ঢাকা     শুক্রবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২২ ||  অগ্রহায়ণ ২৪ ১৪২৯

গ্যাসবেলুন বিক্রি করে সংসার চালান মিনহাজুল

দিনাজপুর প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৭:১৮, ৬ অক্টোবর ২০২২  
গ্যাসবেলুন বিক্রি করে সংসার চালান মিনহাজুল

দিনাজপুরের হিলি বন্দরের বিভিন্ন সড়ক এবং বাজারে ঘুরে গ্যাসবেলুন বিক্রি করেন মিনহাজুল ইসলাম। সারা বছর চলে তার এই বেলুন বেচার ব্যবসা। তবে ঈদ আর পুজায় ভালো হয় বেলুন বিক্রি। গ্যাসবেলুন বিক্রি করে চলে তার সংসার।

বুধবার (৫ অক্টোবর) বিকেলে হিলি চেকপোস্টে এপারবাংলা আর ওপারবাংলার মানুষের মিলন মেলা বসে। দুর্গাপূজার নবমী ও দশমীর দিনে দুই বাংলার মানুষ সীমান্তের কাঁটাতারের কাছে যেতে পারে। কাঁটাতারের দুই পাশের দাঁড়িয়ে তারা আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দেখা করতে, কথা বলতে বা উপহার বিনিময় করতে পারে।

এই মিলন মেলায় গিয়ে দেখা যায়, মিনহাজুল ইসলাম মাছ, কুমির, উড়োজাহাজসহ বিভিন্ন প্রাণির আকৃতির গ্যাসবেলুন বিক্রি করছেন। ভারত সীমান্ত দেখতে আসা দর্শনার্থীরা অনেকেই তার গ্যাসবেলুন কিনছেন। তাদের সঙ্গে আসা ছেলে-মেয়েদের কিনে দিচ্ছেন। ৫০ টাকা দরে প্রতিটি বেলুনের দাম নিচ্ছেন এই ব্যবসায়ী।

ব্যবসায়ী মিনহাজুল ইসলামের বাড়ি জয়পুরহাটের পাঁচবিবি উপজেলায়। ৪০ টাকা দরে পাইকারি কিনে ৫০ টাকা দরে খুচরা বিক্রি করছেন তিনি। তার এই খেলনা গ্যাসবেলুনগুলো ছোট বাচ্চাদের অনেক প্রিয়।

হিলি চেকপোস্টে বিরামপুর থেকে আসা একজন দর্শনার্থী প্রদীপ কুমার রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ভারতে আমাদের অনেক আত্মীয়-স্বজন আছে। দুর থেকে এক নজর তাদের সঙ্গে দেখা করতে এসেছি। সঙ্গে বৌ-বাচ্চা এসেছে। ছেলে বাইনা ধরেছে গ্যাসবেলুন কিনবে। ছেলে-মেয়েদের জন্য দুটি বেলুন ১০০ টাকা দিয়ে কিনলাম।’ 

১০ বছরের রকি রাইজিংবিডিকে বলে, ‘এখানে মাছের আকৃতির গ্যাসবেলুন পাওয়া যাচ্ছে। বাবা আমাকে একটা মাছ গ্যাসবেলুন কিনে দিয়েছেন।’

একজন দর্শনার্থী তৃপ্তি অধিকারী রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘ওপারে আমার মাষির বাড়ি। চোখের দেখা দেখতে এসেছি। সঙ্গে বর এসেছেন। বাড়িতে মেয়ে আছে, তার জন্য একটা গ্যাসবেলুন নিলাম।’ 

গ্যাসবেলুন ব্যবসায়ী মিনহাজুল ইসলাম রাইজিংবিডিকে বলেন, ‘পুজার প্রথম দিন থেকে হিলিতে বেলুন বিক্রি করে বেড়াচ্ছি। প্রতিদিন ৩০ থেকে ৪০টি বেলুন বিক্রি হয়েছে। তাতে প্রতিদিন ৩০০ থেকে ৪০০ টাকা লাভ হয়েছে।’ 
 

মোসলেম/বকুল

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়