ঢাকা, শনিবার, ৪ মাঘ ১৪২৬, ১৮ জানুয়ারি ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ঠাঁই হয়নি নজরুল স্মৃতির

আশিকুর রহমান : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০১-১৫ ৬:৩৫:০৫ পিএম     ||     আপডেট: ২০২০-০১-১৭ ১২:৪৩:১৬ পিএম

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় ১৪ বছরে পদার্পণ করেছে। সরকারের সামগ্রিক উন্নয়নের অংশ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়টি পিছিয়ে না থাকলেও অনাদর অবহেলায় রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন নজরুলের স্মৃতিধন্য বটগাছটি।

ত্রিশালে নজরুল স্মৃতি বিজড়িত সকল স্থাপনা কর্তৃপক্ষ রক্ষণাবেক্ষণ করলেও বটগাছটি একেবারেই নিগৃহীত। এটি এখন কেবল চায়ের আড্ডাখানায় পরিণত হয়েছে, যেটি কবির মর্যাদা ক্ষুণ্ন করছে। এমনকি বিশ্ববিদ্যালয়ের সীমানায়ও ঠাঁই হয়নি নজরুল বটগাছের।

নজরুল গবেষক এবং বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব নজরুল স্টাডিজের উপ-পরিচালক রাশেদুল আনাম জানান, কালের পরিক্রমায় বটগাছ ব্যতীত নজরুল স্মৃতি বিজড়িত সকল জায়গার পরিবর্তন, পরিবর্ধন ও সংস্কার সাধিত হয়েছে। একমাত্র জীবন্ত কিংবদন্তি হিসেবে ঠাঁয় দাঁড়িয়ে আছে বটগাছটি। যেহেতু নজরুলের নামে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, সেহেতু বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের উচিৎ জমি অধিগ্রহণ করে যথাযথভাবে বটগাছটিকে সংরক্ষণ করা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সৌন্দর্যবর্ধন কমিটির সদস্য সচিব দ্রাবিড় সৈকত বলেন, ‘কবির স্মৃতির সাথে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িয়ে থাকা এ বটগাছটি বাইরে রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ দীর্ঘ মেয়াদি এবং সুপরিকল্পনার অভাব বলে আমি মনে করি। এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সোচ্চার ভূমিকা ও সুবিবেচনার পরিচয় দেয়া উচিৎ ছিল।’

বটগাছকে ব্যতিরেকে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ করায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থীদের মাঝে তীব্র ক্ষোভ বিরাজ করছে। শিক্ষার্থীরা মনে করেন, যথাযথ কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় রমনার বটমূলের মতো হতে পারতো এই নজরুল বটমূল।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য প্রফেসর ড. এ এইচ এম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘বটগাছটিকে অযত্ন, অবহেলার কোনো সুযোগ থাকবে না। কবির স্মৃতিবিজড়িত বটগাছকে যথাযথভাবে পূর্ণ মর্যাদায় আমরা সংরক্ষণ করবো।’

 

জাককানইবি/হাকিম মাহি

     
 

ট্যাগ :