Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     শনিবার   ২৪ জুলাই ২০২১ ||  শ্রাবণ ৯ ১৪২৮ ||  ১২ জিলহজ ১৪৪২

একাডেমিক রেজাল্ট ভালো না থাকা সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রের পথে আশুতোষ

আন্তর্জাতিক ক্যাম্পাস ডেস্ক || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:১৭, ২৪ জুন ২০২১   আপডেট: ১৪:৩০, ২৪ জুন ২০২১
একাডেমিক রেজাল্ট ভালো না থাকা সত্ত্বেও যুক্তরাষ্ট্রের পথে আশুতোষ

সংসার ও চাকরির ব্যস্ততার মাঝেও নিজের স্বপ্ন পূরণে এগিয়ে চলেছেন আশুতোষ নাথ। সবকিছু ঠিক থাকলে শিগগিরই যুক্তরাষ্ট্রের পথে যাত্রা করছেন তিনি। মেডিসিন অ্যান্ড সিনথেটিক অর্গানিক কেমিস্ট্রিতে পূর্ণবৃত্তিসহ পিএইচডি করতে যাচ্ছেন বোস্টনের ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুসেটসে। পাশাপাশি পাচ্ছেন টিচার অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে কাজ করার সুযোগ।

ছোট থেকেই বিজ্ঞানী হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন আশুতোষ, ইচ্ছা ছিল রসায়নের গবেষণাবিদ হওয়ার। তবে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক সম্পন্ন করা আশুতোষকে সর্বদাই শুনতে হয়েছে 'ভাল প্রতিষ্ঠান থেকে পড়ালেখা না করলে জীবনে সফলতার পথ উন্মুক্ত হয় না’। অথচ হতাশ না হয়ে, সমাজের এসব কথাকে বুড়ো আঙ্গুল দেখিয়ে নিজ মেধা, শ্রম ও প্রবল আত্মবিশ্বাসের উপর ভিত্তি করে স্নাতকোত্তর পর্যায়ে সুযোগ পেয়েছিলেন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে।

পূর্নবৃত্তিতে পিএচডির সুযোগ পাওয়া প্রসঙ্গে আশুতোষ বলেন, ‘আমার একাডেমিক রেজাল্ট হয়তো ভালো না, কিন্তু জার্নালে প্রকাশিত গবেষণাপত্রগুলোই আমাকে সাহায্য করেছে। এখন পর্যন্ত আমার ৩টি রিসার্চ পেপার প্রকাশিত হয়েছে। বুয়েটের অধ্যাপক মো. ওহাব খান আমার সুপারভাইজার ছিলেন। তিনিই আমাকে সবচেয়ে বেশি সহায়তা ও অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। আমি উনার প্রতি অশেষ কৃতজ্ঞ।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি কখনো কল্পনাও করিনি যে এই পর্যন্ত আসতে পারব, ভাবলেই শিহরণ জাগে। হয়ত জীবন নিয়ে আমার বড় স্বপ্ন, একাগ্রতা ও লেগে থাকাই আমাকে সাহায্য করেছে। এই বছরের সেপ্টেম্বরের শুরুতে ক্লাস শুরু হবে। ইতোমধ্যে ভিসা পেয়েছি, আশা করছি সব ঠিক থাকলে আগস্টের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশ্যে রওনা হবো।’

ছোটবেলা থেকেই অভাব ও অর্থকষ্টকে খুব কাছ থেকে দেখেছেন আশুতোষ। তিনি খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি থানার পান্নাবিল গ্রামের বাসিন্দা। ২০০৮ সালে  মানিকছড়ির রানী নীহার দেবী সরকারি উচ্চবিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক এবং ২০১০ সালে গিরী মৈত্রী কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেন। ২০১৪ সালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে চট্রগ্রাম হাজী মোহাম্মদ মহসিন কলেজ থেকে রসায়নে স্নাতক সম্পন্ন করে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্সে ভর্তি হন। বর্তমানে তিনি কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে কর্মরত রয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেলের অফিসে।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েও নিজ কর্মপ্রচেষ্টা ও আত্মবিশ্বাসে এমন সফলতা অর্জনে অবাক হয়েছেন দেশের বহু মানুষ।আশুতোষের এমন সফলতাকে অনুপ্রেরণা হিসেবে দেখছেন দেশের হাজারো তরুণ শিক্ষার্থী।

ঢাকা/সাব্বির 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়