ঢাকা     সোমবার   ১৫ আগস্ট ২০২২ ||  শ্রাবণ ৩১ ১৪২৯ ||  ১৬ মহরম ১৪৪৪

কানসাটের বাজারে ফজলি আমের দাম সবচেয়ে কম

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৫:১৪, ১ জুলাই ২০২২   আপডেট: ১৫:১৫, ১ জুলাই ২০২২
কানসাটের বাজারে ফজলি আমের দাম সবচেয়ে কম

চাঁপাইনবাবগঞ্জে আমের ফলন কম হওয়ায় মৌসুমের শুরু থেকে বাজার চড়া। বাজারে এখন আম্রপালি ও ফজলি আম বেশি পাওয়া যাচ্ছে। আম্রপালি আকারে ছোট আর খেতে বেশি মিষ্ট হওয়ায় বাজারে এ আম বিক্রি হচ্ছে বেশি। অন্যদিকে বাজারের সবচেয়ে কম দামে বিক্রি হচ্ছে ফজলি আম। 

সরজমিনে কানসাটের আম বাজারে গিয়ে দেখা যায়- বাজারে ফজলি, ল্যাংড়া, আম্রপালি, লক্ষণভোগ, ক্ষিরশাপাত, আর প্রলম্বিত কিছু গুটি জাতের আম বিক্রি হচ্ছে। ন্যাংড়া আম বিক্রি হচ্ছে ৩২শ থেকে ৩৫শ টাকা মণ দরে। ক্ষিরশাপাত আমের রকমভেদে সর্বোচ্চ ৪ হাজার টাকা মণ দরে বিকোচ্ছে। গুটি জাতের আমের দাম রয়েছে প্রায় আড়াই হাজার থেকে ৩ হাজার টাকা পর্যন্ত।আম্রপালি বিক্রি হচ্ছে ২৭শ থেকে ৩ হাজার টাকা মণে। আর বাজারে সবচেয়ে কম দামে বিক্রি হচ্ছে ফজলি আম। এ আমের মণ ১২শ থেকে ১৬শ টাকা।

দুর্লভপুরের কালুপুর এলাকার আম বাগান মালিক আ. রাজ্জাক বলেন, কানসাট আম বাজারে ৪ মণ ফজলি আম এনেছি। ভোক্তাদের কাছে আম্রপালির চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাওয়ায় ফজলি আমের কদর কমেছে। বাজারে আম্রপালি আম অনেক বিক্রি হচ্ছে, তাও ফের চড়া দামে। এ দিকে ফজলির আমের তেমন ক্রেতা নাই। গত বছরও আম্রপালি আমের কারণে ফজলির দাম পাওয়া যায়নি।

আরেক বাগানি সাইফুল ইসলাম বলেন, পুরাতন আম বাগানে প্রচলিত সকল জাতের আমগাছ আছে। বাগানে ১শ আমগাছের মধ্যে ৩৫ থেকে ৪০টি ফজলি জাতের। আমার একদাগে ৩ বিঘা জমি আছে, ওই বাগানে অধিকাংশই ফজলি আম।

কানসাট আড়তদার সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক টিপু বলেন, আমের ফলন কম হলেও দাম বেশি। বাজারে এখন ন্যাংড়া, আম্রপালি আর ফজলি আমে ভরপুর। বাজারে সবচেয়ে কম দামে বিক্রি হচ্ছে ফজলি আম। ফজলি আমের জায়গা দখল করে নিয়েছে আম্রপালি।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ কৃষি অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় এবার আমের মৌসুমে ৭ হাজার ৭০০ হেক্টর জমিতে ২ লাখ ৪৬ হাজার ১০৫ টি গাছে আম্রপালির চাষাবাদ হয়েছে। অন্যদিকে ৮ হাজার ১৭ হেক্টর জমিতে ৬ লাখ ১৩ হাজার ৭৩৫ টি আম গাছে এবার ফজলি আম চাষ করেছেন বাগান মালিকরা। আম্রপালি আমের গুণগত মান এবং মিষ্টতার কারণে চাহিদা প্রচুর। ঘন আম বাগানগুলোতে আম্রপালি আমের চাষ দিন দিন বাড়ছে। 

প্রসঙ্গত, কৃষি গবেষণার তথ্য মতে, আম্রপালির আমের মিষ্টতার পরিমাণ ক্ষিরশাপাত (ক্ষিরশাপাতে টিএসএস ২২ দশমিক ৮৪) আমের চাইতে বেশি। অন্যদিকে ফজলি আমের মিষ্টতার পরিমাণ ১৭ দশমিক ৫ শতাংশ।

মেহেদী/টিপু

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়