Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     মঙ্গলবার   ১৯ অক্টোবর ২০২১ ||  কার্তিক ৩ ১৪২৮ ||  ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শতাধিক শিক্ষার্থীর পাশে জাককানইবি ছাত্রলীগ নেতা অনিক  

জাককানইবি সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৩:২৭, ৩ জুলাই ২০২১   আপডেট: ১৩:৫৫, ৩ জুলাই ২০২১
শতাধিক শিক্ষার্থীর পাশে জাককানইবি ছাত্রলীগ নেতা অনিক  

করোনাকালে শিক্ষার্থীদের সহযোগিতায় এগিয়ে আসার কারণে প্রশংসায় ভাসছেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা মো. মোজাম্মেল হক অনিক। বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ অনুষদের সাবেক এই সভাপতি প্রায় দেড় বছর ধরে শতাধিক শিক্ষার্থীর ব্যবহৃত ব্যক্তিগত জিনিসপত্র নিজের ভাড়া বাসায় রেখে রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পালন করছেন।

মহামারির কারণে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় দীর্ঘ দিন ধরেই শিক্ষার্থীরা নিজ বাড়িতে অবস্থান করছেন। বন্ধ ক্যাম্পাসে ছাত্রাবাসে না থেকেও প্রতিমাসেই শিক্ষার্থীদের মেসভাড়া বহন করতে হচ্ছিল। এমন সময় শিক্ষার্থীদের ব্যক্তিগত মালামাল নিজ বাসায় রাখেন ছাত্রলীগ নেতা মোজাম্মেল হক অনিক। মেসে না থাকা সত্ত্বেও শিক্ষার্থীদের যাতে অযথা ভাড়া দিতে না হয়, সেজন্য নিজের ভাড়া বাসায় শতাধিক শিক্ষার্থীর ব্যবহৃত জিনিসপত্র রেখে প্রতিনিয়ত সেগুলো দেখাশোনা করছেন এবং প্রতিমাসেই এই ভাড়া বাসার ব্যয় বহন করে যাচ্ছেন। এতে শিক্ষার্থীরা একদিকে যেমন আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছেন, অন্যদিকে তাদের জিনিসপত্রগুলোও সুরক্ষিত থাকছে।

মোজাম্মেল হক অনিকের এমন উদ্যোগে উপকৃত হয়ে তার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের ২০১৮-১৯ সেশনের শিক্ষার্থী রিমা আক্তার বলেন, দুর্যোগকালীন সময়ে তার এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসা পাওয়ার দাবি রাখে। আমরা চাই এমন একজন মানুষ আগামীতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের নেতৃত্বে আসুক।

ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের ২০১৯-২০ সেশনের শিক্ষার্থী নাজমুন নাহার আন্নি বলেন, বন্ধের মধ্যে আমার জিনিসপত্রগুলো কোথায় রাখবো, তা নিয়ে আমি চিন্তিত ছিলাম। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর স্যার তখন আমাকে অনিক ভাইয়ের ফোন নম্বর দিয়ে তার বাসায় এগুলো রাখতে বলেন।  অনিক ভাইয়ের প্রতি আমি কিভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করবো, তা ভাষায় প্রকাশ করতে পারছি না।

এমন সহযোগিতামূলক কাজের প্রশংসা করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ড. উজ্জল প্রধান বলেন, এটি একটি মহৎ কাজ। দুর্ভোগের সময় তিনি শিক্ষার্থীদের এবং বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করেছেন। আমি মনে করি, এটি একটি অনুকরণীয় এবং অনুসরণ করার মতো প্রশংসনীয় কাজ।

এবিষয়ে নিজের ব্যক্তিগত অনুভূতি জানতে চাইলে অনিক বলেন, রাজনীতির মূল লক্ষ্য সেবা দেওয়া। আমি সেবাই দিয়ে যেতে চাই।

ফাহাদ/মাহি  

সর্বশেষ