Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     বৃহস্পতিবার   ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২৫ ১৪২৮ ||  ০৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

দেড় বছর পর রাবিতে সশরীরে ক্লাস শুরু

রাবি সংবাদদাতা || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১১:৪৯, ২১ অক্টোবর ২০২১  
দেড় বছর পর রাবিতে সশরীরে ক্লাস শুরু

দীর্ঘ দেড় বছর পর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) সশরীরে ক্লাস শুরু হয়েছে৷ 

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) সকাল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শ্রেণিকক্ষে সশরীরে পাঠদান শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিতে প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে বিভাগ ও ইনস্টিটিউটগুলো।

এতদিন অনলাইনে ক্লাস চললেও এখন থেকে সশরীরে শ্রেণিকক্ষে উপস্থিত হয়ে ক্লাস ও পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। এছাড়া গত ১৭ অক্টোবর শিক্ষার্থীদের জন্য সব আবাসিক হল খুলে দেওয়া হয়েছে। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দপ্তর জানায়, কোভিড-১৯ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে অন্তত এক ডোজ টিকা নেওয়ার শর্তে ও মানসম্মত পরিচালনা পদ্ধতি সামনে রেখে নিয়মিত ক্লাস পরিচালিত হবে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ফখরুল ইসলাম বলেন, ‌‘গত দেড় মাস ধরে আমার অনুষদের বিভিন্ন বিভাগে পরীক্ষা চলছে। তাই সব কক্ষ খোলা এবং পরিষ্কার রয়েছে। এতে শিক্ষার্থীরা আসার পরই ক্লাস করার পরিবেশ পাবে৷ তবে প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে অবশ্যই মাস্ক পরে আসতে হবে। আর ক্লাসরুমে হ্যান্ড স্যানিটাইজার থাকবে যার প্রয়োজন সে ব্যবহার করবে।’

প্রকৌশল অনুষদের অধিকর্তা অধ্যাপক একরামুল হামিদ বলেন, ‘আমার অনুষদের প্রায় সব বর্ষেই পরীক্ষা চলছে। তাই আমাদের মূল লক্ষ্য থাকবে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে আসলেই তাদের প্র্যাকটিকাল (ব্যবহারিক) পরীক্ষাগুলো নেওয়ার। কারণ, আমাদের দুইটা সেমিস্টারের ক্লাস নেওয়া আছে। তাই যতটা সম্ভব প্র্যাকটিকালগুলো নিয়ে রাখতে হবে। যাতে আবার করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়লে যেন প্র্যাকটিকালের জন্য পরীক্ষা পিছিয়ে না থাকে।'

তিনি আরও বলেন, ‘এই অনুষদের প্রত্যেকটি বিভাগে মাস্ক এবং স্যানিটাইজার পাঠানো হয়েছে। যাতে ক্লাসে স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত থাকে।’

এদিকে দীর্ঘ দিন পর ক্লাসে ফিরে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করছেন শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী শাহাবুদ্দিন বিজয় বলেন, ‘দেড় বছরেরও বেশি সময় বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকার কারণে শিক্ষার্থীরা দীর্ঘ সেশনজটের মুখে পড়েছে। হল খোলার পর ক্লাস পরীক্ষা শুরু হওয়া আমাদের জন্য আনন্দের বিষয়। আমরা দীর্ঘ সেশনজটের কবল থেকে রক্ষা পাব হয়তো।’

বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী ইশতিয়াক আহমেদ বলেন, ‘অনেক দিন পর বন্ধুদের সাথে বসে ক্লাস করতে পারছি। এটি অনেক আনন্দের।’

সাইফুর/মাহি 

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়