ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ১১ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ২৭ ১৪২৯ ||  ১২ মহরম ১৪৪৪

সাম্প্রদায়িক উস্কানি ও শিক্ষক নির্যাতনের প্রতিবাদে সমাবেশ

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ২০:২৭, ৩০ জুন ২০২২  
সাম্প্রদায়িক উস্কানি ও শিক্ষক নির্যাতনের প্রতিবাদে সমাবেশ

দেশব্যাপী সাম্প্রদায়িক হুজুগ ও উস্কানি সৃষ্টি করে শিক্ষক লাঞ্চনা ও হামলা করে শিক্ষক হত্যার প্রতিবাদে সমাবেশ হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৩০ জুন) দুপুরে কুষ্টিয়া শহরে পাবলিক লাইব্রেরির সামনে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কুষ্টিয়ার উদ্যোগে এই সমাবেশ হয়।

সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কুষ্টিয়ার সভাপতি নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সমাবেশে প্রগতিশীল নাগরিক অধিকার রক্ষা পরিষদের ব্যানারে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার প্রতিনিধিত্বশীল ব্যক্তি এবং সামাজিক সাংস্কৃতিক সংগঠন সংহতি জানায়।

এ সময় বক্তারা বলেন, ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত দিয়ে সাম্প্রদায়িক উস্কানি সৃষ্টি করে একের পর এক শিক্ষকদের উপর হামলা এবং হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের চিহ্নিত করে অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। অন্যথায় শিক্ষক সমাজ বিপন্নের মুখে দাঁড়িয়ে আগামী দিনের যোগ্য নাগরিক গড়ে তোলার কাজ করতে ব্যর্থ হবে। 

বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যক্ষ রেজাউল করিম বলেন, দেশে এমপিওভুক্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিচালনার নীতিমালা পরিবর্তন এখন সময়ের দাবি হয়ে উঠেছে। নড়াইলের কলেজ শিক্ষকের উপর হামলা ওই কলেজের পরিচালনা পরিষদের ক্ষমতা দখল, পাল্টা দখলের দ্বন্দ্বের জেরে হয়েছে। আর ঘটনার বলির পাঠা হয়েছেন উপাধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাস। প্রয়োজনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পরিচালনার নীতিমালা পরিবর্তনসহ হামলা, নির্যাতনের প্রকৃত কারণ উদ্ঘাটন করে সঠিক বিচার করতে হবে।

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক সরওয়ার মোর্শেদ বলেন, শিক্ষকরা নিজেই যেখানে সম্মান ও মর্যাদাহানির শিকার হন, হামলার শিকার হয়ে নিহত হন, তখন এই জাতি গড়ার যে দায়িত্ব শিক্ষকের উপর বর্তায়, তা পালন হয়ে যায় অনিশ্চিত। নড়াইলে কলেজ শিক্ষক স্বপন কুমার বিশ্বাসকে লাঞ্চনা এবং ঢাকার সাভারে উৎপল কুমার সরকারকে হামলা করে হত্যা করা হয়েছে, এর সুষ্ঠু তদন্ত করে বিচার করতে হবে।

প্রতিবাদ সমাবেশের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম বলেন, দেশে কু-চক্রী মহল ধর্মীয় গুজব ছড়িয়ে দিয়ে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করে রাষ্ট্রীয় অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির অপতৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। অবিলম্বে তাদের শনাক্ত করে প্রয়োজনে বিশেষ ট্রাইবুনালে দ্রুত বিচারে শাস্তি দিতে হবে। 

সমাবেশে সংহতি জানিয়ে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসিন, বঙ্গবন্ধু শিক্ষা ও গবেষণা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক সুনীল কুমার চক্রবর্তী, সিবিবির সাধারণ সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, উদীচীর সাধারণ সম্পাদক গোপা সরকার, কুষ্টিয়া জেলা স্কুলের শিক্ষক মীর জাহিদ প্রমুখ।

কাঞ্চন/বকুল 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়