ঢাকা     সোমবার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৯ ||  ০৯ জমাদিউল আউয়াল ১৪১৪

রাজশাহীর মণ্ডপে এলো বিশ্বকাপ ফুটবলের ট্রফি

রাজশাহী সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১০:২৪, ২ অক্টোবর ২০২২   আপডেট: ১০:২৮, ২ অক্টোবর ২০২২
রাজশাহীর মণ্ডপে এলো বিশ্বকাপ ফুটবলের ট্রফি

টাইগার সংঘ প্রতিবছর বিভিন্ন থিমে পূজা মণ্ডপ সাজিয়ে থাকে। এবার তারা বিশ্বকাপ ফুটবলকে বেছে নিয়েছে।

আগামী মাসেই কাতারে বসতে যাচ্ছে ফুটবল বিশ্বকাপের এবারের আসর। শিরোপার জন্য লড়বে ৩২টি দেশ। কার হাতে ট্রফি উঠবে তা সময়ই নির্ধারণ করে দেবে। কিন্তু তার আগেই যেন বিশ্বকাপ ট্রফি চলে এসেছে রাজশাহীতে! এ বছর বিশ্বকাপ খেলা, তাই শারদীয় দুর্গাপূজায় ফুটবল বিশ্বকাপের থিমেই রাজশাহী নগরীর একটি পূজামণ্ডপ সাজানো হচ্ছে।

শহরের রাণীবাজার মোড়ে প্রতিবছরই ব্যতিক্রম থিমে মণ্ডপ সাজায় টাইগার সংঘ। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। দুই মাস ধরে চলছে মণ্ডপের কাজ। 

শনিবার (১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় গিয়ে দেখা গেল, শেষ মূহূর্তের কাজ করছেন শ্রমিকরা। আর এখনই মণ্ডপ দেখতে ভিড় করছেন অনেকে। এখনও সাজসজ্জার কাজ শেষ না হলেও মণ্ডপটি দেখে মনে হচ্ছে যেন বিশ্বকাপের ট্রফি এনে বসানো হয়েছে। আর তাই মণ্ডপটি দেখতে ছোট বড় সবাই ভিড় করছেন। কাজ শেষ না হলেও নগরবাসীর মধ্যে ইতোমধ্যেই সাড়া ফেলেছে পূজা মণ্ডপটি।

সরেজমিনে দেখা যায়, মণ্ডপের ওপরের অংশে শোভা পাচ্ছে বিশ্বকাপের ট্রফি। আয়োজকরা জানান, ট্রফিটি ২৬ ফুট উঁচু ও ১০ ফুট চওড়া। আসন্ন কাতার বিশ্বকাপের ট্রফির আদলেই এটি বানানো হয়েছে। ট্রফির চারপাশে বিশ্বকাপে অংশ নিতে যাওয়া ৩২ টি দেশের পতাকাও শোভা পাচ্ছে। আর পতাকার মাঝখানে রয়েছে ট্রফিটি।

বিভিন্ন দেশের জার্সিতে সাজানো হচ্ছে খেলোয়াড়দের অবয়ব

ট্রফির ঠিক ওপরেই আছে বাংলাদেশের পতাকা। একটু পাশেই একতার প্রতীক হিসেবে ১১ জন খেলোয়াড়ের অবয়ব দিয়ে বানানো হচ্ছে একটি পৃথিবী। আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, জার্মানি, বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশের জার্সি পরানো আছে খেলোয়াড়দের গায়ে। তাদের পায়ের নিচে থাকবে সবুজ ঘাসের গালিচা। এর পাশেই একটি গাছে শোভা ছড়াচ্ছে রং বেরংয়ের আলোকসজ্জা।

গত ৭ বছর ধরেই টাইগার সংঘের পূজা মণ্ডপ থাকে রাজশাহীর মানুষের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে। প্রতি পূজার সময় ভিন্ন ভিন্ন থিম নিয়ে মণ্ডপ সাজানোর জন্য সবাই দেখতে আসেন সেটি। ১৯৮২ সালে টাইগার সংঘ নাম দিয়ে এই পূজা মণ্ডপের যাত্রা শুরু। দীর্ঘ ৪০ বছরের মধ্যে তিনবার এই পূজা মণ্ডপের স্থান পরিবর্তন হয়েছে। বিভিন্ন থিম নিয়ে টাইগার সংঘ মণ্ডপ সাজাচ্ছে ২০১৬ সাল থেকে। সেবার বাংলাদেশের জাতীয় পশু বাঘের মুখের আদলে মণ্ডপটি সাজানো হয়। 

প্রথম বছরেই দর্শনার্থীদের দারুণ সাড়া পায় তারা। তারপর থেকেই একের পর এক থিম নিয়ে তারা সাজাতে থাকেন মণ্ডপ। বছরের আলোচিত ঘটনাগুলোর থিমের আদলেই মণ্ডপটি সাজানো হয়।

দ্বিতীয় বছর ২০১৭ সালে বাহুবলী সিনেমার আদলে বানানো হয় মণ্ডপ। এরপর ২০১৮ সালে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইটের আদলে বানানো হয়। সেবারও দারুণ সাড়া পান আয়োজকরা। এর পরের বছর ২০১৯ কিংবদন্তী গায়ক আইয়ুব বাচ্চুর রূপালী গিটার দেখা যায়। ২০২০ সাল আলোচিত ছিল অতিমারী করোনায় জন্য। তাই এবার মণ্ডপে  জায়গা করে নেয় করোনার আদল। তবে ২০২১ সাল ছিল ব্যতিক্রম। এ বছর তারা একবারেই সাদামাটা ধাচের মণ্ডপ তৈরি করে। দর্শনার্থীরা হতাশ হয়ে পড়েন। তবে এবার তাদের প্রত্যাশা পূরণ করতে নিয়ে আসা হয়েছে বিশ্বকাপের ট্রফির আাদল।

শেষ মুহূর্তের কাজে ব্যস্ত মণ্ডপের কারিগররা

টাইগার সংঘের কার্যকরী সভাপতি সুশীল কুমার আগারওয়ালা বলেন, ‘আমাদের এই মণ্ডপ ঘিরে সবার অনেক প্রত্যাশা থাকে। গতবার সে প্রত্যাশা পূরণ করতে পারিনি। তাই এবার হতাশ করতে চাই না। এবার ট্রফিটি নির্মাণ করতে আমাদের ব্যায় হচ্ছে প্রায় আট লাখ টাকা। আমাদের নিজেদের এবং বিদেশে থাকা বন্ধু-বান্ধবদের অনুদানের টাকায় এটা করা হচ্ছে। আশা করছি, সামনের বছর আবার নতুন কোন থিম নিয়ে সাজাতে পারবো মণ্ডপ।’

মণ্ডপের সামনে দাঁড়িয়ে ছিলেন পূজা দাস। তিনি বলেন, ‘আমরা সব পূজা মণ্ডপেই যাই। তবে টাইগার সংঘ ঘিরে আলাদা প্রত্যাশা থাকে। আজ দেখতে এসেছিলাম, তবে পুরো কাজ শেষ হয়নি। কাজ শেষ হলে অনেক সুন্দর দেখা যাবে। তখন আবার পরিবারের সবাইকে নিয়ে আসবো।’

টাইগার সংঘের কার্যকরী সভাপতি সুশীল কুমার আগারওয়ালা বলেন, ‘আজ রাতের মধ্যেই তারা সমস্ত কাজ শেষ করতে চান। এ জন্য রাতভর কাজ করতে হলে তারা করবেন। ইতোমধ্যে মণ্ডপে প্রতিমা তোলা হয়েছে। মণ্ডপ সাজানোর কাজ শেষ হলেই প্রতিমা উন্মুক্ত করা হবে।’

শিরিন সুলতানা/ মাসুদ

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়