ঢাকা     সোমবার   ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||  আশ্বিন ১১ ১৪২৯ ||  ২৯ সফর ১৪৪৪

সড়ক সংস্কারের পরও বেড়েছে দুর্ভোগ

দিনাজপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:০৯, ২৭ জুলাই ২০২২  
সড়ক সংস্কারের পরও বেড়েছে দুর্ভোগ

খানাখন্দে ভরা দিনাজপুরের হিলি-ঘোড়াঘাট সড়কের প্রায় ৪৫টি স্থান সংস্কার করেছে সড়ক ও জনপদ বিভাগ। খানাখন্দ স্থানগুলো সমান ভাবে সংস্কার না করে ইট দিয়ে হেয়ারিং করেছে তারা। এতে পরিবহন চালক থেকে শুরু করে ওই সড়কটি ব্যবহারকারীদের দুর্ভোগ বেড়েছে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, প্রায় দেড় মাস আগে এই সড়কটি ইট দিয়ে হেয়ারিং (ইট বিছানো) করেছে সড়ক ও জনপদ বিভাগ। এরপর থেকে এখন পর্যন্ত তারা আর কোনো কাজ করেনি। ফলে ইট বিছানো অংশ মূল সড়ক থেকে কিছুটা উচু হয়ে গেছে। এছাড়া ইটের ওপর দিয়ে বাস ও অন্য পরিবহন চলাচলের সময় প্রচণ্ড ঝাঁকুনিতে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে সাধারণ লোকজনকে। 

হিলি থেকে ঘোড়াঘাটগামী বাসের যাত্রী সানজিদা রহমান রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘আমি সরকারি চাকরি করি। প্রতিদিন সকালে বাসে করে এই সড়ক দিয়ে গাইবান্ধায় যাতায়াত করি। কিন্তু রাস্তার যে দশা, বাসে বসে থাকা যায় না। ঘোড়াঘাট পর্যন্ত কিছু দূর পরপর ইট দিয়ে উঁচু রাস্তা করে রেখেছে। ঝাঁকুনিতে জীবন শেষ হয়ে যায়।’

একজন অটোবাইক চালক রবিউল ইসলাম বলেন বলেন, ‘খানাখন্দে ভরা থাকলেও রাস্তা আগেই ভালো ছিল। সড়কের দায়িত্বে থাকা লোকজন এই রাস্তায় বাঁজে কাজ করেছে।

রাস্তাগুলো তারা ভালোভাবে সংস্কার করতে পারেনি। ইট বিছিয়ে রাখায় গাড়িতে বসলে ঝাঁকুনি খেতে হয়।  এই রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে আমার গাড়ি কয়েক বার নষ্ট হয়েছে।’

চার্জার ভ্যানের যাত্রী আকবর আলী বলেন, ‘হামার এই রাস্তা খারাপ হলেও আগে অনেক ভাল ছিলো। রাস্তা ভাল করবা গিয়ে আরই খারাপ করে ফেলিছে। রাস্তার লোকজন তো আর এই রাস্তা দিয়ে যাওয়া-আসা করে না, তারা আর কি বুঝবি?’

দিনাজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের এসডিই কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘হিলি-ঘোড়াঘাট সড়কটি মজবুত করার জন্য ইট দিয়ে হেয়ারিং করা হয়েছে। তবে স্থানগুলো একটু উঁচু, মানুষের চলাচলের একটু অসুবিধা হচ্ছে। কয়েক দিন থেকে বৃষ্টি হচ্ছে, আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি সড়কের উচু স্থানগুলো যান চলাচলের উপযোগী করে দেওয়া হবে।’

দিনাজপুর সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী কর্মকর্তা মুনসুরুল আজিজ বলেন, ‘হিলি-ঘোড়াঘাট সড়কের বিষয়টি জানালাম। বিষয়টি দেখবো এবং চলতি অর্থবছরে এই সড়ক মেরামতের কাজ শুরু হবে।’

মোসলেম/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়