ঢাকা     সোমবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৯ ||  ২৯ সফর ১৪৪৪

নদীর বাঁধ মেরামতে সাড়ে ৩ হাজার শ্রমিক

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:৩৯, ২০ জুলাই ২০২২  
নদীর বাঁধ মেরামতে সাড়ে ৩ হাজার শ্রমিক

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপকূলে খোলপেটুয়া নদীর ভেঙে যাওয়া বেড়িবাঁধ মেরামতের কাজ চলমান রয়েছে। আর এই কাজে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়োগ দেওয়া ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের শ্রমিক ছাড়াও স্থানীয় তিন হাজার লোক রিং বাঁধ নির্মাণে স্বেচ্ছায় শ্রম দিচ্ছেন।

গত সোমবার (১৮ জুলাই) থেকে এই বেড়িবাঁধ নির্মাণে কাজ শুরু হয়। যা এখনো চলমান।

গত ১৪ জুলাই সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার বুড়িগোয়ালীনি ইউনিয়নের পশ্চিম দুর্গাবাটি এলাকায় ১৫০ ফুট উপকূল রক্ষা বেড়িবাঁধ নদীগর্ভে চলে যায়। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়েন ৯টি গ্রামের ২৫ হাজার বাসিন্দা। তলিয়ে যায় চিংড়ি ও কাঁকড়ার খামার। পানির স্রোতের কারণে বাঁধটি মেরামত করতে না পারায় লোকালয়ে প্রবেশ করতে শুরু করে লোনা পানি।

সাতক্ষীরা জেলা মৎস্য অফিসার মোহাম্মদ আনিছুর রহমান জানান, কিছুদিন আগে খোলপেটুয়া নদীর বাঁধ ভেঙে যায়। এতে নদীর পানিতে ভেসে গেছে ১ হাজার ৬৫৫ হেক্টর চিংড়ি ও কাঁকড়ার খামার। এছাড়া ডুবে যায় ১০০টি পুকুর। এসব পুকুর ও খামারে চিংড়ি, কাঁকড়া, সাদা মাছ এবং মাছের পোনা চাষ হতো। আশঙ্কা করা হচ্ছে, বাঁধ ভেঙে ৮ কোটি ২৮ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। 

তবে ঘের মালিকরা জানিয়েছেন তাদের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ১০ কোটি টাকার বেশি।

সাতক্ষীরার পানি উন্নয়ন বোর্ড-১ (পাউবো) এর নির্বাহী প্রকৌশলী আবুল খায়ের জানান, বাঁধ ভেঙে যাওয়ার পরপরই সেটি মেরামতের উদ্যেগ নেওয়া হয়। এজন্য ঠিকাদারও নিয়োগ করা হয়। পরে ঠিকাদারের মাধ্যমে নিয়োগ করা ৬০০ শ্রমিক সোমবার থেকে কাজ শুরু করে। আর ওই কাজে গত দুই দিনে তিন হাজারের বেশি মানুষ স্বেচ্ছাশ্রমে বাঁধ মেরামত কাজে অংশ নেন।

তিনি আরো জানান, মঙ্গলবার ভেঙে যাওয়া বাঁধের পাশে রিং বাঁধ তৈরির কাজ শুরু হয়েছে। এখন লোকালয়ে পানি প্রবেশ বন্ধ আছে।

শ্যামনগর উপজেলার বুড়িগোয়ালিনী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী নজরুল ইসলাম জানান, বাঁধ মেরামত কার্যক্রম চলছে। ভেঙে যাওয়া বাঁধের পাশে রিং বাঁধ তৈরি করা হচ্ছে। দুই দিনে এই বাঁধ মেরামত কাজে ঠিকাদারের শ্রমিকসহ স্থানীয় বাসিন্দারা অংশ নিচ্ছেন।

শাহীন/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়