ঢাকা     শনিবার   ০১ অক্টোবর ২০২২ ||  আশ্বিন ১৬ ১৪২৯ ||  ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪১৪

কুষ্টিয়ায় পৃথক হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:১১, ১১ আগস্ট ২০২২   আপডেট: ১৯:৩৩, ১১ আগস্ট ২০২২
কুষ্টিয়ায় পৃথক হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়া মডেল থানা ও কুমারখালী থানার পৃথক দুটি হত্যা মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ অর্থদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) দুপুরে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ অতিরিক্ত আদালত-১ এর বিচারক তাজুল ইসলাম এবং বিশেষ জজ আদালতের বিচারক আশরাফুল ইসলাম এই রায় দেন।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ডা. সানাউর রহমান হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- কুষ্টিয়া সদর উপজেলার খাজানগর গ্রামের বাসিন্দা মজিবর রহমান ব্যাপারীর ছেলে আজিজুল ইসলাম (২৫), আব্দুর রহমান ওরফে কালা কাজীর ছেলে সাইজুদ্দিন কাজী (৩০), কবুরহাট দোস্তপাড়ার আব্দুস সামাদ সরদারের ছেলে জয়নাল সরদার (৩৮) এবং খাজানগর মাদ্রাসাপাড়ার আজিজুল হক খানের ছেলে সাইফুল ইসলাম খান (৩০)।

অপরদিকে কুমারখালী থানার ব্যবসায়ী রিয়াজুল হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্তরা হলেন- উপজেলার বাড়াদি গ্রামের বাসিন্দা মৃত আইনুদ্দিন বিশ্বাসের ছেলে সিফাত বিশ্বাস (৫০) ও মৃত জয়েন বিশ্বাসের ছেলে ওয়াসিম আলি (৩৭)।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১৬ সালের ২০ মে ডা. সানাউর রহমান তার সহযোগী কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. সাইফুজ্জামানসহ নিজ দাতব্য চিকিৎসা কেন্দ্র বটতৈল শিশির মাঠ এলাকায় পৌঁছালে পূর্ব থেকে ওত পেতে থাকা আসামিরা পেছন থেকে পরিকল্পিতভাবে হামলা চালায়।

আসামিরা ধারালো চাপাতিসহ রড ও লাঠিসোটা ব্যবহার করে উপর্যুপরি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা গুরুতর আহতাবস্থায় দুইজনকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মীর সানাউর রহমানকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় নিহতের ছোট ভাই মীর আনিসুর রহমান বাদী হয়ে ঘটনার পরের দিন ২১ মে কুষ্টিয়া মডেল থানায় অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ৩০ এপ্রিল কুষ্টিয়া মডেল থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক আজিজুর রহমান আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন।

অপরদিকে ২০১৭ সালের ২৩ এপ্রিল সাউন্ড বক্স বাজানোকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট দ্বন্দ্বে কুমারখালী থানার বাড়াদি গ্রামে ব্যবসায়ী রিয়াজুলকে (৫৫) ধারালো চাকু দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় নিহতের ছেলে শহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে ২৪ এপ্রিল কুমারখালী থানায় ৯ জনের নাম উল্লেখ করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি তদন্ত শেষে কুমারখালী থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক দীলিপ কুমার বিশ্বাস ২০১৭ সালে ১০ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ বিশেষ আদালতের সরকারি কৌসুলি এডভোকেট রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ব্যবসায়ী রিয়াজুল হত্যা মামলায় সাক্ষ্য শুনানি শেষে দুই আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত।’

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি এডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী বলেন, ‘ডা. সানাউর রহমান হত্যা মামলায় সাক্ষ্য শুনানি শেষে চার আসামির বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সন্দেহাতীত ভাবে প্রমাণিত হওয়ায় তাদের যাবজ্জীবন কারাদণ্ডসহ অর্থদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।’

কাঞ্চন/সোলাইমান/কেআই

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়