ঢাকা, সোমবার, ২২ আষাঢ় ১৪২৭, ০৬ জুলাই ২০২০
Risingbd
সর্বশেষ:

কীভাবে বেছে নেবেন পছন্দের কলেজ?

ফারহাত মাইশা অর্পা : রাইজিংবিডি ডট কম
     
প্রকাশ: ২০২০-০৬-০৪ ১১:৫৪:৩৪ এএম     ||     আপডেট: ২০২০-০৬-০৪ ১২:১১:৫১ পিএম

নানা শঙ্কার মধ্য দিয়ে ৩১ মে প্রকাশিত হয় এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল। এবার এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণের পর ভালো মানের কলেজে ভর্তির চিন্তা চেপে বসেছে সদ্য পাস করা শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের মধ্যে।

একদিকে অনেকেরই ধারণা ভালো কলেজে ভর্তি হতে পারলে পরবর্তী সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির ক্ষেত্রে সহায়ক ভূমিকা রাখবে। অন্যদিকে সারাদেশে ভালো মানের কলেজে আসনসংখ্যা ১ লাখ হলেও এবছর জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে ১ লাখ ৩৫ হাজার ৮৯৮ জন। ফলে অনেকেই সুযোগ পাবে না প্রথম সারির প্রতিষ্ঠানগুলোতে ভর্তি হওয়ার। এ নিয়ে ভালো মানের কলেজে ভর্তির ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের মধ্যে তুমুল প্রতিযোগিতার সৃষ্টি হবে। তাই কলেজ নির্বাচনে প্রতিটি শিক্ষার্থীরই গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে।

কলেজ নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রাথমিকভাবে কলেজের শিক্ষার মান, পাঠদান পদ্ধতি, শিক্ষকদের সম্পাদনা, কলেজের পরিবেশ, বিগত বছরের ফলাফল, সুযোগ-সুবিধা সমূহ, পড়ালেখার চাপ, পরীক্ষা পদ্ধতি, দূরত্ব এবং আর্থিক বিষয়ের প্রতি নজর আরোপ করতে হবে।

কলেজ নির্বাচনের ক্ষেত্রে যে মূল বিষয়গুলোতে প্রাধান্য দিতে হবে:

১. কলেজ নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রথমেই উক্ত প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার মান যাচাই-বাছাই করতে হবে। আমাদের দেশের অভিভাবকদের মধ্যে একটি ভ্রান্ত ধারণা প্রচলিত আছে। ভালো কলেজে ভর্তি হতে পারলেই ফলাফল ভালো হবে এবং পরবর্তী সময়ে ভালো ভার্সিটিতে ভর্তি হওয়া যাবে। কিন্তু বিশেষজ্ঞরা মনে করেন এ ধারণা ঠিক নয়। বরং মনোযোগ দিয়ে পড়াশোনা করলেই উচ্চ মাধ্যমিকে ভালো ফলাফল করা সম্ভব হবে এবং এক্ষেত্রে কলেজ কোনো বিশেষ ভূমিকা রাখবে না। তাই অবশ্যই কলেজে নির্বাচনের ক্ষেত্রে শিক্ষার মানকেই অধিক প্রাধান্য দিতে হবে।

২. কলেজ নির্বাচনের ক্ষেত্রে অবশ্যই দূরত্বকে প্রাধান্য দিতে হবে। উচ্চ মাধ্যমিকের প্রস্তুতির জন্য শিক্ষার্থীরা মাত্র ১৮ মাস সময় হাতে পেয়ে থাকে, কিন্তু সে তুলনায় পাঠ্যসূচি থাকে অত্যন্ত বিশাল। তাই কোনোভাবেই এ সময় অপচয় করা চলবে না। ভালো কলেজে ভর্তি হওয়াকে প্রাধান্য দিতে গিয়ে অনেক শিক্ষার্থীই দূরদূরান্তের কলেজ নির্বাচন করে থাকে। ফলে যাতায়াতে ৫/৬ ঘণ্টা কিংবা এর চেয়ে ও বেশি সময় লেগে যায়। এক্ষেত্রে সারাদিন কলেজ এবং যাতায়াত মিলে শিক্ষার্থীরা ক্লান্ত হয়ে পড়ে এবং দিনের পড়া দিনে শেষ করতে না পারায় হিমশিম খায় এবং পরীক্ষার সময়ে বিপাকে পড়ে যায়। এছাড়া যাতায়াতে আর্থিক খরচের ব্যাপারটিও রয়েছে। তাই কলেজ নির্বাচনে বাসার সবচেয়ে কাছের কলেজটিকেই প্রাধান্য দিতে হবে।

৩. উচ্চমাধ্যমিকে বিভাগ নির্বাচনেও যথেষ্ট গুরুত্ব দিতে হবে। যারা বিজ্ঞান বিভাগ থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছে, তারা ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা মোতাবেক বিভাগ নির্বাচন করলে অধিক উপকারী হবে। উচ্চমাধ্যমিকে বিজ্ঞান বিভাগ নির্বাচনের জন্য অবশ্যই পড়ুয়া শিক্ষার্থী হতে হবে। কারণ, উচ্চমাধ্যমিকে পাঠ্যসূচি যত বড় সময় ততই কম। তাই এ চাপ সামলাতে না পারলে পরবর্তী সময়ে পোহাতে হবে বাড়তি দুর্ভোগ। আর যারা বিজ্ঞান বিভাগ থেকে আশানুরূপ ফলাফল করতে পারেনি, তারা ব্যবসা শিক্ষা শাখা অথবা মানবিক শাখায় ভালো ফলাফল করতে পারবে। এই সময়ে বিভাগ নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই এ ব্যাপারে সঠিক সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে।

৪. আমরা প্রথমেই বুঝতে পারি না, কোন কোন কলেজ চয়েজ দিবো। এ ব্যাপারে পর্যাপ্ত জ্ঞান না থাকার কারণে হাত ছাড়া হতে পারে ভালো কলেজে ভর্তির সুযোগ। তোমার প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে কোন সারির কলেজগুলোকে তালিকাভুক্ত করবে, তা নিশ্চিত করতে হবে। যদি তোমার প্রাপ্ত নম্বর বেশি হয়, তাহলে প্রথম সারির কলেজগুলো নির্বাচন করবে। তোমার প্রাপ্ত নম্বর যদি মোটামুটি ভালো হয় তাহলে সেই মানের কলেজ নির্বাচন করবে।

সব কলেজই একটি নির্দিষ্ট নম্বর এবং জিপিএ এর তালিকা প্রকাশ করে। অবশ্যই সেগুলো অনুসরণ করবে। কারণ, তোমার নম্বর যদি বেশি না হয় তাহলে সেই মানের কলেজগুলো নির্বাচন করো না। এতে করে পরবর্তী সময়ে জিপিএ-৫ পেয়েও বাদ পড়ে যাবে। এছাড়া অনেক ভালো কলেজের আসন পূর্ণ হয়ে যাবে নিজ কলেজের শিক্ষার্থী দিয়ে। তাই সে কলেজগুলো তালিকাভুক্ত করে ১টি আবেদন নষ্ট করো না। এ বছর থাকছে না এসএমএসের মাধ্যমে আবেদনের সুযোগ। একজন শিক্ষার্থী অনলাইনে কমপক্ষে ৫টি এবং সর্বোচ্চ ১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে আবেদনের সুযোগ পাবে। তবে বেশি সংখ্যক আবেদন না করে কমসংখ্যক আবেদন করলেই উপকৃত হবে।

৫. জুন থেকে একাদশ শ্রেণির ভর্তি কার্যক্রম শুরু করার প্রাথমিক সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও করোনা পরিস্থিতির কারণে স্থগিত করা হয়েছে ভর্তি কার্যক্রম। উচ্চমাধ্যমিক স্তরটি একজন শিক্ষার্থীর জীবনে খুবই গুরুত্বপূর্ণ, যার উপর নির্ভর করবে ভবিষ্যৎ জীবনের সফলতা। তাই পছন্দের তালিকায় কোন কোন কলেজগুলো রাখবে এ ব্যাপারে অবশ্যই সচেতন থাকতে হবে এবং গুরুত্বপূর্ণ  সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে।

লেখক: শিক্ষার্থী, ধানমণ্ডি আইডিয়াল কলেজ।

 

ঢাকা/হাকিম মাহি