস্ট ২০২২ ||  ভাদ্র ২ ১৪২৯ ||  ১৮ মহরম ১৪৪৪

সালাম না দেওয়ায় সচিবকে লাঞ্ছিত করলেন চেয়ারম্যান

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:১২, ২৭ জুন ২০২২   আপডেট: ১৯:২৯, ২৭ জুন ২০২২
সালাম না দেওয়ায় সচিবকে লাঞ্ছিত করলেন চেয়ারম্যান

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে সালাম না-দেওয়ায় ইউনিয়ন পরিষদ সচিবকে লাঞ্ছিত করেছেন চেয়ারম্যান। 

আজ সোমবার (২৭ জুন) সচিব মনোজ দত্ত সাংবাদিকদের কাছে এ অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় ওই ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছে। তারা এ ঘটনার দ্রুত বিচার দাবি করেন।

এর আগে পারুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সফিকুল ইসলাম শাওন রোববার দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদ চত্ত্বরে ইউপি সচিবকে লাঞ্ছিত করেন বলে জানা গেছে। 

মনোজ দত্ত বলেন, ‘রবিবার দুপুরে পারুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চত্ত্বরে মহিলাদের মধ্যে সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠান ছিল। সেখানে চেয়ারম্যান সফিকুল ইসলাম শাওন আসেন। এসেই তিনি আমার রুমে প্রবেশ করেন। এ সময় আমার রুমে থাকা সবাই চেয়ারম্যানকে সালাম দেন। কিন্তু আমি ফোনে কথা বলায় চেয়ারম্যানকে দেখতে পাইনি। কিন্তু চেয়ারম্যান সালাম কেন দেইনি এ কারণে আমাকে গালিগালাজ করতে করতে আমার দিকে তেড়ে আসেন। এ সময় তিনি আমাকে লাঞ্ছিত করেন।’

এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পারুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ১ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য আহম্মেদ মোল্যা ও ২ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. নজরুল ইসলাম বলেন, ‘সচিব মহোদয় ফোনে কথা বলা নিয়ে ব্যস্ত থাকায় চেয়ারম্যান শাওনকে দেখতে পাননি এবং সালাম দিতে পারেননি। এতে চেয়ারম্যান ক্ষিপ্ত হয়ে মনোজ দত্তের উপর চড়াও হয়ে মারতে যান এবং গালিগালাজ করেন। পরে আমরা এর কারণ জানতে চেয়ে চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলি। কিন্তু তিনি আমাদের কথা না শুনে চলে যান। একজন চেয়ারম্যানের কাছ থেকে আমরা এমন আচরণ আশা করি না।’

উল্লেখিত দুই ওয়ার্ড সদস্য এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করেছেন। 

এ দিকে অভিযুক্ত সফিকুল ইসলাম শাওন এ প্রসঙ্গে কথা বলতে চাননি। তবে তিনি বলেন, ‘সচিব যেখানে অভিযোগ দেবেন সেটি সত্য না মিথ্যা আমি সেখানেই জবাব দেব।’

কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান বলেন, বিষয়টি আমি মৌখিকভাবে শুনেছি। লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। 
 

বাদল/তারা 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়