Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ০৮ মে ২০২১ ||  বৈশাখ ২৫ ১৪২৮ ||  ২৫ রমজান ১৪৪২

শিক্ষার্থীরা যেভাবে ‘নোটারি’ করাবেন   

মো. মঈন উদ্দিন সাব্বির || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৬:১৩, ৮ এপ্রিল ২০২১   আপডেট: ১৭:৫৮, ৮ এপ্রিল ২০২১
শিক্ষার্থীরা যেভাবে ‘নোটারি’ করাবেন   

নোটারি নামটির সঙ্গে আমরা কমবেশি সবাই পরিচিত। তবে এটির কাজ কী, কেন করতে হয়, কোথা থেকে করতে হয় এসম্পর্কে পরিপূর্ণ তথ্য জানা নেই অনেকেরই। বিস্তারিত জানা না থাকায় বহু ক্ষেত্রেই সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় তাদের। বিদেশে পড়ালেখা করতে হলে শিক্ষার্থীদেরও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নোটারি করার প্রয়োজন পড়ে। 

জার্মানিসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে উচ্চশিক্ষার জন্য আবেদন করার ক্ষেত্রে কাগজপত্র সত্যায়িত করা অনেক ক্ষেত্রেই বাধ্যতামূলক। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নোটারি করার পদ্ধতি কিছুটা ভিন্ন হলেও সব দেশেই একটি সাধারণ গাইডলাইন ফলো করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়গুলো এসব নিয়ম তাদের ওয়েবসাইটে স্পষ্ট করে উল্লেখ করে দেয়, যা শিক্ষার্থীদের ভর্তির আবেদনের আগে খেয়াল রাখতে হয়।  

নোটারি কী?

নোটারি হচ্ছে কাগজপত্রের সত্যতা যাচাইয়ের একটা পদ্ধতি। তবে এটেস্টের সঙ্গে এর পার্থক্য হলো নোটারি করাতে হয় আইনজীবীর কাছ থেকে।  শুধু আইনজীবীর সিল দিলেই হয় না, লাল রাবার টাইপ গোলাকার কাগজ নোটারি পাবলিকের ছাপসহ ডকুমেন্টগুলোতে আঠা দিয়ে লাগাতে হয়। জমিজমা সংক্রান্ত দলিল-দস্তাবেজ, যেকোনো হলফনামা, অঙ্গীকারনামা, বিয়ে, বিবাহবিচ্ছেদ, গাড়ি বেচাকেনা, শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, চারিত্রিক সনদ, জন্ম-মৃত্যুর সনদ, বিদেশে নাগরিকত্বের জন্য আবেদন, শিক্ষার্থীদের জন্য একাডেমিক কাগজপত্রসমূহ প্রভৃতি বিষয় নোটারি দিয়ে সত্যায়িত করা বাধ্যতামূলক। 

কোথায় করা হয়?

সাধারণত কোনো আইনজীবী, যাদের নোটারি করার সনদ রয়েছে, তাঁদের মাধ্যমে এই কাজ সম্পাদন করাতে হয়। আদালতপাড়ায় গেলে এমন আইনজীবীদের সহজেই সন্ধান মেলে। এ কাজের সঙ্গে যুক্ত আইনজীবীদের সাইনবোর্ডে “নোটারি আইনজীবী” লেখা থাকে। সাধারণত কোনো ব্যক্তি যিনি কমপক্ষে সাত বছর আইনজীবী হিসেবে কর্মরত আছেন অথবা বিচার বিভাগের সদস্য হিসেবে কমপক্ষে পাঁচ বছর কর্মরত ছিলেন এবং সরকারের আইন প্রণয়ন কাজে নিয়োজিত এমন ব্যক্তি নোটারি করার কাজে সনদ পাবার যোগ্য। সরকারিভাবে নিয়োজিত ব্যক্তিদের আইন অনুযায়ী ক্ষমতা, কার্যাবলী, বেতন ভাতা ইত্যাদি সুনির্দিষ্ট করা থাকে।

যেভাবে নোটারি করতে হয়

নোটারি করতে গেলে আইনজীবী মূল কাগজপত্র যাচাই করে দেখবেন এবং তিনি নিশ্চিত হলেই তা সত্যায়িত করবেন। মূল কাগজপত্র বলতে বোঝানো হচ্ছে শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদ, জন্ম সনদ, চারিত্রিক সনদ ইত্যাদি। আর আপনি যদি বিয়ে, তালাক কিংবা হলফনামা তৈরি করতে চান, তাহলে উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে আপনার নোটারি করতে হবে। 

নোটারি করতে যেমন খরচ হয়

নোটারি করার জন্য সরকারের নির্ধারিত ফি রয়েছে। সত্যায়নের জন্য ১০ টাকা, যে কোনো স্ট্যাম্পে হলফনামা বা চুক্তিপত্রের ক্ষেত্রে ২০-২৫ টাকা খরচ হয়।

নোটারি কি অরিজিনাল কপিতে করতে হয়?

অবশ্যই ফটোকপি নিয়ে যেতে হবে। ভালো অফসেট কাগজে ফটোকপি করিয়ে নিতে হয়। অরিজিনাল ডকুমেন্টসগুলো সঙ্গে রাখতে হয় আইনজীবীর দেখার সুবিধার জন্য। শিক্ষার্থীদের জন্য অরিজিনাল কাগজে ভুলেও আচড় পড়তে দেওয়া যাবে না। এমনকি যত্ন করে লেমেনেটিং করানো যাবে না।

শিক্ষার্থীদের কি কি নোটারি করতে হবে?

সার্টিফিকেট, ট্রান্সক্রিপ্টস, ন্যাশনাল আইডি কার্ড, জন্মসনদ। 

কত দিন সময় লাগে?

কাগজপত্র সব ঠিক থাকলে বড়জোড় ৫-১০ মিনিট।

নোটারি করা কপিতে কি কি দেওয়া থাকে?

Attested seen the original লেখা সিল, তারিখের সিল, আইনজীবীর সিল ও লাল কাগজে নোটারির লোগো। ডকুমেন্টসের উপরে আইনজীবী Authenticity Certificateদিবেন, যেখানে তিনি ইংরেজিতে ক্লেইম করবেন, যে তিনি সব অরিজিনাল ডকুমেন্টস দেখে নোটারি করেছেন। নোটারি শেষে তিনি ডকুমেন্টস একত্রে স্টেপল করে দেবেন।

ঢাকা/মাহি  

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়