ঢাকা     বুধবার   ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ||  মাঘ ১৯ ১৪২৯

‘স্ত্রীর প্রেমিকের হাতে খুন হন খাজা’

বগুড়া প্রতিনিধি || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:১৮, ২৭ নভেম্বর ২০২২  
‘স্ত্রীর প্রেমিকের হাতে খুন হন খাজা’

স্ত্রীর পরকীয়া প্রেমের বলি হয়েছেন বগুড়ার বৃন্দাবন পূর্বপাড়ায় নিজ বাড়িতে খুন হওয়া জামাল উদ্দিন খাজা (৬৫) নামের ব্যক্তি। ওই ঘটনায় হত্যার সঙ্গে জড়িত মোজাফফর হোসেন নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তারের পর একথা জানিয়েছে পুলিশ। 

গ্রেপ্তার হওয়া মোজাফফর নিহত খাজার আপন ভগ্নিপতি। 

মোজাফফর শাজাহানপুর উপজেলার রানীরহাট এলাকার মৃত অছিমুদ্দীনের ছেলে। 

এর আগে গতকাল শনিবার সকালে শহরের বৃন্দাবন পূর্বপাড়া এলাকায় শয়নঘর থেকে জামাল উদ্দিন খাজার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। পরে বগুড়া সদর এবং শাজাহানপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে মোজাফফরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

বগুড়া ডিবি’র ইনচার্জ সাইহান ওলিউল্লাহ বলেন, ‘গ্রেপ্তার মোজাফফর হত্যার কথা শিকার করেছেন। ঘটনার পর থেকেই জেলা পুলিশের একাধিক টিম জড়িতকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছিলো। আমরা ঘটনার ১২ ঘণ্টার মধ্যেই মূল অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারে সক্ষম হই।’

আরো পড়ুন: নিজ বাড়িতে খুন! 

তিনি আরও বলেন, ‘মোজাফফরের সঙ্গে তার শ্যালক খাজার স্ত্রীর সঙ্গে গত ২ বছর আগে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কিন্তু সম্প্রতি খাজার স্ত্রী ওই সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসতে চান। কিন্তু মোজাফফর তাকে বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকেন। এর মধ্যে গত ২৫ নভেম্বর খাজার বোন আম্বিয়া মারা গেলে খাজা তার স্ত্রী ও সন্তানসহ শাজাহানপুর উপজেলার ফুলদিঘী গ্রামে যান। সেখানে খাজার পরিবারের অন্যান্য লোকজনসহ মোজাফফরও উপস্থিত ছিল। শুক্রবার (২৫ নভেম্বর) ফুলদিঘী থেকে খাজার স্ত্রী তার ছেলে রিমনকে সঙ্গে নিয়ে বাবার বাড়ি সদর উপজেলার চাঁদমোহা হরিপুর খেরুয়াপাড়া যান।’ 

তিনি আরও বলেন, ‘খাজা সন্ধ্যার আগে নিজ বাড়িতে যান। স্ত্রী-সন্তান বাসায় না থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে মোজাফফর ওইদিন রাত পৌণে ৯টার দিকে খাজার বাড়িতে যান। এসময় খাজার সঙ্গে মোজাফফরের কথা কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে মোজাফফর ঘরের মধ্যে থাকা লোহার শাবল দিয়ে খাজার  মাথায় আঘাত করে হত্যা করেন। পরে লাশ কম্বল দিয়ে ঢেকে রেখে শয়নকক্ষের দরজা বাইরে থেকে বন্ধ করে দেওয়াল ডিঙিয়ে কৌশলে পালিয়ে যান।’

সাইহান ওলিউল্লাহ বলেন, ‘মোজাফফরের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।’

এনাম/ মাসুদ

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়