ঢাকা     সোমবার   ২৮ নভেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ১৪ ১৪২৯ ||  ০২ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

দেড় ঘণ্টার বৈঠকে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:২৬, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২   আপডেট: ১০:৩৪, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২
দেড় ঘণ্টার বৈঠকে বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান

বিভাগীয় কমিশনারের মধ্যস্থতায় বিদ্যুৎ বিল নিয়ে বরিশাল সিটি করপোরেশন ও ওয়েস্ট জোন পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেড (ওজোপাডিকো) মধ্যে সৃষ্ট সমস্যায় সমঝোতা হয়েছে। দেড় ঘণ্টা ধরে চলা বৈঠক শেষে সমধানে পৌঁছান তারা। 

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯টায় বরিশাল ক্লাবে বরিশাল বিভাগীয় কমিশনারের মধ্যস্থতায় এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার সাইফুল ইসলামসহ সিটি করপোরেশন ও ওজোপাডিকোর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

রাত ১১টায় বৈঠক শেষ হওয়ার পর বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার আমিন উল আহসান সাংবাদিকদের বলেন, ‘উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে বৈঠক হয়েছে এবং সমঝোতা হয়েছে। তেমন কোনো সমস্যা মূলত হয়নি। বিদ্যুৎ বিল বকেয়া ছিলো, বিদুৎ বিভাগের প্রটোকল রয়েছে। সেখানে একটু সমস্যা হয়েছে। মেয়র মহোদয়ের সঙ্গে আলোচনা করতে ঢাকা ও খুলনা থেকে ওজোপাডিকোর কর্মকর্তারা এসেছিন। আলোচনা হয়েছে এবং আলোচনার মাধ্যমে সমাধান হয়েছে। প্রটোকলগত বিষয়ের কারণে এই দুই দিন সমস্যা হয়েছে।’ 

ওজোপাডিকো বরিশালের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এটিএম তারিকুল ইসলাম বলেন, বিভাগীয় কমিশনারের মাধ্যমে সমাধান হয়েছে। এখন থেকে প্রতিমাসের বিদ্যুৎ বিল নিয়মিত পরিশোধ ও বকেয়া যে বিল রয়েছে সেটি ধীরে ধীরে পরিশোধ করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়।’ 

বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ বলেন, ‘সমস্যার সমাধান হয়ে গেছে। মূলত আমাদের নিয়মিত বিল নিয়ে একটা ঘটনা ঘটে গেছে। জনগণের ভোগান্তির কথা চিন্তা করে আমরা সবাই মিলে বসে একমত হয়েছি। আমাদের রাজনৈতিক অভিভাবক আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর নির্দেশনা বিষয়টি সমাধান হয়েছে। মানুষ ভোগান্তি থেকে বেঁচে গেছে এটাই বড় বিষয়। সিটি করপোরেশনের মেয়র যখন আমি তখন দায়ভারও আমার। অযথা অযুহাত দিয়ে তো লাভ নেই। এখন থেকে প্রতিমাসের বিল প্রতিমাসে দেওয়ার চেষ্টা করবো আমরা যাতে বকেয়া না থাকে। যেহেতু বকেয়া আমাদের ছিলো সেহেতু দায়ভার তো আমাদেরই।’ 

মেয়র বলেন, ‘সড়ক বাতি সব জায়গায় চালু হয়ে গেছে। শুক্রবার থেকে পানির লাইনও চালু হবে।’

প্রসঙ্গত, বরিশাল সিটি করপোরেশনের কাছে ৫৯ কোটি ৯০ লাখ টাকা পাওনা ছিলো ওজোপাডিকোর। সেই বকেয়া পরিশোধ না করায় নগরীর সড়ক বাতির ১৫টি বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে ওজোপাডিকো। পরে পুরো নগরীর সব সড়ক বাতির বৈদ্যুতিক সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়। পাশাপাশি ১৫টি পানির পাম্পের বৈদ্যুতিক লাইনও বিচ্ছিন্ন করা হয়। দুই দিন নগরীর অন্ধকার থাকার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। অবশ্য মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ এসব কর্মকাণ্ড তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হিসেবে অভিহিত করেন এবং বিগত মেয়রদের মেয়াদে বকেয়া থাকা বিদ্যুৎ বিলের দায়িত্ব তিনি নেবেন না বলেও সাংবাদিকদের জানান।

স্বপন/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়