Risingbd Online Bangla News Portal

ঢাকা     রোববার   ০৫ ডিসেম্বর ২০২১ ||  অগ্রহায়ণ ২১ ১৪২৮ ||  ২৮ রবিউস সানি ১৪৪৩

শেকৃবিতে বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা

মেহেদী হাসান, শেকৃবি  || রাইজিংবিডি.কম

প্রকাশিত: ১৪:১৩, ২৬ অক্টোবর ২০২১   আপডেট: ১৪:৩০, ২৬ অক্টোবর ২০২১
শেকৃবিতে বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা

দেশে করোনার সংক্রমণ যখন কমছে, তখন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ডেঙ্গুর প্রকোপ। দীর্ঘদিন ধরে শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় (শেকৃবি) বন্ধ থাকার পরে পয়লা অক্টোবর থেকে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীরা আসতে শুরু করে এবং কার্যক্রম সচল হয়। কিন্তু ক্যাম্পাসে আসার পর থেকেই শিক্ষার্থীদের মাঝে অনেকেই ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে পড়েন।

সম্প্রতি ভয়াবহ রূপ নিয়েছে ঢাকার দুই সিটিতে ডেঙ্গু পরিস্থিতি। বিশ্ববিদ্যালয় হলগুলোতে এখন মশার উৎপাতে অতিষ্ঠ অবস্থানরত শিক্ষার্থীরা। হঠাৎ বৃষ্টিতে মশার উপদ্রব যেন আরও বেড়ে গিয়েছে। মশার উপদ্রব বেড়ে যাওয়াতে শিক্ষার্থীরা পড়াশুনা করতে পারছেন না। 

অনেকদিন বন্ধ থাকার কারণে শেকৃবি ক্যাম্পাসের বিভিন্ন হল, কোয়ার্টারের আশপাশের এলাকাসহ ড্রেনগুলো পরিষ্কার না করা ও ময়লা-আবর্জনার স্তূপ থাকায় মশার প্রকোপ বৃদ্ধি পেয়েছে। তাছাড়া ক্যাম্পাসে যত্রতত্র ময়লা ফেলার প্রবণতাও বাড়ছে। এছাড়া ক্যাম্পাসে নির্মাণাধীন ভবন থেকেও মশার বংশবিস্তার হচ্ছে। ফলে অনেক শিক্ষার্থী ইতোমধ্যে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। 

কবি কাজী নজরুল ইসলাম হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ডেঙ্গু আক্রান্ত দ্বিতীয় বর্ষের কৃষি বিভাগের তাওসীফ শাহরিয়ার আকাশ বলেন, ‘প্রতি বছর এ সময়টাতে ডেঙ্গুর প্রকোপ বাড়ে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের উচিৎ ব্যবস্থা গ্রহণ করা। আর এখন যেহেতু আমাদের সবার পরীক্ষা চলমান, তাই সময়টি আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। এ অবস্থায় কেউ আক্রান্ত হয়ে গেলে তার জন্য পরীক্ষা দেওয়া অসম্ভব হয়ে পড়বে।’ 

জানা গেছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের কবি কাজী নজরুল ইসলাম হলের গণরুমে অবস্থানরত ছয়জন, নবাব সিরাজউদ্দৌলা হলের তিনজন এবং কৃষকরত্ন শেখ হাসিনা হলে দুইজন এবং শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিব হলের একজন শিক্ষার্থীর ইতোমধ্যেই ডেঙ্গু শনাক্ত হয়েছে। এমনকি ফাইনাল পরীক্ষা দেওয়ার সময় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে গত শনিবার অ্যানিম্যাল সায়েন্স অ্যান্ড ভেটেরিনারি মেডিসিনের শিক্ষার্থী বিউটি আক্তার হঠাৎ অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে দ্রুত পার্শ্ববর্তী সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শক ও পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. ফরহাদ হোসাইন সংক্রমণের বিষয়ে বলেন, ‘আমরা বিষয়টি ইতোমধ্যেই অবগত হয়েছি। খুব শিগগিরই মশা নিরোধক স্প্রে করা হবে। আর আক্রান্ত কোনো শিক্ষার্থীর পরীক্ষা চলমান থাকলে আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে তার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

/মাহি/

সর্বশেষ

পাঠকপ্রিয়