ঢাকা     শুক্রবার   ১৪ আগস্ট ২০২০ ||  শ্রাবণ ৩০ ১৪২৭ ||  ২৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

এক বছরে টাকার মান বেড়েছে সাড়ে ৪ ভাগ

অর্থনীতি ডেস্ক: || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৯:০৩, ১৫ ডিসেম্বর ২০১২  
এক বছরে টাকার মান বেড়েছে সাড়ে ৪ ভাগ

রাইজিংবিডি২৪.কম:

গত এক বছরে ডলারের বিপরীতে টাকার মান বেড়েছে প্রায় সাড়ে ৪ শতাংশ। গত বছরের জানুয়ারির শুরুতে প্রতি ডলার গড়ে ৮৪ টাকা ৫০ পয়সা দরে বিক্রি হলেও ১৩ ডিসেম্বর প্রতি ডলার বিক্রি হয়েছে ৮০ টাকা ৮০ পয়সা দরে। এ সময়ে অংকের হিসাবে টাকার মান বেড়েছে ৩ টাকা ৭০ পয়সা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের এক প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে। সূত্র জানায়, ওই সময়ে সরকারের বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয়ের চেয়ে আয়ের পরিমাণ বেশি বাড়ায় টাকার মান বেড়েছে। কমেছে ডলারের দাম।

গত বছরের শুরুর দিকে বাজারে হঠাৎ করে ডলারের দাম বেড়ে গিয়েছিল। ওই সময়ে প্রতি ডলার বিক্রি হয়েছিল গড়ে ৮৪ টাকা ৫০ পয়সা দরে। গত বছরের জানুয়ারির মাঝামাঝিতে ব্যাংকগুলোতে প্রতি ডলারের দাম বেড়ে ৮৫ টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছিল। রেমিটেন্স প্রবাহ কমে যাওয়া ও আমদানি ব্যয় বেড়ে যাওয়ার কারণে ওই সময়ে বাজারে ডলারের  দাম বেড়ে গিয়েছিল। এর পর কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে বাজারে ডলারের দাম নিয়ন্ত্রণে ব্যাপক উদ্যোগ নেওয়া হয়। একইসঙ্গে জোর দেওয়া হয় রেমিটেন্স প্রবাহ বাড়ানোতে।

গত এক বছরে বিশেষ করে বিলাসবহুল পণ্য আমদানি কমেছে। একইসঙ্গে বেড়েছে রেমিটেন্স প্রবাহ। এতে ডলারের বাজারে স্থিরতা চলে আসে। বৈদেশিক মুদ্রা ব্যয়ের চেয়ে আয়ের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ায় বর্তমানে কেন্দ্রীয় ব্যাংকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি। গত ১২ ডিসেম্বর কেন্দ্রীয় ব্যাংকে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ছিল ১ হাজার ২০৯ কোটি ডলার।

এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. সালেহউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, ‘বর্তমানের টাকার মান বাড়ার সঙ্গে সার্বিক অর্থনীতির মিল নেই। এটা শুধু ডলারের চাহিদা কমার কারণে বেড়েছে। ডলারের চাহিদা কমেছে বিনিয়োগ কমে যাওয়ার কারণে। এটা সার্বিক অর্থনীতির জন্য ভাল লক্ষণ নয়।’

গত ৩০ নভেম্বর ব্যাংকগুলোতে প্রতি ডলারের দাম ছিল ৮১ টাকা ৮৩ পয়সা। একই বছরের ৩০ জুন ছিল ৮১ টাকা ৪০ পয়সা। গত বছরের ডিসম্বের ব্যাংকগুলোতে প্রতি ডলার বিক্রি হয়েছে ৭৮ টাকা ৯৭ পয়সা দরে। এরপর থেকে ডলারের দাম বাড়তে থাকে। এ বছরের ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ডলারের দাম ছিল বেশ চড়া। ওই সময়ে প্রতি ডলার সর্বোচ্চ ৮৫ টাকার উপরে বিক্রি হয়েছে। এরপর থেকে ডলারের দাম কমতে থাকে।

রাইজিংবিডি.কম

সম্পর্কিত বিষয়:

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়