ঢাকা     মঙ্গলবার   ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ||  আশ্বিন ১২ ১৪২৯ ||  ০১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

সেতু থেকে পানিতে ফেলে দুই সন্তানকে হত্যায় বাবার যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৯:২০, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ১৯:২৩, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২
সেতু থেকে পানিতে ফেলে দুই সন্তানকে হত্যায় বাবার যাবজ্জীবন

কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় লালন শাহ সেতু থেকে মুন্নী খাতুন (১০) ও মুনসুর (৫) নামের দুই শিশু সন্তানকে নদীতে ফেলে দিয়ে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহত শিশুদের বাবা আব্দুল মালেককে (৪২) যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ২৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে আরও তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-২ এর বিচারক মো. রেজাউল করিম আসামির উপস্থিতিতে এই রায় ঘোষণা করেন। রায় প্রদান শেষে আসামিকে পুলিশ পাহারায় জেলা কারাগারে পাঠানো হয়।

সাজাপ্রাপ্ত আব্দুল মালেক ভেড়ামারা উপজেলার বাহিরচর বারোদাগ এলাকার আব্দুস সামাদের ছেলে।

আদালত সূত্রে জানা যায়, ২০১২ সালের ১৭ আগস্ট সকালে মেয়ে মুন্নী খাতুন এবং ছেলে মুনসুরকে চুল কাটানোর কথা বলে বাড়ি থেকে নিয়ে যায় তাদের বাবা আব্দুল মালেক। এরপর ঈশ্বরদী গামী একটি নছিমন গাড়িতে উঠে লালন শাহ সেতুর মাঝখানে দুই সন্তানসহ নেমে পড়েন মালেক।

এরপর প্রথমে মেয়ে মুন্নী খাতুন, পরে ছেলে মুনসুরকে সেতু থেকে নদীতে ফেলে দিয়ে হত্যা করেন। এ ঘটনায় নিহত শিশুদের মা ও মালেকের স্ত্রী মমতাজ খাতুন বাদী হয়ে তার স্বামী মালেকের বিরুদ্ধে ভেড়ামারা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

২০১৩ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি তদন্ত শেষে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ভেড়ামারা থানার পুলিশ পরিদর্শক রিয়াজুল ইসলাম অভিযুক্ত আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে আজ আদালত এই রায় ঘোষণা করেন।

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের পিপি এডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী রায়ের বিষয়টি রাইজিংবিডিকে নিশ্চিত করেছেন।

কাঞ্চন/কেআই

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়