RisingBD Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৮ নভেম্বর ২০২০ ||  অগ্রাহায়ণ ১৪ ১৪২৭ ||  ১১ রবিউস সানি ১৪৪২

ক্যাম্পাসে আলোচনার তুঙ্গে ‘গবিসাস আলাপন’

রাকিবুল হাসান || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১২:০৫, ২২ মে ২০২০   আপডেট: ১০:৩৯, ২৫ আগস্ট ২০২০
ক্যাম্পাসে আলোচনার তুঙ্গে ‘গবিসাস আলাপন’

করোনায় নিস্তব্ধ গোটা দেশ। সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মতো দীর্ঘদিন যাবত বন্ধ সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয় (গবি)। এই সময়ে বাড়িতে বিরক্তিকর উঠেছে শিক্ষার্থীদের জীবন। এরই মাঝে চলছে গল্প, আড্ডায় আনন্দঘন আলাপন। পাশাপাশি, কিন্তু শত শত মাইল দূরে তাদের অবস্থান। অজানা কথাও জানা যায় প্রশ্ন করে।

গবি শিক্ষার্থীদের অলস সময়কে কিছুটা আনন্দঘন করে তুলতে ক্যাম্পাস সাংবাদিকদের সংগঠন গণ বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (গবিসাস) আয়োজন করেছে বিশেষ ফেসবুক লাইভ অনুষ্ঠান ‘গবিসাস আলাপন’। আর এই লাইভ অনুষ্ঠানই উপরোক্ত আড্ডা, গল্পের রহস্য।

গত ১৫ মে সংগঠনটির ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি গবিসাস আলাপনের প্রথম পর্ব অনুষ্ঠিত হয়। ক্যাম্পাসের সাবেক ও বর্তমান জনপ্রিয় মুখদের নিজেদের কার্যক্রম, করোনা সংলাপ, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন দিক, অনলাইনে ক্লাস-পরীক্ষাসহ জানা অজানা বিভিন্ন কথা শিক্ষার্থীদের জানাতেই এ উদ্যোগ নিয়েছে আয়োজকরা।

এ বিষয়ে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মো. রোকনুজ্জামান মনি বলেন, ‘মূলত করোনার সময়কে অর্থবহ করে তোলাই আমাদের উদ্দেশ্য। এজন্য আমরা ক্যাম্পাসের বর্তমান জনপ্রিয়দের পাশাপাশি সাবেক শিক্ষার্থীদের অতিথি হিসেবে রাখছি। যাতে নতুন শিক্ষার্থীরা তাদের অবদান সম্পর্কে জানতে পারে।’

সংগঠনটির দায়িত্বশীল সূত্রে জানানো হয়, পরিস্থিতি বিবেচনা করে ঈদের পরেও এ আয়োজন চলমান রাখার পরিকল্পনা আছে। এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্জনগুলোকে তুলে ধরার চেষ্টা করা হচ্ছে। সামনের পর্বগুলোতে দর্শকদের জন্য বিভিন্ন চমক রাখার কথা জানান তারা।

জানা যায়, গণ বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো আয়োজিত ব্যতিক্রমধর্মী এই লাইভ অনুষ্ঠান শুরুর দিন থেকেই ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীদের মাঝে দারুণ সাড়া ফেলতে সক্ষম হয়েছে। গবিসাস নেতৃবৃন্দের সঞ্চালনায় প্রতিদিন বিকাল ৫টায় তাদের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ থেকে সরাসরি অনুষ্ঠানটি লাইভ করা হচ্ছে। এতে প্রতিদিন ৩ জন করে অতিথি থাকছেন।

গবিসাস আলাপন নিয়ে জানতে চাইলে প্রাণরসায়ন ও অনুপ্রাণ বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী সুপর্ণা রহমান টুছি বলেন, ‘বাসায় বসে সবাইকে নতুন করে জানতে পারছি। এটা আমাদের ব্যস্তময় জীবনে কাজের ভিড়ে সম্ভব হতো না। ধন্যবাদ গবিসাসকে এমন অনুষ্ঠানের আয়োজন করার জন্য।’

মেডিকেল ফিজিক্স অ্যান্ড বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ৮ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থী তন্ময় নাথ বলেন, ‘অবশ্যই ভালো উদ্যোগ নিঃসন্দেহে। নতুন করে চিন্তা-ভাবনা করার মুক্ত প্ল্যাটফর্ম এটি। গবিসাস সবসময় ভিন্ন আঙ্গিকে কাজ করে। বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্জন, সমস্যা ও সমাধানে মুক্ত আলোচনার পথ খুলে দিয়েছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইলেক্ট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী আবু মুহাম্মদ রুইয়াম বলেন, ‘সংগঠনটি সফল তার ব্যতিক্রমী কাজের মাধ্যমে। তেমনি একটি ব্যতিক্রমী কার্যক্রম 'গবিসাস আলাপন'। দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও এই অনুষ্ঠান দেখছে প্রতিদিন। আসলেই এটি একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ।’

সার্বিক বিষয়ে কথা হয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মীর মুর্ত্তজা আলী বাবুর সাথে। গবিসাস আলাপন অনুষ্ঠানের বিষয়ে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়ে তিনি বলেন, ‘বিষয়গুলো আরও সুচিন্তিত হওয়া প্রয়োজন। অনেক হালকা প্রশ্ন করা হচ্ছে। তোমাদের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন যারা সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে সম্পর্কিত ছিল তাদের আনতে পারো।’

তিনি আরও বলেন, ‘ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি, জিএসকে কাজে লাগাতে পারো। তাদের সময়ের ক্যাম্পাস আর এখনকার ক্যাম্পাসে অনেক পরিবর্তন হয়েছে। আরও কি কি ইতিবাচক পরিবর্তন আনা যায়, সে বিষয়ে প্রশ্ন করতে পারো।’

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক ইতিবাচক ও নেতিবাচক দিক রয়েছে। সে বিষয়েগুলো উপস্থাপন করা যেতে পারে। দেশের অন্য কোনো বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র সংসদ নেই। এমন কি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়া অন্য কোনো সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়েও ছাত্র সংসদ চালু নেই এখন। এটা থাকা প্রয়োজন আছে কী নেই, তা আলোচনা করতে পারো।’


গবি/হাকিম মাহি

রাইজিংবিডি.কম

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়