RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ২৫ অক্টোবর ২০২০ ||  কার্তিক ১০ ১৪২৭ ||  ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

দুর্বৃত্তায়নের কবলে পেঁয়াজের বাজার

জুয়েল মামুন || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ০৩:০২, ১৫ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ০৫:২২, ৩১ আগস্ট ২০২০
দুর্বৃত্তায়নের কবলে পেঁয়াজের বাজার

মাত্র চার মাস আগেও পেঁয়াজের দাম ছিল কেজি প্রতি ৩০ থেকে ৪০ টাকা। এমন সময় জানা গেল ভারত আমাদের পেঁয়াজ দিবে না। এই খবরেই চাঙ্গা হয়ে গেল পেঁয়াজের বাজারের দুর্বৃত্তরা। তারপর থেকেই তাদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়েন সাধারণ ভোক্তারা।

পেঁয়াজের দাম হামাগুড়ি দিয়ে বাড়ছে না, বাড়ছে উল্লম্ফন গতিতে। কিন্তু কেন? দেশে বছরে মোট পেঁয়াজের চাহিদা প্রায় ২৪ লাখ টন। গত অর্থ বছরে দেশে উৎপাদিত হয়েছে প্রায় ২৬ লাখ ২০ হাজার টন পেঁয়াজ। সে হিসেবে ২ লাখ ২০ হাজার টন পেঁয়াজ বেশি থাকার কথা। আবার এনবিআর বলছে, গত অর্থবছরে দেশে আমদানি কৃত পেঁয়াজের পরিমাণ  প্রায় ১১ লাখ ৩৬ হাজার টন। সে হিসাবে প্রায় ১৩ লাখ ৫৬ হাজার টন পেঁয়াজ উদ্ধৃত থাকার কথা। যদি পেঁয়াজের বার্ষিক ঘাটতি ৫ লাখ টন হয় তবুও বাজারে চাহিদার তুলনায় বেশি পেঁয়াজ থাকার কথা ৫ লাখ টন পেঁয়াজ। তাহলে কেন এই পেঁয়াজের বাজারে আগুন ? নিম্নবিত্ত মানুষের পকেট কাঁটা হচ্ছে আর সম্পদ পুঞ্জিভূত করছে ধনীক দুর্বৃত্ত ব্যবসায়ী শ্রেণি।

সরকার বারবার পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে রাখার কথা বললেও ফলাফল শূন্যের কোঠায়। সরকার থেকে দাবি করা হচ্ছে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে, অথচ সাধারণ মানুষ কিনতে গিয়ে হাঁসফাঁস করছেন। কনজুমার ওয়াচ এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে বিগত চারমাসে ৩২’শ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে পেঁয়াজের সিন্ডিকেট। অথচ আমাদের বাণিজ্য মন্ত্রণালয় দাবি করছে পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণে আছে।

পেঁয়াজের বাজারে দুর্বৃত্তদের উত্থান হয়েছে। দুর্বৃত্তদের যদি এখন থামানো না যায়, তাহলে সাথে অন্যান্য পণ্যের বাজার লাঘামহীন পাগলা ঘোড়ার মতো ছুটতে থাকবে। দিশেহারা হয়ে মূল্য রোধের দাবিতে রাস্তায় নামবে সাধারণ জনতা।  দেশে আবার অস্থিতিশীল অবস্থা বিরাজ করবে, যা কারোই কাম্য নয়।

বন্ধুরাষ্ট্র পাশে থাকলে বিষয়টি অন্যরকমও হতে পারতো, বাংলাদেশে পেঁয়াজের হাহাকার অথচ উল্টেচিত্র সে দেশে। পেঁয়াজের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছে না কৃষকরা। বাউন্ডারির কাঁটাতারই কি তাহলে এই ভূখণ্ডের মানুষের জন্য কাল হয়ে দাঁড়ালো?

সরকারকে বারবার ব্যবসায়ীদের এই অবৈধ সিন্ডিকেটের কাছে নতজানু হতে দেখা গেছে। পণ্যের দাম হঠাৎ বেড়ে গেছে, তবু সরকার অসহায়। কেন অসহায়? সহজ উত্তর, এখন ব্যবসায়ীদের হাতে শুধু ব্যবসা নেই, রাজনীতিটাও তাদের পকেটে।

পেঁয়াজের দামের বোঝা আর কতদিন বইতে হবে জানেন না কেউ! পেঁয়াজের মূল্য নিয়ন্ত্রণের কাজ করছে সরকারের ১০টি মনিটরিং টিম। এতে করে কার লাভ হয়েছে?  কমছে কি পিয়াজের দাম? বরং খুচরা বাজারে পেঁয়াজ ডাবল সেঞ্চুরি হাকিয়েছে।

ভোক্তাদেরকে এইভাবে ফাঁদে না ফেলে সরকারের উচিৎ পেঁয়াজ বিপ্লব ঘটিয়ে এদেশের কৃষক, নিম্ন আয়ের মানুষ, সাধারণ ভোক্তাদের রক্ষা করা।

লেখক: শিক্ষার্থী, অর্থনীতি বিভাগ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়।

 

রাবি/হাকিম মাহি

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়